Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৩ কার্তিক ১৪২৮, ১১ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

দেশেই উৎপাদন হবে সিনোফার্মের টিকা, ত্রিপক্ষীয় চুক্তি সই

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ আগস্ট, ২০২১, ৬:৪৫ পিএম

দেশেই করোনাভাইরাসের টিকা উৎপাদনের লক্ষ্যে চীনের টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সিনোফার্মের সঙ্গে ত্রিপক্ষীয় সমঝোতা চুক্তি সই হয়েছে। চুক্তিতে অংশ নেওয়া তিনটি পক্ষ হলো- স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়, ইনসেপ্টা ভ্যাকসিন লিমিটেড ও সিনোফার্ম। আজ সোমবার (১৬ আগস্ট) বিকেল ৫টায় রাজধানীর মহাখালীর বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ান অ্যান্ড সার্জন (বিসিপিএস) মিলনায়তনে এ চুক্তি সই হয়।

এই চুক্তির আওতায় ইনসেপ্টা টিকা উৎপাদনের কাঁচামাল থেকে শুরু করে বোতলজাতকরণ এবং লেবেলিং করবে। ফলে টিকার মূল্য তুলনামূলকভাবে কম হবে।

নিকট ভবিষ্যতে বাংলাদেশের জনসংখ্যার একটি বড় অংশকে টিকা দেওয়ার লক্ষ্যে চুক্তি অনুযায়ী, স্থানীয় এই ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানিটি শিগগিরই কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন উৎপাদন শুরু করবে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অন্যান্য কোভিড ভ্যাকসিনের তুলনায় সিনোফার্ম ভ্যাকসিন সংরক্ষণ করা তুলনামূলকভাবে সহজ এবং এটি দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে সরকারের বিতরণের ক্ষেত্রে সহজ হবে।

এর আগে শুক্রবার, চীন থেকে বাংলাদেশে ১০ লাখের বেশি সিনোফার্ম ভ্যাকসিনের ডোজ এসেছে। এটি ছিল সিনোফার্ম ভ্যাকসিনের তৃতীয় চালান যা চীন বাংলাদেশে উপহার হিসেবে পাঠিয়েছে। আগের শিপমেন্টে চীন বাংলাদেশকে উপহার হিসেবে পাঠিয়েছিল ৫ লাখ ডোজ যা গত ১২ মে এবং গত ২১ মে এসেছিল ৬ লাখ ডোজ টিকা।

বাংলাদেশ সরকার ভ্যাকসিনের ১৫ মিলিয়ন ডোজের জন্য চীনকে অর্থ প্রদান করেছে। যার মধ্যে সাত মিলিয়ন ডোজ ইতোমধ্যে বাংলাদেশে এসে পৌঁছেছে।

এ চুক্তির ফলে ইনসেপ্টা দ্রুত টিকা উৎপাদন করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন বক্তারা। আলোচকেরা বলেন, প্রতি মাসে ৪ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন উৎপাদন করা সম্ভব হবে। তবে ভ্যাকসিনের দাম এখনও চূড়ান্ত হয়নি। আলোচনা সাপেক্ষে পরে সেটি ঠিক করা হবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী জাহিদ মালেক। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ. কে. আব্দুল মোমেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাসুদ বিন মোমেন, চীনের রাষ্ট্রদূত মি. লি জিমিং, ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান, ইনসেপ্টা ভ্যাকসিন লিমিটেড ও ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের চেয়ারম্যান আব্দুল মুক্তাদির।

এসময় চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, চীনের রাষ্ট্রদূত মি. লি জিমিং এবং ইনসেপ্টা ভ্যাকসিন লিমিটেড ও ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের চেয়ারম্যান আব্দুল মুক্তাদির।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনা ভ্যাকসিন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ