Inqilab Logo

শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২ আশ্বিন ১৪২৮, ০৯ সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেয়ার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাচ্ছে নেটিজেনরা

শাহেদ নুর | প্রকাশের সময় : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১০:৪০ পিএম

আগামী ২৭ সেপ্টেম্বরের পর দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাদের একাডেমিক কাউন্সিলের অনুমোদন নিয়ে পাঠদান কার্যক্রম শুরু ও আবাসিক হল খুলে দিতে পারবে। এর আগে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশন কাজ শেষ করতে হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের আবাসিক হল ও ক্লাসে পাঠদান শুরু করতে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মণির সাথে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) ও উপাচার্যদের সঙ্গে বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা এম এ খায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেয়ার এই সিদ্ধান্তকে সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত বলে মনে করছেন শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও বিষয়টি স্বাগত জানাচ্ছে নেটিজেনরা।

সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে সাইদুর রহমান লিখেছেন, ‘সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য সরকারকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। অনেক সময় ক্ষেপণ হয়েছে আর নয়। এবার পুরোদমে লেখাপড়া শুরু হয়ে যাক।’

কামরুজ্জামান লিখেছেন, ‘অনেক হয়েছে, এবার এসব শর্ত বাদ দেন। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুলে দেন। এমনিতেই দেশে বেকারত্বের সংখ্যা অনেক। তার মধ্যে যদি আবার এভাবে বছরের পর বছর চলে যায়, তাহলে এই দেশের ভবিষ্যত অন্ধকার হয়ে যাবে এত কোন সন্দেহ নেই।’

আমিনুল ইসলাম লিখেছেন, ‘যাক অবশেষে তাহাদের সুমতি হইলো! তাহারা ভার্সিটি খোলার কথা বললেন। শুনে খুব ভালো লাগলো।’

শিক্ষার্থীদের প্রতি শুভ কামনা জানিয়ে তরিকুল ইসলাম তুষার লিখেছেন, ‘সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী জন্য অনেক অনেক শুভকামনা রইলো।’

টিকা দেয়া ব্যাপারে জোর দিয়ে আরিফুল হক লিখেছেন, ‘দেরি যখন হয়েছে, আর কয়েকদিন লাগলেও সবাই টিকা দিয়েই বিশ্ববিদ্যালয় আসা শুরু করুন। টিকা ছাড়া কোনভাবে আসা বা বিশ্ববিদ্যালয় খোলা ঠিক হবে না।’

স্বাস্থ্যবিধির ব্যাপারে সুমাইয়া আক্তার লিখেছেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পরও সবাইকে মাস্ক, সেনিটাইজারসহ সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। আশা করি সবাই চলবেও। কারণ তারা সবাই শিক্ষিত ও সচেতন।’

জুবায়ের ইসলাম মনে করেন, ‘টিকার সনদ ব্যতীতে কোনো শিক্ষার্থীকে হলে উঠানো উচিৎ হবে না।’

বৈশ্বিক মহামারী করেনার কারণে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়। দেড় বছর পর রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) থেকে খুলে দেওয়া হয় প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক স্তরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো। সোমবার খুলেছে মেডিকেল কলেজ, ডেন্টাল ও নার্সিং সংক্রান্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিশ্ববিদ্যালয় খোলার সিদ্ধান্ত
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ