Inqilab Logo

রোববার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

দ্বিতীয় দফায় সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ

প্রদীপের জন্য ডিভিশনের আবেদন মেজর (অব.) সিনহা হত্যা মামলা

কক্সবাজার ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০৩ এএম

দেশের আলোচিত মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলায় দ্বিতীয় দফায় সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়েছে। গতকাল বুধবার দ্বিতীয় দফায় ৪র্থ দিনে জেলা ও দায়রা জজ আদালতে সাক্ষ্য প্রদান করেন মামলার ৬নং সাক্ষী হাফেজ মাওলানা শহিদুল ইসলাম। তিনি টেকনাফের শামলাপুর বায়তুর নুর জামে মসজিদের মুয়াজ্জিন। হাফেজ মাওলানা শহিদুল ইসলাম গতকাল বুধবার সকাল সোয়া ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত আদালতে সাক্ষ্য দেন। এসময় তিনি বলেন, সেদিন তিনি ঘটনাস্থল থেকে মাত্র ২০ গজ দূরে মসজিদের ছাদে অবস্থন করছিলেন। তিনি এঘটনা বিস্তারিত দেখেছেন। এদিকে সিনহা হত্যা মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর সাংবাদিকদের জানান, দ্বিতীয় ধাপের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ২০ থেকে ২২ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত। অপরদিকে আইনজীবী অ্যাডভোকেট রানা দাশ গুপ্ত আসামি প্রদীপের ডিভিশন চেয়ে আদালতে আবেদন করলে বিচারক কারা বিধি অনুসরণ করে ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেন। এছাড়াও আসামি পক্ষ এ মামলায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ১০৩ পৃষ্ঠার প্রতিবেদন প্রকাশেরও দাবি জানান।
২০২০ সালের ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। এ ঘটনায় গত বছর ৫ আগস্ট সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়ার ফেরদৌস বাদী হয়ে টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও বাহারছড়া তদন্ত সাবেক ইনচার্জ পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ ৯ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। মামলায় প্রধান আসামি করা হয় লিয়াকত আলীকে। আদালত মামলার তদন্তভার দেয়া হয় র‌্যাবকে। ঘটনার ৬ দিন পর ওসি প্রদীপ ও পরিদর্শক লিয়াকতসহ ৭ পুলিশ সদস্য আত্মসমপর্ণ করেন। ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে টেকনাফ থানায় একটি এবং রামু থানায় আরেকটি মামলা দায়ের করেন। পরে র‌্যাব পুলিশের দায়ের মামলার ৩ সাক্ষী এবং শামলাপুর চেকপোস্টে দায়িত্বরত আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ানের (এপিবিএন) এর ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মেজর (অব.) সিনহা হত্যা মামলা
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ