Inqilab Logo

বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৫ মাঘ ১৪২৮, ১৫ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

সোহাগ গাজীর সেঞ্চুরি

প্রকাশের সময় : ৪ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস রিপোর্টার : প্রথম রাউন্ডে ক্রিকেটারদের সুযোগ না দিয়ে ৪ ভেন্যুতে একাই খেলেছে বেরসিক বৃষ্টি। সাইডলাইনে বসে গা গরম করা ব্যাটসম্যান-বোলাররা যেন খোলস ছেড়ে বেরুলেন দ্বিতীয় রাউন্ডে এসেই। জাতীয় ক্রিকেট লিগের (এনএসসি) এই রাউন্ডে এসে প্রথম দিনটি ভাগাভাগি করে নিয়েছে ব্যাটসম্যান বোলররা। রাজশাহীরে বোলারদের দাপটে যেমন লÐভÐ হয়েছে চট্টগ্রামের ব্যাটিং অর্ডার, আবার ক্রিকেটে ফেরা আশরাফুলকে বাদ দিলে ঢাকা মেট্রোর বোলারদের ওপর ছড়ি ঘুরিয়েছে বরিশালের ব্যাটসম্যানরা। তবে দ্বিতীয় দিনে এসে বৃষ্টিতে পরিত্যাক্ত হওয়া বগুড়া ভেন্যু বাদে সবগুলো ভেন্যুতেই রাজত্ব ফিরে পেয়েছে ব্যাটসম্যানরা। প্রথম দিনে সেঞ্চুরি পেতে মাত্র ২ রানের আক্ষেপে পুড়তে হয়েছে বরিশালের আবু সায়েমকে। একদিন বাদেই গতকাল জাতীয় লিগে হয়েছে ৩টি শতক। অপেক্ষা রেখেছে আরো দুজনকে। তিন অঙ্কে পৌঁছান বরিশালের সোহাগ গাজী আর রাজশাহীর মিজানুর রহমান ও জহুরুল ইসলাম অমি। সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ১০ রানের অপেক্ষায় আছেন এই দলটিরই হামিদুল ইসলাম আর সিলেটের জাকির হোসেনের লাগবে ৯ রান।
মিজানুর রহমান ও জহুরুল ইসলামের শতকে রানের পাহাড়ে চট্টগ্রামকে চাপা দিচ্ছে রাজশাহী। দুই শতকে জাতীয় ক্রিকেট লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডে বিশাল সংগ্রহের পথে ছুটছে দলটি। ২০১২-১৩ মৌসুমের পরে এই প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে শতকের দেখা পেলেন রাজশাহীর দুই ব্যাটসম্যানই। জাতীয় লিগের দ্বিতীয় স্তরের ম্যাচের দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে রাজশাহীর সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৪৮২ রান। হামিদুল ইসলাম ৯০ ও মুক্তার আলী ১৭ রানে ব্যাট করছেন। প্রথম ইনিংসে চট্টগ্রামকে ১৪১ রানে গুঁড়িয়ে দেওয়া রাজশাহী এগিয়ে আছে ৩৪১ রানে। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে নিজের চতুর্থ শতক পাওয়া মিজানুর ফিরেন ১৪৪ রানের ঝকঝকে এক ইনিংস খেলে। তার ১৬৩ বলের ইনিংসটি গড়া ১৮টি চার ও ৪টি ছক্কায়। এক প্রান্তে দেখেশুনে খেলে শতকের পথে রয়েছেন উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান হামিদুল। তার সঙ্গে ২০৬ রানের বড় জুটি উপহার দেওয়া জহুরুল খেলেন ওয়ানডে মেজাজে। ১৩১ রান করতে খেলেন ১৪৩ বল। ১৭টি চারের সঙ্গে হাঁকান দুটি ছক্কা। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এটি তার একাদশ শতক।
মাঠ খেলার অনুপযোগী থাকায় প্রথম স্তরের অন্য ম্যাচে দ্বিতীয় দিন খেলা সম্ভব হয়নি। বৃষ্টি বিঘিœত প্রথম দিন ১ উইকেটে ১৭২ রান করে খুলনা। এদিকে সোহাগ গাজীর দারুণ এক শতকে ঢাকা মেট্রোর বিপক্ষে বড় সংগ্রহ গড়েছে বরিশাল। দ্বিতীয় দিন ৩ উইকেট তুলে নিয়ে প্রথম স্তরের ম্যাচে মার্শাল আইয়ুবের দলকে চাপে রেখেছে তারা। দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে ঢাকা মেট্রোর সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৪৫ রান। এখনও ২৭৪ রানে পিছিয়ে আছে দলটি। অধিনায়ক মার্শাল ২৬ ও মেহরাব হোসেন জুনিয়র ২৯ রানে ব্যাট করছেন।
এর আগে খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে ৬ উইকেটে ৩০১ রান নিয়ে খেলা শুরু করা বরিশাল প্রথম ইনিংসে করে ৪১৯ রান। সপ্তম উইকেটে ১১১ রানের জুটিতে দলকে চারশ’ রানের কাছাকাছি নিয়ে যান আগের দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান সোহাগ ও মনির হোসেন। দলীয় ৩৮০ রানে মনিরের বিদায়ের পর প্রায় একাই খেলতে হয় প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে সপ্তম শতক পাওয়া সোহাগের। নবম ব্যাটসম্যান হিসেবে ফেরার আগে করেন ১৪২ রান। ১৯০ বলের ইনিংসটি ১৩টি চার ও ৪টি ছক্কা সমৃদ্ধ। ঢাকা মেট্রোর আশরাফুল ও আরাফাত সানি নেন ৪টি করে উইকেট।
আর রংপুরের দেয়া ২১৭ রানের লক্ষ্য থেকে প্রথম ইনিংসে ৩ রান পিছিয়ে আছে সিলেট। সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জাকির হোসেনের অপরাজিত ৯১ রানে ভর করে দ্বিতীয় দিন শেষে ৬ উইকেট হারানো স্বাগতিকদের সংগ্রহ ২১৪। জাকিরকে সঙ্গ দেয়া আবুল হোসেন রাজুর সংগ্রহ ১৩। রংপুরের হয়ে দুটি করে উইকেট নিয়েছেন মাহমুদুল ও তানভীর।
চট্টগ্রাম-রাজশাহী
চট্টগ্রাম ১ম ইনিংস : ১৪১। রাজশাহী ১ম ইনিংস : ৪৮২/৫ (১২৫ ওভার) মিজানুর ১৪৪, জুনায়েদ ৫৬, ফরহাদ হোসেন ২২, জহুরুল ১৩১, হামিদুল ৯০ (ব্যাটিং), মুক্তার ১৭ (ব্যাটিং); আরিফ ২/১১০, তাসামুল ১/৫৫, হোসেন ১/৮৫, রনি ১/১১৪
বরিশাল-ঢাকা মেট্রো
বরিশাল ১ম ইনিংস: ৪১৯/১০ (১১৮ ওভার) শাহরিয়ার ৪৮, সালমান ২৯, সায়েম ৯৮, সোহাগ ১৪২, মনির ৬২, তৌহিদুল ১০*; আশরাফুল ৪/৬২, সানি ৪/১৪৯
ঢাকা মেট্রো ১ম ইনিংস: ১৪৫/৩ (৬১ ওভার) শামসুর ৪৯, আসিফ ৩৩, মার্শাল ২৬ (ব্যাটিং), মেহরাব জুনি. ২৯ (ব্যাটিং); শাওন ১/২২, কবীর ১/৩৩
খুলনা-ঢাকা বিভাগ
খুলনা ১ম ইনিংস : ১৭২/১ (৫০.৫ ওভার) মেহেদি ৮, এনামুল ৮৪ (ব্যাটিং), ইফতেখার ৭১ (ব্যাটিং); শাহাদাত ১/৩৪
সিলেট-রংপুর
রংপুর ১ম ইনিংস : ২১৭/১০ (৮৭.৪ ওভার) সায়মন ৩২, জাহিদ ৩৯, নবিন ৩১, আরিফ ১৬, ধীমান ৪৫, সোহরাওয়ার্দী ৩০*, সাজেদুল ৫, সাদ্দাম ১০; সাহানুর ৩/৫২, কাপালী ৩/৪৩, আবুল হাসান ২/১৯।
সিলেট ১ম ইনিংস : ২১৪/৬ (৮৩ ওভার) ইমতিয়াজ ২৩, শানাজ ৩৫, জাকির ৯১ (ব্যাটিং), কাপালী ২৫, আবুল হাসান ১৩ (ব্যাটিং); মাহমুদুল ২/৪৭, তানভীর ২/৩৮।
(দ্বিতীয় দিন শেষে)



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সোহাগ গাজীর সেঞ্চুরি

৪ অক্টোবর, ২০১৬
আরও পড়ুন