Inqilab Logo

শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আপিল করবে আরামবাগ

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩০ আগস্ট, ২০২১, ১২:০০ এএম

দেশের ক্রীড়াঙ্গনে ঐতিহ্যবাহী ক্লাব আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ। বিশেষ করে ঘরোয়া ফুটবলে তাদের দীর্ঘ দিনের ইতিহাস। সা¤প্রতিক সময়ে অবশ্য প্রিমিয়ার ফুটবল লিগে (বিপিএল) উঠা-নামার মধ্যে ব্যস্ত থাকলেও আজ এক কলঙ্কের সাক্ষী হলো ক্লাবটি। স্পট ফিক্সিংয়ের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ক্লাবকে এক ধাপ অবনমন এর পাশাপাশি কয়েকজন খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাদের বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি দেয়া হয়েছে।

বাফুফের ডিসিপ্লিনারি কমিটির সিদ্ধান্তের বিপরীতে অবশ্য আপিল করার সুযোগ রয়েছে আরামবাগের। পরে আপীল কমিটি ভুক্তভোগীর আবেদন এবং ডিসিপ্লিনারি কমিটির সিদ্ধান্ত পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়। সেই সুযোগটিই কাজে লাগানোর ইঙ্গিত দিয়ে ক্লাবটির বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী বলেন, ‘আমরা অবশ্যই আপিল করব। আশা করি বাফুফে আমাদের আপিল বিবেচনা করবে।’

আরামবাগ ক্লাবে এবার চলতি মৌসুমের শুরুতে পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনায় ছিলেন নতুন কর্মকর্তারা। তারা পৃষ্ঠপোষকতার পাশাপাশি দলীয় ব্যবস্থাপনাও করেছেন। তাদের মাধ্যমেই আরামবাগে ফিক্সিংয়ের সম্পৃক্ততা। গণমাধ্যমের রিপোর্ট ও বাফুফের তদন্তের শুরুতেই আরামবাগের প্রকৃত সংগঠকরা ফিরে আসেন এবং পৃষ্ঠপোষকদের ক্লাব থেকে বাদ দেন। বাফুফের দেয়া শাস্তিতে বেশির ভাগই আগে ক্লাবের সঙ্গে জড়িত থাকাদের এবং তাদের মাধ্যমে আসা বিদেশি কোচিং স্টাফ ও ফুটবলাররা। বাফুফের শাস্তি নিয়ে ক্লাবের বর্তমান সাধারণ সম্পাদকের মন্তব্য, ‘স্পট ফিক্সিং করেছে ব্যক্তি। ব্যক্তিদের শাস্তি দেওয়া হয়েছে বা হোক। ব্যক্তির জন্য প্রতিষ্ঠানকে সেভাবে দোষী সাব্যস্ত করা ঠিক হয় না।’
আরামবাগ ক্লাবকে বাফুফে স্পট ফিক্সিং ও ম্যাচ ম্যানুপুলশেনের জন্য সিনিয়র ডিভিশনে নামিয়েছে। দুই বছর এই পর্যায়ে খেলতে হবে তাদের। বাফুফের এই সিদ্ধান্ত পুর্নবিবেচনার জন্যই আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ আবেদন করবে। ক্লাবের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাহাঙ্গীর এজাজ ব্যক্তিগত কাজে ঢাকার বাইরে। তিনি ক্লাবের শাস্তি প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমি ঢাকার বাইরে রয়েছি। ঢাকায় ফিরে ক্লাবে সবার সাথে আলোচনা করে আমাদের পরবর্তী করণীয় ঠিক করব।’

আরামবাগ ক্লাব দেশের প্রথম ক্লাব যারা বিদেশ থেকে নিয়ে এসেছে ট্রফি। ১৯৮১ সালে নেপালের আনফা কাপে আরামবাগ রানার্স আপ হয়েছিল। সেটিই ছিল স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশের কোনো ক্লাবের প্রথম কোনো ট্রফি। সা¤প্রতিক সময়ে স্বাধীনতা কাপে আরামবাগ কোচ মারুফুল হকের অধীনে স্বাধীনতা কাপ ট্রফি জিতেছিল শুধু দেশীয় ফুটবলার দিয়ে। আরামবাগ থেকে দেশের অনেক ফুটবলার বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন। জাতীয় দলেও আরামবাগের সরবারহ ছিল অনেক।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ
আরও পড়ুন