Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৩ কার্তিক ১৪২৮, ১১ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

পররাষ্ট্রসচিবকে বদলি, যুক্তরাজ্যের মন্ত্রিসভায় বড় রদবদল

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:৫৭ এএম

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বুধবার তার মন্ত্রিপরিষদে একটি দীর্ঘ প্রত্যাশিত পরিবর্তন শুরু করেছেন। তার পররাষ্ট্র সচিবসহ আরও বেশ কয়েকজন মন্ত্রীর দায়িত্বে রদবদল করেছেন। তিনি তার সরকারকে পুনরুজ্জীবিত করার জন্য পরিকল্পিতভাবে এই পদক্ষেপ নিয়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে, যার জনপ্রিয়তা এখন হ্রাস পাচ্ছে।

সবচেয়ে বড় পরিবর্তন হয়েছে পররাষ্ট্রসচিব ডমিনিক রাবকে অপসারণের মাধ্যমে। আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে ব্যাপক সমালোচিত হওয়ার পরে তার অবস্থান দুর্বল বলে বিবেচিত হয়েছিল। রাবকে বিচার সচিব নিযুক্ত করা হয়েছে। তাকে উপ -প্রধানমন্ত্রীর খেতাবও দেয়া হয়েছে। তবে এমন একটি পদক্ষেপকে ক্ষত উপশম করা বলে মনে করছেন সমালোচকরা, যাদের মধ্যে অনেকেই একে ডিমোশন হিসেবে দেখছেন। রাবের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন লিজ ট্রাস। তিনি ছিলেন বাণিজ্য সচিব। তাকে অনেকেই দেখেছেন কনজারভেটিভ পার্টির উদীয়মান তারকা হিসেবে।

আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারের সময় রাবের জনপ্রিয়তা আরও নেমে গিয়েছিল যখন তালেবানরা কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছিল। আরও তিনজন সিনিয়র মন্ত্রী নিশ্চিত করেছেন যে তাদের অপসারণ করা হয়েছে। তারা হচ্ছেন শিক্ষা সচিব গ্যাভিন উইলিয়ামসন, বিচার সচিব রবার্ট বাকল্যান্ড এবং আবাসন, সম্প্রদায় এবং স্থানীয় সরকার সচিব রবার্ট জেনরিক।
জনসন গ্যাভিন উইলিয়ামসনকে বরখাস্ত করে এবং তার জায়গায় ভ্যাকসিন মন্ত্রী নধিম জাহাভিকে নিয়োগ দিয়েছেন। রবার্ট জেনরিকের জায়গায় নিয়োগ পেয়েছেন মাইকেল গোভ। নতুন দায়িত্বের পাশাপাশি তিনি সরকারের ‌‌'লেভেল আপ' এজেন্ডার বর্তমান দায়িত্ব পালন করবেন। বর্তমানে তার দায়িত্ব দেশজুড়ে সম্পদ ও সুযোগ ছড়িয়ে দেয়া এবং স্কটিশ স্বাধীনতার গণভোটের দাবী সামলানো। এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং সর্বাধিক বিক্রিত উপন্যাসের লেখক নাদিন ডরিস সংস্কৃতি সচিব হিসাবে অলিভার ডাউডেনের স্থলাভিষিক্ত হন। তবে চ্যান্সেলর ঋষি সুনাক এবং স্বরাষ্ট্রসচিব প্রীতি প্যাটেল তাদের চাকরি বহাল রেখেছেন।

অন্যান্য পদক্ষেপের মধ্যে অলিভার ডাউডেন কে মন্ত্রিপরিষদ অফিসে কোনও মন্ত্রণালয় ছাড়াই মন্ত্রী হিসাবে রাখা হয়েছে। ডাউডেন কনজারভেটিভ পার্টির ভাইস-প্রেসিডেন্ট আমান্ডা মিলিংয়ের স্থলাভিষিক্ত হবেন। দলীয় শৃঙ্খলার দায়িত্বে থাকা মার্ক স্পেন্সার প্রধান হুইপ হিসেবে কাজ করবেন।

ডমিনিক রাব সরকারের বৈশ্বিক পররাষ্ট্র নীতি গঠনে সহায়তা করেছিলেন এবং রাশিয়া ও চীনের প্রতি যুক্তরাজ্যের অবস্থানকে আরও কঠোর করেছিলেন। কিন্তু তিনি পররাষ্ট্র দফতরের সঙ্গে বাজেট কমানো, মনোবল কমিয়ে আনা এবং আন্তর্জাতিক উন্নয়ন বিভাগের সঙ্গে কঠিন একীভূতকরণ নিয়ে সমালোচিত হন। এই রদবদল আগামী মাসে একটি পার্টি কনফারেন্সের আগে বরিস জনসনকে তার সরকারের শীর্ষস্থানীয়দের নতুন আকার দেয়ার সুযোগ দেয়। সেখানে তিনি কোভিড-পরবর্তী নীতির একটি স্পষ্ট এজেন্ডা দেয়ার চেষ্টা করবেন। সূত্র: নিউইয়র্ক টাইমস, বিবিসি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুক্তরাজ্য


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ