Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৬ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

বিকল্প বাহিনী গড়ছে ইইউ

এবার তালেবানের সাথে সম্পর্কে ইইউ আগ্রহী

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০২ এএম

এবার তালেবানের সাথে সম্পর্ক করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। তবে জোটের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তালেবানকে অবশ্যই নারী অধিকার ও মানবাধিকারকে সম্মান জানাতে হবে এবং আফগানিস্তানকে সন্ত্রাসবাদের ঘাঁটি বানাতে দেওয়া যাবে না। শুক্রবার ইইউ’র পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক প্রধান জোসেপ বরেল এ তথ্য জানিয়েছেন। স্লোভেনিয়ায় ইইউ পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সাথে বৈঠককালে বরেল বলেছেন, ‘আফগান জনগণকে সমর্থণ জানাতে আমাদের দেশটির নতুন সরকারের সাথে সম্পর্ক রাখা প্রয়োজন।’ তিনি জানান, নির্দিষ্ট কিছু শর্ত পূরণে তালেবানের ইচ্ছার ওপর নির্ভর করবে সহযোগিতার মাত্রা। আফগানিস্তান যাতে পুনরাায় সন্ত্রাসীদের ঘাঁটি না হয় তা নিশ্চিত করতে হবে নতুন সরকারকে। এছাড়া তাদেরকে মানবাধিকার, আইনের শাসন ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতাকে অবশ্যই সম্মান জানাতে হবে। অপর এক খবরে বলা হয়, আফগানিস্তানের মতো বিপর্যয় মোকাবিলায় বিকল্প বাহিনী ‘র‌্যাপিড রিঅ্যাকশন ফোর্স’ গড়ার চিন্তা-ভাবনা করছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। এটা এমন একটা বাহিনী হবে যাদেরকে কাবুল সংকট মোকাবিলার পাশাপাশি যে কোনো সংকটকালীন মুহ‚র্তে পৃথিবীর যে কোনো প্রান্তে মোতায়েন করা যাবে। শুধু তাই নয়, এর ফলে ইইউর যুক্তরাষ্ট্র নির্ভরতাও কমবে। বিষয়টা নিয়ে জোর আলোচনা শুরু হয়েছে। এ বিষয়ে একটি প্রস্তাবনা নিয়ে বৃহস্পতিবারও ব্রাসেলসে বৈঠক করেছেন সদস্য দেশগুলোর প্রতিরক্ষামন্ত্রীরা। তবে পদক্ষেপটি শেষ পর্যন্ত সফল হবে কিনা তা নিয়ে আশঙ্কা রয়েছে। কারণ এর আগে বেশ কয়েকবার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছে সংগঠনটি। ইইউ এই ধরনের একটি বাহিনী গড়ুক তা চাইছে না যুক্তরাষ্ট্র। আল-জাজিরা ও রয়টার্স। এদিকে বুধবার মার্কিন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, কাবুলে যারা আটকে আছেন, তাদের সরিয়ে নিতে কাজ করে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। বিমানে করে যাদের সরিয়ে আনা সম্ভব হয়নি, তাদের স্থলপথে সরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারের দুদিন পর পেন্টাগনের কর্মকর্তারা জানান, আফগানিস্তান ছেড়ে আসা লোকজন যারা অস্থায়ীভাবে বিভিন্ন দেশে আশ্রয় পেয়েছেন, তাদের পুনর্বাসনের ওপর গুরুত্ব দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশ। মার্কিন সেক্রেটারি ভিক্টোরিয়া নুল্যান্ড বলেন, আফগানিস্তান তালেবানদের দখলে যাওয়ার পর এবং কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পরেও আফগান ত্যাগের জন্য ইচ্ছুক এমন নাগরিকদের সরিয়ে আনতে ক‚টনৈতিক তৎপরতা অব্যাহত রেখেছে বাইডেন প্রশাসন। তিনি আরও বলেন, ‘আমরা সব ধরনের সম্ভাবনা খতিয়ে দেখছি।’ আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারের প্রক্রিয়াকে ‘বিপর্যয় ও দুঃস্বপ্ন’ বলছেন ইইউর নেতারা। অভিযোগ, যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন এ উদ্ধার অভিযানে ইইউকে কোনো ভূমিকাই রাখতে দেওয়া হয়নি। নিজস্ব কোনো বাহিনী না থাকায় শুধু চেয়ে চেয়ে দেখা ছাড়া তেমন কিছুই করতে পারছে না তারা। ফলে চলমান পরিস্থিতি মোকাবিলায় ও ভবিষ্যতে এ ধরনের সংকটে জরুরি পদক্ষেপ নিতে নিজস্ব যৌথ সামরিক সক্ষমতা তৈরির প্রয়োজনীয় উপলব্ধি করছে ২৭ দেশের সংগঠনটি। বিষয়টি সামনে রেখে গত মে মাসের একটা প্রস্তাবনা পেশ করে এর নেতারা। প্রাথমিক প্রস্তাবে ‘র‌্যাপিড রিঅ্যাকশন ফোর্স’ নামের এ বাহিনীতে ৫ হাজার সদস্য রাখার কথা বলা হয়। প্রস্তাবটি নিয়ে বৃহস্পতিবার ফের আলোচনায় বসেন ইইউ প্রতিরক্ষামন্ত্রীরা। বৈঠক শুরুর আগে সংগঠনটির পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান জোসেফ বোরেল সাংবাদিকদের বলেন, ‘এটা স্পষ্ট যে, আফগানিস্তান বিপর্যয়ের পর ইউরোপের নিজস্ব একটা প্রতিরক্ষা বাহিনী গড়ার প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে।’ ইইউর প্রতিরক্ষা শিল্প বিষয়ক প্রধান থিয়েরি ব্রেটন বলেছেন, ‘ইউরোপের একটা নিজস্ব ও অভিন্ন প্রতিরক্ষা বাহিনী এখন আর কোনো ‘অপশন’ নয়। সীমান্তে কিংবা বিশ্বের যে কোনো স্থানে মোতায়েন করার মতো একটা কার্যকর সামরিক মিশন আমাদের অবশ্যই থাকতে হবে।’ তবে এমন বাহিনী গঠনের বিরোধিতা করছে ওয়াশিংটন। ইউরোপে কাজ করেছেন মার্কিন সেনাবাহিনীর সাবেক কমান্ডার বেন হজেস বলেছেন, ‘ন্যাটোর কাছাকাছি এমন কোনো সেনা কাঠামো গড়া ইউরোপের উচিত হবে না।’ আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের অর্জন ‘জিরো’ -পুতিন : রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের অর্জন ‘জিরো’। তার মতে, দেশটিতে যুক্তরাষ্ট্রের ২০ বছরের অভিযান ট্র্যাজেডিতে পরিণত হয়েছে এবং ওয়াশিংটন কিছুই অর্জন করতে পারেনি। তিনি আরও বলেন, আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের সব প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। ভ্লাদিভোস্তক শহরে শিক্ষার্থীদের সাথে আলাপকালে পুতিন বলেন, আমেরিকান সেনারা সেখানে (আফগানিস্তানে) ২০ বছর অবস্থান করেছে। ২০ বছরের বেশি সময় ধরে চেষ্টা করেও তারা কিছু অর্জন করতে পারেনি। তিনি বলেন, বাইরে থেকে কোনো কিছু আরোপ করা আসলেই সম্ভব নয়। এর আগে গত সপ্তাহে পুতিন এক বিবৃতিতে বলেন, আফগানিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করবে না মস্কো। আল-জাজিরা, রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইইউ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ