Inqilab Logo

শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮, ০৮ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

কাঠগড়ায় বসে মোবাইল ফোনে প্রদীপের কথা বলার ছবি ভাইরাল, সোশ্যাল মিডিয়ায় তোলপাড়

শাহেদ নুর | প্রকাশের সময় : ২৫ আগস্ট, ২০২১, ২:০০ পিএম

সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যা মামলায় বাদীর সাক্ষ্য গ্রহণের সময় আদালতের কাঠগড়ায় থাকা অবস্থায় মোবাইল ফোনে কথা বলেছেন মামলার গ্রেফতারকৃত আসামী পুলিশের বরখাস্ত ওসি প্রদীপ কুমার দাস। মঙ্গলবার কাঠগড়ায় বসে মোবাইল ফোনে প্রদীপের কথা বলার ছবি ইতোমধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয়েছে তোলপাড়।

ছবিতে দেখা যাচ্ছে, আদালত কক্ষের কাঠগড়ার ভেতরে হাঁটু গেড়ে বসে মোবাইল ফোনে কথা বলছেন প্রদীপ। এ সময় কয়েকজন ব্যক্তি আশপাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন। জানা গেছে, আদালতে দায়িত্বরত এক পুলিশ কনস্টেবল প্রদীপকে মোবাইল ফোনটি সরবরাহ করেছিলেন। ওই সময় মোবাইল ফোনে একের পর এক কলে আনুমানিক ৩০-৪৫ মিনিট কথা বলেছেন প্রদীপ।

বুধবার এ ঘটনায় আসামি ওসি প্রদীপকে সতর্ক করেছে আদালত। পাশাপাশি সেখানে দায়িত্বরত চার পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। ঘটনা তদন্তে একটি কমিটিও গঠন করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে তৌহিদুল ইসলাম ফেইসবুকে লিখেন, ‘এই ওসি প্রদীপ কি দেশের আইন ও বিচার বিভাগের চেয়েও বড় শক্তিশালী! দেশের মানুষ আজ বড়ই হতাশ! একজন হত্যা মামলার আসামি বিচারকের এজলাসে কিভাবে ফোনে কথা বলতে পারে?’

এমডি মাসুদ লিখেন, ‘ওসি প্রদীপের ক্ষমতার এখনও অনেক জোর। না হলে আদালতের কাঠগড়ায় কীভাবে ফোন ব্যবহার করে?’

শাহির চৌধুরী লিখেন, ‘ওসি প্রদীপ সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা বলে পুলিশ তাকে যে ফ্যাসিলিটিস দিচ্ছে, এখানে অবাক হওয়ার কিছু নেই। কারণ এটাই বাংলাদেশের সিস্টেম ...............’

এমডি সানজিদ হাসান লিখেন, ‘ওসি প্রদীপকে দেখলে মনেই হয় না যে, সে রিমান্ডে ছিলো বা জেল ছিলো। বাংলাদেশের আইন যে কবে কখন সবার জন্য সমান হবে, এটা একমাত্র আল্লাহ ভালো জানেন।’

মুহাম্মদ মিরাজ উদ্দিনের দাবি, ‘ফোনালাপে যার সাথে কথা হয়েছে তাকেও গ্রেফতার করা হোক।’

বুধবার চার পুলিশ সদস্য প্রত্যাহারসহ বেশ কিছু নির্দেশনা প্রদান করায় আদালতকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন নেটিজেনরা। ওসি প্রদীপকে সতর্ক করা প্রসঙ্গে আসাদ জামিল লিখেন, ‘প্রদীপকে সতর্ক করে লাভ কি? প্রসাশনকে ভালো হতে বলেন, তাহলে সব ঠিক থাকবে।’



 

Show all comments
  • মোঃ আকতার হোসেন মীর ২৫ আগস্ট, ২০২১, ২:৩৩ পিএম says : 0
    ওসি প্রদিপ কুমার আদালতসহ পুরো জাতিকে বৃদ্ধাআঙুল দেখাল । এত সাহস পায় কোথায় থেকে ?
    Total Reply(0) Reply
  • Rahim ২৫ আগস্ট, ২০২১, ৫:৩১ পিএম says : 0
    I think his power is better than government power
    Total Reply(0) Reply
  • Sojib ২৬ আগস্ট, ২০২১, ৫:৫৪ এএম says : 0
    KILLER AND HE KILLED ABOUT 264 PEOPLE INCLUDING MAJOR SINHA. HE WOULD HAVE CONTINUED HIS KILLING MISSIONS IF HE WASN'T CAUGHT IN THIS INCIDENT. OC PRODIP AND HIS ASSISTANT THAT HELPED HIM KILL INNOCENT PEOPLE SHOULD BE HANDED OVER TO THE PUBLIC. PRISON IS A FIVE STAR VACATION SUIT FOR THEM BECAUSE POLICE WILL NOT DO THEIR JOB PROPERLY IN EXCHANGE OF MONEY. PRODIP'S HANDS, LEGS EARS, PENIS NEED TO BE CUT OF INCLUDING TAKING HIS EYS OUT. OC PRODIP IS ALSO AN INDIAN RAW AGENT THUS HIS JUSTICE SHOULD BE DONE AS SAID HERE AND LET HIM GET TASTE OF DEVASTATED LIFE. EVEN THIS ISN'T ENOUGH BECAUSE HE KILLED 264 PEOPLE. CUT PRODIP'S HANDS, LEGS, EARS, PENIS AND TAKE OUT HIS EYES. I'm demanding this from kolkata.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সোশ্যাল মিডিয়া


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ