Inqilab Logo

বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৫ মাঘ ১৪২৮, ১৫ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

৯/১১ বর্ষপূর্তিতে ক্ষমতায় আরো সংহত তালেবান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৪:৪৮ পিএম | আপডেট : ৭:৩১ পিএম, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১

ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার দুই দশক পর তালেবানরা আবার আফগানিস্তানের ক্ষমতায় ফিরে এসেছে। শনিবার যুক্তরাষ্ট্রে যখন নাইন ইলেভেনের ২০ তম বার্ষিকী পালিত হচ্ছে তখন তালেবানকে আরো শক্তিশালী ও আফগানিস্তানের ক্ষমতায় আরো সংহত হতে দেখা গেছে।

২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর টুইন টাওয়ারে হামলার পর মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো জোট আফগানিস্তানে হামলা করে তালেবানকে ক্ষমতাচ্যুত করে। ২০ বছরের পরে গত ১৫ আগস্ট যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত সরকারকে হটিয়ে বিনা রক্তপাতে ক্ষমতা পুনরুদ্ধার করে তালেবান। সম্প্রতি তাদের শাসনের বিরুদ্ধে জনসম্মুখে বিক্ষোভের কয়েকদিন পরই ১১ সেপ্টেম্বর শনিবার কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ে শত শত নারী তালেবানদের প্রতি সমর্থন জানাতে একটি সমাবেশ করেন।

তালেবানরা তাদের নতুন সরকারে শপথ গ্রহণের জন্য ১১ সেপ্টেম্বরের ২০ তম বার্ষিকী ব্যবহার করতে পারে বলে গত সপ্তাহে একটি অসমর্থিত খবর ছড়িয়ে পড়েছিল। কিন্তু এদিন তার কোন সত্যতা মেলেনি। এ বিষয়ে ব্যাঙ্ক কর্মী মুহাম্মদ আলজোয়াদ বলেন, ‘এটি আমেরিকার জন্য একটি দিন, আফগানিস্তানের জন্য নয়। আফগানিস্তানের সাথে এর কোন সম্পর্ক ছিল না, কিন্তু এটি আমাদের ভুগিয়েছিল।’

তালেবানরা আগের তুলনায় এবার নমনীয় শাসনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। তবে তাদেরকে কঠোরও হতে দেখা গেছে। গত সপ্তাহে শিক্ষা ও কাজের অধিকারের আহ্বান জানিয়ে করা নারীদের বিক্ষোভ ছত্রভঙ্গ করতে তারা শূণ্যে গুলি চালায়। তবে শনিবার, শত শত মহিলা মাথা থেকে পায়ের আঙ্গুল অবধি কালো আবায়া এবং নেকাব পরিধান করে তালেবানদের সমর্থনে সমাবেশের অনুমতি পায়। সেখানে একজন মহিলা বক্তা বলেন, ‘যারা হিজাব পরেন না তারা আমাদের সবার ক্ষতি করছেন।’ আরেকজন বলেন, ‘আমরা আমাদের সমস্ত শক্তি দিয়ে আমাদের সরকারকে সমর্থন করছি।’ বক্তৃতা শেষে, মহিলারা ব্যানার ধারণ করে এবং বাইরে রাস্তায় অল্প সময় মিছিল করেন।

আগের দিন আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের ওপর তালেবানের পতাকা ওড়ানো হয়। তালেবান যোদ্ধা এবং গ্রুপের সাংস্কৃতিক পরিষদের সদস্য হেমাদ শেরজাদ বলেন, শুক্রবার সকালে প্রাসাদে পতাকা উত্তোলন করা হয়। আফগানিস্তানের জন্য ওয়াশিংটনের বিশেষ দূত এবং তালেবানদের সঙ্গে চুক্তির স্থপতি খলিলজাদ বলেছেন, গত তিন দিনে ২৫০ জনেরও বেশি বিদেশী নাগরিক আফগানিস্তান ছেড়েছেন। এক টুইটে তিনি কাতারের প্রশংসা করেছেন, যাদের জাতীয় বিমান সংস্থা ফ্লাইট পরিচালনা করেছে এবং তিনি ‘এই গুরুত্বপূর্ণ প্রচেষ্টায়, আফগানিস্তান থেকে বিদেশী নাগরিকদের সাম্প্রতিক প্রস্থান করার জন্য’ তালেবানের সহযোগিতার প্রশংসা করেন।

খলিলজাদ টুইট করেছেন, ‘আমরা আমাদের ও অন্যান্য বিদেশী নাগরিক এবং আফগানদের নিরাপদে যাতায়াত নিশ্চিত করতে কাতার সরকার, তালেবান এবং অন্যান্যদের সাথে জড়িত থাকব।’ যাইহোক, মার্কিন নাগরিক এবং গ্রীন কার্ডধারী সহ শত শত আফগান, উত্তরাঞ্চলীয় আফগানিস্তানের মাজার-ই-শরীফে আটকা পড়ে আছে। তারা ভ্রমণ সংক্রান্ত কাগজ-পত্র দেখাতে না পারায় তালেবান শাসকরা তাদেরকে বিদেশ যাবার অনুমতি দেয়নি। সূত্র: ডন।



 

Show all comments
  • Dadhack ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৫:৩১ পিএম says : 0
    তালেবানরা দেখছি কাফেরদেরকে অনুসরণ করছে ছবি টাঙিয়ে দিয়েছে এখন ফেরেশতা আর আসবেনা ছবি থাকলে,,,, আফগানিস্তানের পর থেকে আল্লাহর রহমত উঠে যাবে............
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আফগানিস্তান


আরও
আরও পড়ুন