Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫, ১৪ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূর শরীরে সিগারেটের ছ্যাঁকা

প্রকাশের সময় : ৪ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

দৌলতপুর (কুষ্টিয়া) উপজেলা সংবাদদাতা

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে দুই লক্ষ টাকা যৌতুকের দাবিতে সন্ধ্যা (২০) নামে এক গৃহবধূকে অমানবিক নির্যাতন করেছে পাষ- স্বামী। বর্তমানে নির্যাতিত গৃহবধূ দৌলতপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। নির্যাতিত গৃহবধূ ও তার পরিবারের অভিযোগ উপজেলার ফিলিপনগর ইউপির ফিলিপনগর দফাদারপাড়া গ্রামের বিপ্লব তার স্ত্রী সন্ধ্যাকে দুই লক্ষ টাকা যৌতুকের দাবিতে কয়েকদিন ধরে চাপ প্রয়োগ করে আসছিল। অসহায় ও দরিদ্র বাবার বাড়ি থেকে সন্ধ্যা যৌতুকের টাকা নিয়ে আসতে অপারগতা প্রকাশ করলে রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে সন্ধ্যাকে ঘরের ভিতর আটকিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে তার ওপর অমানবিক নির্যাতন চালায়। মুখ, হাত ও পা বেঁধে বেধড়ক মারপিট ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে সিগারেটের আগুন দিয়ে পুড়িয়ে নির্মমভাবে নির্যাতন করে। একপর্যায়ে সন্ধ্যা জ্ঞান হারালে পাষ- স্বামী বিপ্লব সন্ধ্যাকে ঘরের ভিতর আটকে রেখে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে সন্ধ্যার বাবার বাড়ির লোকজন সন্ধ্যাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে দৌলতপুর হাসপাতালে ভর্তি করে। নির্মম ও পাশবিক নির্যাতনের এ ঘটনায় সন্ধ্যার বাবা হাফিজুল ম-ল বাদি হয়ে গতকাল সোমবার দুপুরে দৌলতপুর থানায় অভিযোগ দিয়েছে। তবে পাষ- বিপ্লব পলাতক থাকায় তাকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। উল্লেখ্য, প্রায় দেড় বছর আগে মোটা অংকের যৌতুক দিয়ে সন্ধ্যার সাথে বিপ্লবের বিয়ে হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।