Inqilab Logo

বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

ফার্স্ট ফাইন্যান্সের এক ডজন কর্মকর্তাকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৭ আগস্ট, ২০২১, ১২:০১ এএম

প্রশান্ত কুমার হালদারের সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের সহযোগী হিসেবে ফার্স্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের সংশ্লিষ্ট ১৩ কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। অনুসন্ধান টিমের সদস্য উপ-পরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধান তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন। জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি কর্মকর্তারা হলেন, এফএএস ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডেরর সহকারী ব্যবস্থাপক নিয়াজ আহমেদ ফারুকী, দীপক কুমার চক্রবর্তী, প্রতিষ্ঠানটির আইন বিভাগের প্রধান মো. জাহাঙ্গীর আলম ভুইয়া, শাখা ব্যবস্থাপক তানভীর আহমেদ কমল, ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. মনির হোসেন, সিনিয়র অফিসার মৌসুমী পাল, ম্যানেজার আহসান রাকিব, তৎকালীন সিনিয়র অফিসার তাসনিয়া তাহসিন রোজালিন, ডেপুটি ম্যানেজার মীর ইমাদুল হক, তৎকালীন ভিপি মো. মনিরুজ্জামান আকন্দ, এসভিপি মো. আজিমুল হক এবং এসভিপি প্রাণ গৌরাঙ্গ দে।

পিকে হালদারের অর্থ আত্মসাতে সহযোগী হিসেবে সংশ্লিষ্ট অন্যদেরও পর্যায়ক্রমে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।
দুদক সূত্র জানায়, ফার্স্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের এসব কর্মকর্তারা অসৎ উদ্দেশে ক্ষমতার অপব্যবহার করে প্রতারণার মাধ্যমে অপরাধমূলক বিশ্বাসভঙ্গ করেন। কোনো রূপ ঋণ আবেদন গ্রহণ না করেই যাচাই-বাছাই ছাড়া, বন্ধক ব্যতিত অন্তত ২০টি কাগুজে প্রতিষ্ঠানকে ঋণ দেন। এভাবে বেনিফিশিয়ারিরা প্রতিষ্ঠানটি থেকে অন্তত ১৩শ’ কোটি টাকা হাতিয়ে নেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: দুদক


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ