Inqilab Logo

বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

ভাড়া থাকবেন মেসি-রোকুজ্জো!

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ আগস্ট, ২০২১, ১২:০৬ এএম

আনার প্রক্রিয়া থেকে শুরু করে আগমনের পর থেকেই তার জন্য সম্ভাব্য সবকিছুই করার চেষ্টা করেছে প্যারিস সেন্ট জার্মেই। লিওনেল মেসিকে প্রাপ্য সমাদরের মাঝে রেখেছে ফরাসি ক্লাবটি। আর্জেন্টাইন তারকা যে হোটেলে আছেন, সেখানে প্রতি রাতের ভাড়া প্রায় ২০ লাখ টাকা। কিন্তু এভাবে তো আর থাকা যায় না। পিএসজির সঙ্গে দুই বছরের চুক্তি হয়েছে, চাইলে আরও এক বছর বাড়িয়ে নেওয়ার সুযোগও আছে। অর্থাৎ, প্যারিসে দীর্ঘদিন থাকতে হবে মেসিকে। সে জন্য তো হোটেলে চলবে না, নিজের বাড়ি না হলেও অন্তত একটা ভাড়া বাড়ি তো দরকার! সন্তানদের দ্রুত স্কুলে ভর্তির কথাও ভুললে চলবে না। মেসি এবং তার স্ত্রী আন্তোনেল্লা রোকুজ্জো ঠিক বুঝতে পারছেন না প্যারিসে ভাড়া বাসায় থাকবেন নাকি বাড়ি কিনবেন।
ফরাসি সংবাদমাধ্যম ‘লা পারিসিয়েন’ জানিয়েছে, এ মুহূর্তে মেসি-রোকুজ্জো দম্পতির কাছে সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পাচ্ছে সন্তানদের দ্রুত স্কুলে ভর্তি করার বিষয়টি। স্কুল পছন্দের ক্ষেত্রে তারা যে অঞ্চলে থাকবেন সেটি খুব গুরুত্বপূর্ণ। এদিকে মেসির থাকার ব্যবস্থা করতে গিয়ে ঘাম ছুটে যাচ্ছে প্যারিসের বিলাসবহুল এস্টেট এজেন্টদের। পিএসজিও বসে নেই। তবে লা পারিসিয়েন জানিয়েছে, মেসি-রোকুজ্জো দম্পতি শেষ পর্যন্ত ভাড়া বাসা বেছে নিতে পারেন। কারণ প্যারিসে তারা স্থায়ী হচ্ছেন না।
পিএসজিতে মেসির কিছু সতীর্থদের প্যারিসে আবাসন সমস্যার সমাধান করা এজেন্সি ‘দানিয়েল ফেয়াউ’-এর মুখপাত্র আন্তোনিন টমাস জানিয়েছেন, তারকা হওয়ায় তাদের কাছে বিশেষ কোনো সুবিধা চাননি মেসি, ‘আর দশজন সাধারণ মক্কেল যেমন সেবা পেয়ে থাকেন, তারাও এর বেশি কিছু চাইছে না। বার্সেলোনায় যেমন ছিল, তেমন কিছুই তাদের প্রত্যাশা—একটা ঝকঝকে বাড়ি, কোনো সংস্কার করতে হবে না, একটা বাগান ও সুইমিং পুল। প্যারিসে সুইমিং পুল বের করা মুশকিল, বিশেষ করে ভাড়া বাড়ির ক্ষেত্রে।’
ফরাসি সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, প্যারিসের পশ্চিমাঞ্চলের উপশহর নিউয়ি-সুর-সেনে বাসা নিতে পারেন মেসি। বেশ কিছু দ‚তাবাস এবং করপোরেট অফিসের সদর দপ্তর এ অঞ্চলে অবস্থিত। প্যারিসে সবচেয়ে ধনী ও বিলাসবহুল উপশহরগুলোর একটি নিউয়ি-সুর-সেন। তিন সন্তান থিয়াগো, মাতেও ও চিরোর জন্য ভালো স্কুলও আছে সেখানে। পিএসজির মাঠ পার্ক দে প্রিন্সেসে যাতায়াতও সেখান থেকে বেশি দূরের পথ নয়। রোকুজ্জো নাকি ৮১৩ বর্গমিটারের বাড়ি চেয়েছেন, যেখানে ৩০০ বর্গমিটারের বেশি জায়গাজুড়ে থাকবে বাগান। দাম আড়াই কোটি ইউরো। তবে মেসি-রোকুজ্জোকে নাকি আগেই ১৩০০ বর্গমিটার আয়তনের শয়নকক্ষের সঙ্গে ১৩৭০ বর্গমিটারের বাগান নিয়ে তৈরি বাসা দেখানো হয়েছে। দাম দুই কোটি ইউরো।
পারিসিয়েন জানিয়েছে, এই জায়গার মধ্যে রয়েছে চারটি স্যুইট, এর মধ্যে দুটি অতিথিদের জন্য। বাড়ির কর্মীদের জন্য অ্যাপার্টমেন্ট, চারটি গাড়ি রাখার গ্যারাজ, ম্যাসাজ কক্ষ, হোম থিয়েটার, সুইমিং পুল, সনা ও ওয়াইন সেলার। এ ছাড়া প্যারিসের আরেকটি উপশহর ভিলা মন্তমোরেনসিতেও থাকতেন পারেন মেসি-রোকুজ্জো দম্পতি। এটি মূলত ধনীদের বসবাসের জায়গা। সেখানেও মেসির জন্য ৯৫২ বর্গমিটার আয়তনের বাড়ি দেখানো হয়েছে। দাম আড়াই কোটি ইউরো।
প্যারিসের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের শহর ভেলিনেসেও থাকতে পারেন তারা। নেইমার এ অঞ্চলে থাকেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মেসি-রোকুজ্জো
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ