Inqilab Logo

সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৯ কার্তিক ১৪২৮, ১৭ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

শিশুর জন্য অলিম্পিক পদক বিক্রি!

মারিয়ার মহানুভবতা

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ আগস্ট, ২০২১, ১২:০৬ এএম

একটি অলিম্পিক পদকের জন্য অজীবনের হাপিত্যেস থাকে যে কোনো অ্যাথলেটের। পেলেও সেটিকে যক্ষের ধনের মতো আগলে রাখেন জীবনভর। তবে নিজের সন্তান নয়, বাচ্চাটিকে আগে থেকে সেভাবে চিনতেনও না, কিন্তু আট বছরের সেই শিশুর জন্যই কি-না নিজের কষ্টের অর্জন অলিম্পিকের পদক নিলামে তুলে সংগ্রহ করলেন অর্থ! হ্যাঁ, এমনই মাহানুভবতার পরিচয় দিয়েছেন পোলিশ অ্যাথলেট মারিয়া আন্দ্রেজিক!

আন্দ্রেজিক এবারের টোকিও অলিম্পিকে জ্যাভেলিন থ্রোয়ে জিতেছেন রুপা। এই অ্যাথলেটের কাছে অলিম্পিকে জেতা রুপার পদক কেবলই একটা ‘বস্তু’, এর চেয়েও বড় বিষয় তিনি পেয়েছেন হৃদরোগে আক্রান্ত ওই শিশুর চিকিৎসার জন্য অর্থ সংগ্রহ করে, সেটি হচ্ছে মনের তৃপ্তি, শিশুটির নতুন জীবন ফিরে পাওয়ার স্বস্তি। অলিম্পিকের পদক স্যুভেনির হিসেবে বাড়িতে সাজিয়ে রাখলে তিনি এই তৃপ্তি পেতেন না হয়তো, ‘এই অলিম্পিক পদক তো একটা বস্তু ছাড়া আর কিছুই নয়। কিন্তু এটির ওপর ধুলা না জমিয়ে তা যদি মানবতার কল্যাণে কাজে লাগে, সেটি যদি কাউকে নতুন জীবন দেয়, সেটিই বরং ভালো। আমিও তৃপ্তি পাই, স্বস্তি পাই।’
আন্দ্রেজিকের এ জীবনবোধ তার নিজের জীবন থেকেই পাওয়া। ২০১৬ রিও অলিম্পিকে মাত্র ২ সেন্টিমিটারের জন্য জ্যাভেলিন থ্রোয়ে পদক জিততে পারেননি। ২০১৮ সালে হাড়ের ক্যানসারে আক্রান্ত হন। জীবনটাই হয়েছিল বিপন্ন। সেই ক্যানসার জয় করে তিনি আবারও ট্র্যাকে ফিরেছেন। জয় করেছেন অলিম্পিকের পদকও। জীবনটা যে একটা অলিম্পিকের পদকের চেয়ে অনেক বড়, অলিম্পিকের একটা গৌরব অর্জনেরও অনেক ওপরের জিনিস, আন্দ্রেজিক সেটি খুব ভালো করে জানেন বলেই তিনি আট বছরের শিশু মিলোসজেকের জন্য নিজের সাধের পদকটি বিক্রি করে দিতে এতটুকু দ্বিধায় ভোগেননি।
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মিলোসজেকের রোগের কথা জেনেছেন আন্দ্রেজিক। ছোটবেলা থেকেই হৃদরোগে ভুগছে সে। বড় ধরনের অস্ত্রোপচার প্রয়োজন, সেটি হলেই হয়তো স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারবে সে। আট বছরের শিশুটির এ খবর দেখেই আর থাকতে পারেননি তিনি। নিজের ‘অলিম্পিক-অর্জন’ বিক্রি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। নিলামে আন্দ্রেজিকের রুপার পদকটি শেষ অবধি বিক্রি হয়েছে ২ লাখ ৫০ হাজার ডলারে। নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে আন্দ্রেজিক লেখেন, ‘মিলোসজেকের হৃদরোগের সমস্যাটা খুবই গুরুতর। ওর দ্রুতই অস্ত্রোপচার হওয়া দরকার। আমি ওর সুচিকিৎসার জন্যই আমার অলিম্পিক পদকটি নিলামে বিক্রি করে দিচ্ছি। আশা করি, মিলোসজেকের জন্য একটা দারুণ সুন্দর ভবিষ্যৎ অপেক্ষা করে আছে।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মারিয়ার মহানুভবতা
আরও পড়ুন