Inqilab Logo

শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮, ০৮ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

যশোরে সাংবাদিকতার কার্ড দেয়ার কথা বলে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ

প্রতারক দুই যুবক গ্রেপ্তার

যশোর ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৫:৩২ পিএম

যশোরের অভয়নগরে এক স্কুলছাত্রীকে সাংবাদিকতার কার্ড করে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করা হয়েছে। ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করা হয়েছে। এ ঘটনায় স্কুলছাত্রীর মা বাদি হয়ে প্রতারক দুই যুবকের বিরুদ্ধে অভয়নগর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মঙ্গলবার (৭ সেপ্টেম্বর) গ্রেপ্তারকৃত দুই যুবককে যশোর আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত দুই প্রতারক হলেন, উপজেলার চলিশিয়া ইউনিয়নের বাশার মোড়লের ছেলে মাহাবুবুর রহমান ওরফে মাহাবুব (৪০) ও নওয়াপাড়া পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের গুয়াখোলা গ্রামের নাসির বাঘার ছেলে অনিক বাঘা (২৬)।

মামলার বাদী স্কুলছাত্রীর মা অভিযোগ করেছেন, তার মেয়ে উপজেলার নওয়াপাড়া পাইলট বালিকা বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী ও বাংলাদেশ বেতারের একজন সংগীত শিল্পী। গেল ৩ থেকে ৪ মাস পূর্বে সাংবাদিকতার কার্ড করার জন্য মাহাবুবের সঙ্গে তার মেয়ের যোগাযোগ হয়। পরবর্তীতে তার মেয়ের নিকট হতে মাহাবুব দুই কপি ছবি ও জন্মনিবন্ধনের ফটোকপি সংগ্রহ করে। গত ২১ আগস্ট সকাল আনুমানিক সাড়ে ১১ টার সময় সাংবাদিকতার ফরম পুরণের জন্য মাহাবুব তার মেয়েকে উপজেলার চলিশিয়া গ্রামের একটি মৎস্য ঘেরের অফিসে আসতে বলে। অফিসে পৌঁছানোর পর তার মেয়েকে বস্ত্রহীন করে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে এবং মোবাইল ফোনে ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে মাহাবুব। ঐ ঘটনা ঘটার পরে তাকে হুমকি দেওয়া হয়, ঘটনাটি কাউকে জানালে ধারণ করা ধর্ষণের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেওয়া হবে। কয়েকদিন পর মাহাবুব ও অনিক বাঘা তার মেয়েকে স্থানীয় কাঁচা বাজারের পেছনে একটি স’মিলে দেখা করতে বলে। তার মেয়ে সেখানে পৌঁছালে মাহাবুব ও অনিক বাঘা মোবাইল ফোনে ধারণ করা ধর্ষণের ভিডিও ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে ডিলিট করার প্রস্তাব দেয়। প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় প্রতারক মাহাবুব জনৈক এমডি নাসির হোসেন নামের একটি ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে তার মেয়ের অশ্লীল ছবি ও ধর্ষণের ভিডিও ছেড়ে দেয়। পরবর্তীতে মেয়ের কাছ থেকে ঘটনা জানতে পেরে অভয়নগর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ভুক্তভোগী মেয়ের মা। পরে প্রতারক মাহাবুব ও তার সঙ্গী অনিক বাঘাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

এ ব্যাপারে অভয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম শামীম হাসান জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করা হয়েছে। ঘটনার সত্যতা প্রমাণিত হওয়ায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত দুই আসামীকে গ্রেপ্তার পূর্বক আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ধর্ষণ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ