Inqilab Logo

শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৬ কার্তিক ১৪২৮, ১৪ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

নদীভাঙ্গনে দিশেহারা চরভদ্রাসন হরিরামপুরের হাজারো ও মানুষ

ফরিদপুর | প্রকাশের সময় : ৩০ আগস্ট, ২০২১, ৪:৪৬ পিএম

ফরিদপুর চরভদ্রাসন উপজেলায় পদ্মা নদীর তীব্র ভাঙ্গনে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন উপজেলার নদী তীর বর্তী হাজারো মানুষ।

মাত্র কয়েক দিনের ব্যবধানে নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে ফশলী জমি বসতভিটাসহ নানা প্রতিষ্টান।

হুমকির মূখে রয়েছে অবশিষ্ট বসতভিটা সহ বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা।নদী ভাঙ্গন রোধে নামমাত্র জিওব্যাগ ফেলা হলেও কোন কাজে আসছেনা।

চলতি বছর নদীতে পানি বাড়ার সাথে সাথে নদী তীরবর্তী এলাকা, হরিরামপুর, সবুল্লা শিকদারদের ডাঙ্গী, জাকেরের হুরা,চেয়ারম্যান বড়ীর মোড়,সুবি মাতুব্বরের ডাঙ্গী, চরহরিরামপুর, সহ অসংখ্য গ্রামের ভিটে বাড়ী ,ফসলি জমি হারিয়ে নিস্ব কয়েকশত মানুষ।

প্রতিনিয়ত ভাঙ্গনে ঘরবাড়ি, সড়কসহ নানা স্থাপনা ইতিমধ্যে নদীগর্ভে বিলিন হয়ে গেছে,নদী তীরের মানুষগুলি নিস্ব হয়ে পথে বসার উপক্রম হয়েছে।

ইতিমধ্যে স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি সহ পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলীরা সরেজমিন পরিদর্শণ করে নামেমাত্র জিও ব্যাগ ফেলে ভাঙ্গন ঠেকানোর উদ্যোগ গ্রহণ করলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল যাতে রক্ষা হচ্ছেনা ভাঙ্গন।

ফরিদপুর জেলা প্রশাক জনাব, অতুল সরকারের কাছে ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শণের জন্য জোর দাবী তুলেছেন নদী তীরবর্তী ক্ষতিগ্রস্থ সাধারণ মানুষ।

ফরিদপুর -৪ নির্বাচনী এলাকার মানুষের দীর্ঘ মেয়াদী এ নদী ভাঙ্গন সমস্যা হলে আজও পর্যন্ত উল্লেখযোগ্য কোন ব্যবস্থা পরিলক্ষিত হচ্ছেনা।

মানুষের ঘরবাড়ি, ফসলের মাঠ রাস্তাঘাট রক্ষায় দ্রুত বাস্তবমূখী পরিকণ্পনা নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

এই প্রতিনিধি, (গতকাল ৩০ আগস্ট) বিকাল ৪ টায় হরিরামপুর ভাঙ্গনকবলিত পরিদর্শন কালে দেখতে পান দুই তিন মিনিট পরপরই নদীর বুকে বিলিন হচ্ছে গৃহস্থালির নানান আসবাবপত্র ও বহু গাছপালা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ