Inqilab Logo

বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৪ কার্তিক ১৪২৮, ১২ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

বিদ্যালয়ে ৪ শিক্ষকের পদ থাকলেও উপস্থিত একজন

চিলমারী (কুড়িগ্রাম) সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৪:২৬ পিএম

করোনার বন্ধ হয়ে যাওয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হলেও শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর উপস্থিতি নিয়ে দুশ্চিতায় এলাকাবাসী। কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলায় রানীগঞ্জ ইউনিয়ন এর চর উদনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এমন অভিযোগ উঠেছে। প্রায় দেড় বছর পর বিদ্যালয় খুললেও চর উদনা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নেই শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর উপস্থিতি। নেই পরিস্কার পরিছন্ন বেহাল দশা বিদ্যালয়টির।
জানা গেছে, করোনার থাবায় বন্ধ হয়ে যাওয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার ঘোষনা আসে ১২ সেপ্টেম্বর থেকে। সেই মতাবেক কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোয় শিক্ষার পরিবেশের বিভিন্ন পরিবর্তন তৈরি করা হলেও বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান অজ্ঞাত কারনে নেয়নি কোন উদ্যোগ। বিদ্যালয় খোলার ৫দিন পর বৃহস্পতিবার উপজেলার চর উদনা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সরেজমিন বেলা ১১ টা ১৫ মিনিটে গিয়ে শিক্ষক সাজেদুল ইসলাম ছাড়া দেখা মেলেনি কোন শিক্ষক কিংবা শিক্ষার্থীর। বিদ্যালয়ের অবস্থাও বেশ নাজুক। চারপাশ ময়লা আবর্জনা এমনকি শহীদ মিনারটি ছিল ছাগলের ময়লা দিয়ে ভর্তি। বিদ্যালয়ে শিক্ষকের ৪টি পদ থাকলেও সহকারী শিক্ষক সাজেদুল ইসলাম উপস্থিত থাকলেও আর কোন শিক্ষক বিদ্যালয়ে আসেনটি বলে জানান এলাকাবাসী। শিক্ষার্থীর উপস্থিতি কম তা স্বীকার করে সহকারী শিক্ষক সাজেদুল ইসলাম বলেন, সবেমাত্র স্কুল খুললেও এখনো অনেকে জানতে পারিনি এছাড়াও চারদিকে পানি থাকায় আপাতত শিক্ষার্থীর উপস্থিতি কিছুটা কমে গেছে। প্রধান শিক্ষক বাবলু মিয়া বলেন আমি ছুটিতে আছি তবে সহকারী শিক্ষক সবিতা রানী, মাহরুজা মুন কেন স্কুলে আসেনি তা আমারও জানা নেই তিনি আরো বলেন আজকের বিষয় টি অত্যান্ত দুঃখ জনক । প্রধান শিক্ষক ছুটি নিয়েছেন স্বীকার করে উপজেলা প্রাথমিক সহকারী শিক্ষা অফিসার শাখাওয়াৎ হোসেন বলেন, সহকারী দুই শিক্ষিকা সবিতা রানী, মাহরুজা মুন কেন বিদ্যালয়ে আসেননি তা ক্ষতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি আরো বলেন, বিদ্যালয় অপরিস্কার এবং শহীদ মিনারে ময়লার বিষয় তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আবু সালেক সরকার বলেন,ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা বলে আমরা ব্যবস্থা নেবো।

 

 



 

Show all comments
  • মোহাম্মদ দলিলুর রহমান ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৫:০৬ পিএম says : 0
    এরা করনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু বেতন চলতেছে ,এরা যখন মারা যায় যায় অবস্থা,এদের মাথা কেটে অপারেশন করে অন্য দুইজন কে লাগানো হয়েছে,এখন ও অপারেশনের জায়গা শুকায় নাই,তবে দু তিন দিন পরে আসবে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ