Inqilab Logo

শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ১৫ মাঘ ১৪২৮, ২৫ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে নেটিজেনদের শুভেচ্ছা

শাহেদ নুর | প্রকাশের সময় : ১ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:৫০ পিএম

আজ ১ সেপ্টেম্বর, বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। সৃষ্টিকর্তার উপর পূর্ণ বিশ্বাস ও আস্থা, বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ, গণতন্ত্র ও অর্থনৈতিক ও সামাজিক ন্যায়বিচার অর্থে সমাজতন্ত্র; এই চার রাজনৈতিক মূল ভিত্তি নিয়ে প্রতিষ্ঠিত এই দলটি আজ ৪৩বছর পূর্ণ করে ৪৪-এ পদার্পণ করেছে।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর পৃথক পৃথক বাণীতে দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মী, শুভানুধ্যায়ী এবং দেশবাসীকে প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

দলের পক্ষ থেকে রাজপথে ও অনলাইনে নেয়া হয়েছে নানা কর্মসূচি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও দলটির প্রতি শুভেচ্ছা জানাচ্ছে নেটিজেনরা। তুলে ধরছে তাদের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সাফল্যগাঁথা।

বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ফেইসবুকে দেয়া এক স্ট্যাটাসে সাংবাদিক ও গবেষক মেহেদী হাসান পলাশ লিখেন, এক ঐতিহাসিক ও অনিবার্য প্রয়োজনে বিএনপি'র জন্ম। বাংলাদেশে আধিপত্যবাদ বিরোধী শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ করে রাষ্ট্র পরিচালনার মাধ্যমে অর্জিত স্বাধীনতাকে সংহত করা এই দলের প্রধান সাফল্য। বিএনপি'র প্রতিষ্ঠাতা জেনারেল জিয়াউর রহমানের ১৯ দফায় শুধু ভূখন্ডগত নয়, অর্থনৈতিক, সামাজিক, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক, বুদ্ধিবৃত্তিক অর্থাৎ রাষ্ট্রীয় সকল সেক্টরে আধিপত্যবাদবিরোধী চেতনাকে ধারণ করা হয়েছে। ফলে বাংলাদেশের আধিপত্যবাদবিরোধী ও সার্বভৌম কর্তৃত্বের পক্ষের জনগণের মধ্যে খুব অল্প সময়ে দলটি বিপুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিল। নানা ঘাত-প্রতিঘাত, উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে পেরিয়ে আসা এই দলটির আজ ৪৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী। কিন্তু বিএনপি'র রাজনীতির যে মূল চেতনা আধিপত্যবাদ বিরোধিতা, তার কতটুকু চর্চা এবং লালন এই দলটির মধ্যে আজ বর্তমান, তা প্রশ্নসাপেক্ষ হয়ে দাঁড়িয়েছে। শোনা যায়, ক্ষমতা ফিরে পেতে মূল রাজনৈতিক দর্শন এবং জনগণের শক্তির উপর আস্থা হারিয়ে দলটি শীর্ষ নেতৃত্বের অনেকেই এখন ক্ষমতা ফিরে পেতে আঞ্চলিক আধিপত্যবাদী শক্তির সমর্থন প্রত্যাশী। মূলত আদর্শিক চর্চা থেকে সরে গিয়ে ক্ষমতাকেন্দ্রিক রাজনীতিতে মনোযোগ কেন্দ্রীভূত হওয়ায় এ ধরনের বিচ্যুতি ঘটেছে দলটিতে। এতে দলটির ন্যাচারাল ফ্রেন্ডরা অনেকেই সরে গিয়েছে পাশ থেকে, অনেকেই গুটিয়ে নিয়েছে সাহায্যের হাত। রাজনীতি বিজ্ঞানে বলা হয়ে থাকে, কোনো জাতীয়তাবাদী শক্তির বন্ধু রাষ্ট্রের সীমানার বাইরে থাকতে পারে না। যারা মনে করছেন, কোন আধিপত্যবাদী শক্তি বিএনপিকে ক্ষমতার শীর্ষে অধিষ্ঠিত করে দেবে, তারা হয় বোকার স্বর্গে বসবাস করছেন, নয়তো ভিন্ন এজেন্ডা বাস্তবায়নে কাজ করছেন। এই ধরনের আত্মঘাতী রাজনীতি বাংলাদেশ বিএনপি রাজনৈতিক প্রাসঙ্গিকতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে এবং নতুন জাতীয়তাবাদী শক্তি সৃষ্টির প্রেক্ষাপট তৈরি করবে। সন্দেহ নেই বর্তমানে দলটিকে নানা ধরনের নির্যাতন-নিপীড়ন নিবর্তন মোকাবেলা করে টিকে থাকতে হচ্ছে। এটাও সত্য যে আদর্শ ও চেতনা নিবর্তনের মধ্যেই শক্তি অর্জন করে। 'শাস্তি', বয়স, অসুস্থতা সত্বেও দলটির প্রধান বেগম খালেদা জিয়া আজও এদেশের আধিপত্যবাদ বিরোধী জনতার আশা-আকাঙ্ক্ষার সলতে জ্বালিয়ে রেখেছেন। ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর এই দিনে দলটির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত, চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা এবং দলের সকল নেতাকর্মীর প্রতি শুভকামনা।’

বিএনপির সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন লিখেন, ‘বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করার শপথ পুনর্ব্যক্ত করছি।’

মোহাম্মদ মহিউদ্দিন সিকদার লিখেন, ‘প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অঙ্গীকার, রুখতে হবে স্বৈরাচার। ১ সেপ্টম্বর বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি’র ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সফল ও সার্থক হোক। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি'র ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলার মানুষে ভোটে অধিকার ফিরিয়ে দেবে, ইনশাআল্লাহ।’

শুভেচ্ছা জানিয়ে কাজী ইনসুন লিখেন, ‘১৫ বছরে ৯৫ হাজার মামলা, ৭০ লক্ষ আসামী নিয়ে হিমালয়ের মত মাথা উচু করে দাঁড়িয়ে থাকা দলটির নাম বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)। সংগ্রাম, ঐতিহ্য ও গৌরবের ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সবাইকে সংগ্রামী শুভেচ্ছা ও বিপ্লবী অভিনন্দন। শুভ জন্মদিন প্রাণের সংগঠন। দেশ মাতা খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই।’

এইচএম জুনায়েদ বিন নাজিম লিখেন, ‘শুভ জন্মদিন বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ, সবচেয়ে জনপ্রিয়, গণমানুষের দল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)।’

মেহেরাজ উদ্দিন মিলাক লিখেন, ‘দু:শাসনের যন্ত্র নয়, নিষ্পেষণের মন্ত্র নয়, অবরুদ্ধ গনতন্ত্র নয়, স্বাধীন সার্বভৌম থাকবে দেশটা- এই লক্ষ্যেই বিএনপি’র প্রতিষ্ঠা.. ঐতিহ্য, সংগ্রাম, সাফল্য ও অগ্রগতির ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সফল ও স্বার্থক হউক।’

মাইনুল হাসান টুটুল লিখেন, ‘আজকের এই দিনে জিয়া তোমায় পড়ে মনে! প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অঙ্গিকার রুখতে হবে স্বৈরাচার।’

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সফলতা কামনা করে কাউয়ুম মজুমদার লিখেন, ‘শুভ জন্মদিন। বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক অধিকার রক্ষা ও সংগ্রামের গৌরবময় ৪৩ বছর। বাংলাদেশ জাতীয় বাদী দল (বিএনপি) জন্মদিন সফল হোক।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সোশ্যাল মিডিয়া

২২ অক্টোবর, ২০২১
১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ