Inqilab Logo

বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

কুকুর-বিড়ালের জন্য প্রত্যাহার অভিযান ব্যাহত!

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ আগস্ট, ২০২১, ৭:৪৮ পিএম

সাবেক ব্রিটিশ রয়েল মেরিনের তৈরি আশ্রয়কেন্দ্রের প্রাণীদের উদ্ধার প্রচেষ্টার কারণে আফগানিস্তান থেকে ব্রিটিনের প্রত্যাহার অভিযান ব্যাহত হচ্ছে। বুধবার ব্রিটেনের প্রতিরক্ষা সচিব বেন ওয়ালেস এই অভিযোগ করেছেন।

বুধবার সাংসদদের সাথে একটি বৈঠকে বেন ওয়ালেস বলেছেন যে, এটি ‘বিরক্তিকর’ যে তিনি দেখেছেন সেনাবাহিনীকে ‘লোকদের বাঁচানো থেকে দূরে সরানো হয়েছে’। কারণ হচ্ছে ‘মেরিন পলের তত্ত্বাবধানে থাকা ২০০ কুকুর এবং বিড়াল এবং শ্রমিকদের সাথে যা ঘটছে’ সে সম্পর্কে ‘ভুল প্রতিবেদন’। তিনি হতাশা প্রকাশ করে বলেন, ‘বিষয়টি এমন কিছু নয় যা নিয়ে আমি গর্ববোধ করবো ‘

জানা গেছে, মেরিন পলের নিজস্ব চার্টার প্লেন না আসা পর্যন্ত প্রাণীগুলো আফগানিস্তান ছেড়ে যেতে পারবে না। ওয়ালেস বলেছিলেন যে, নিরাপত্তার কারণে তিনি বিমানে পশু রাখতে পারেননি। পলের দল হেরেও যেতে পারে কারণ তাদের অগ্রাধিকার হিসেবে বিবেচনা করা হবে না। তিনি বর্তমানে বিমানবন্দরে যাচ্ছেন কারণ তাকে এবং তার কর্মীদের প্রত্যাহারে অংশ নিতে বলা হয়েছিল। তারা তাদের পশু নিয়ে আসতে পারে বলেও জানানো হয়েছিলো। তবে সেখানে একবার তারা একাধিক বাধার সম্মুখীন হয়। তারা সর্বোচ্চ ‘অগ্রাধিকার’ গ্রুপে নেই বলে বোঝা যায় কারণ তারা ‘ঝুঁকিতে’ বলে বিবেচিত হয় না তাই তাদের বিমানে উঠার সুযোগ নেই।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বিমানবন্দরের আকাশপথ নিয়ন্ত্রণ করে, এবং পল এবং তার পশুপাখিরা প্রবেশ করবে পারবে কিনা সে বিষয়ে তাদেরও মতামত প্রয়োজন হবে। ওয়ালেস সাংসদদের বলেছিলেন, ‘আমি যা করার জন্য প্রস্তুত ছিলাম না তা হল মানুষের উপর পোষা প্রাণীকে অগ্রাধিকার দেয়া, আমি ভয় পাচ্ছি আপনি হয়তো এর জন্য আমাকে অপছন্দ করবেন কিন্তু এটা আমার দৃষ্টিভঙ্গি, প্রকৃত হুমকির মধ্যে কিছু খুব, খুব হতাশ মানুষও আছে।’ তিনি বলেন, তার দল এবং প্রাণীদের জন্য নিরাপদ পথ নিশ্চিত করার প্রচেষ্টার আশেপাশে এত ভুল তথ্য পেয়েছিলেন যে এটি সামরিক বাহিনী দিয়ে সরিয়ে নেয়ার প্রচেষ্টাকে প্রভাবিত করেছিল।

তিনি সাংসদদের বলেন, ‘আমি আপনাদের যা বলতে পারি, এবং এটি কিছুটা বিরক্তিকর, তা হল, সেখানে আমাদের সৈন্য আছে যারা ভুল গল্প, ভুল তদবিরের কারণে প্রত্যাহার অভিযানে মানুষদের বাঁচানো থেকে দূরে সরে গেছে। এমন কিছু নয় যা নিয়ে আমি গর্বিত হব, এবং আমি খুব সহজ এবং সামঞ্জস্যপূর্ণ ছিলাম।’ পল যদি বিশেষভাবে একটি বিমান ভাড়া করেন ও পশুদের বিমানবন্দরে নিয়ে আসেন, তাহলে সেখানে থাকা যুক্তরাজ্যের কর্মীরা আমেরিকানদের কাছ থেকে অনুমতি নেবে বলে ওয়ালেস জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘যদি বিমান না থাকে, তবে সাধারণ বাস্তবতা হল যে আমরা সামরিক বিমানে প্রাণী রাখতে পারব না।’ সূত্র : স্কাই নিউজ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন