Inqilab Logo

শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৮ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের জন্য চলচ্চিত্র আহবান

বিনোদন রিপোর্ট: | প্রকাশের সময় : ৩১ আগস্ট, ২০২১, ১২:০২ এএম

২০২০ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের জন্য চলচ্চিত্র জমা দেওয়ার জন্য আবেদনপত্র আহবান জানিয়েছে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণে ইচ্ছুক সংশ্লিষ্ট প্রযোজক আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর রবিবার বিকেল ৫টার মধ্যে আবেদন করতে পারবেন। প্রযোজকদের তাদের চলচ্চিত্রের একটি উন্নতমানের সিডি, ডিভিডি ও পেনড্রাইভ এবং নির্ধারিত ছকে প্রযোজক, পরিচালক এবং সংশ্লিষ্ট শিল্পী ও কলা-কুশলীদের নাম, ঠিকানা, টেলিফোন নম্বরসহ জীবন বৃত্তান্ত (বাংলায়), চলচ্চিত্রের কাহিনী সংক্ষেপ, গানের কথা ইত্যাদি প্রতিটির ১৫ সেট নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পৌঁছে দিতে বলা হয়েছে। এসব তথ্য ভাইস চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ ফিল্ম সেন্সর বোর্ড ও সদস্য-সচিব, জুরি বোর্ড, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০২০, তথ্য ভবন, ১১২ সার্কিট হাউজ রোড, রমনা, ঢাকা, এই ঠিকানায় পাঠাতে হবে বলেও জানানো হয়েছে। পুরস্কারের জন্য আবেদন করতে কিছু শর্ত অনুসরণ করতে হবে। এর মধ্যে প্রথম শর্ত হলো আবেদনকারীকে অবশ্যই বাংলাদেশি নাগরিক হতে হবে। এছাড়াও আর যেসব শর্ত দেওয়া হয়েছে সেগুলো হলো, আজীবন সম্মাননা পুরস্কারের জন্য জীবিত ব্যক্তিদেরই বিবেচনা করা হবে। যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত চলচ্চিত্র পুরস্কারের জন্য বিবেচিত হবে। তবে যৌথ প্রযোজনা চলচ্চিত্রের বিদেশি শিল্পী এবং কলা-কুশলীরা পুরস্কারের জন্য বিবেচিত হবেন না। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের বিবেচনাযোগ্য চলচ্চিত্রকে অবশ্যই বাংলাদেশ ফিল্ম সেন্সর বোর্ডের সেন্সর সনদপত্র প্রাপ্ত এবং বিবেচ্য বছরে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তিপ্রাপ্ত হতে হবে। স্বল্পদৈর্ঘ্য ও প্রামাণ্য চলচ্চিত্রের ক্ষেত্রে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির কোনও বাধ্যবাধকতা থাকবে না, তবে তা ২০২০ সালে সেন্সর সনদপত্র প্রাপ্ত হতে হবে। পুরস্কারযোগ্য প্রতিটি শাখায় গুণগত ও শৈল্পিক মানে শ্রেষ্ঠত্বের ভিত্তিতে পুরস্কারের জন্য বিবেচনা করা হবে। দেশীয় প্রেক্ষাপট, পরিচালকের মৌলিকত্ব ও সৃজনশীলতার স্বাক্ষর বহনকারী চলচ্চিত্র পুরস্কারের জন্য বিবেচিত হবে। জুরি বোর্ডের বিবেচনার জন্য প্রতিটি নৃত্যের জন্য পৃথকভাবে নৃত্য পরিচালকের নাম উল্লেখ করতে হবে। একইভাবে প্রতিটি গানের (পুরস্কার পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে এমন) জন্য পৃথকভাবে গায়ক, গায়িকা, গীতিকার এবং সুরকারের নাম উল্লেখ করতে হবে। কাহিনীর ক্ষেত্রে দেশি বা বিদেশি লেখক বা প্রকাশকের অনুমতি (কপিরাইট) নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্র জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের জন্য বিবেচিত হবে। বিদেশি চলচ্চিত্রের কপিরাইট নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্র এবং রিমেক চলচ্চিত্রের কাহিনী জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের জন্য বিবেচিত হবে না। সেন্সরবিহীন কোনও দৃশ্য সংযোজন এবং সেন্সরকৃত কোনও অংশ বিয়োজন করা হয়েছে বলে প্রমাণিত হলে চলচ্চিত্রটি পুরস্কারের জন্য বিবেচিত হবে না। সংশ্লিষ্ট চলচ্চিত্রের প্রধান প্রধান দৃশ্য ও সংলাপ সংবলিত বিষয়বস্তুর ওপর ৫ মিনিটের (কম-বেশি) ১টি সিডি, ডিভিডি, পেনড্রাইভ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের জন্য জমাকৃত চলচ্চিত্রটির সাথে জমা দিতে হবে এবং সংশ্লিষ্ট চলচ্চিত্রের প্রযোজক কর্তৃক যে সকল শিল্পী ও কলাকুশলীদের পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন দেওয়া হবে তাদের নাম চলচ্চিত্রের টাইটেলে উল্লেখ থাকতে হবে। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণে ইচ্ছুক প্রযোজকদেরকে নির্ধারিত ছকে আবেদন করতে হবে। আবেদনের ফরম ও ছক বিনামূল্যে বাংলাদেশ ফিল্ম সেন্সর বোর্ড কার্যালয় থেকে সংগ্রহ করা যাবে। আবেদনের ফরম সেন্সর বোর্ডের ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করেও ব্যবহার করা যাবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চলচ্চিত্র


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ