Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ২২ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

লোহাগড়ায় হতদরিদ্র মানুষেরা পাচ্ছে না দশ টাকা দরের চাল

প্রকাশের সময় : ৮ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

লোহাগড়া উপজেলা সংবাদদাতা : নড়াইলের লোহাগড়ায় হতদরিদ্রদের নামের তালিকা তৈরি না হওয়ায় দশ টাকা কেজি দরের সেপ্টেম্বর মাসের চাল ফেরত গেছে। ফলে চাল পাওয়া থেকে বঞ্চিত হয়েছে উপজেলার প্রায় ১৫ হাজার ৮৪১টি পরিবার।
জানা গেছে ,নির্দিষ্ট সময়ে উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের মধ্যে ইতনা, কোটাকোল ও শালনগর ইউনিয়নের নামের তালিকা না আসায় বাকি ৯টি ইউনিয়নের সুবিধা ভোগীরা দশ টাকা কেজি মূল্যের বরাদ্দ কৃত চাল পাওয়া থেকে বঞ্চিত হয়েছে। এ খবর জানার পর উপজেলার হতদরিদ্র জনসাধারণ দারুণভাবে হতাশাগ্রস্ত এবং ক্ষুব্ধ। সরকারি প্রতিনিধি ও নাম প্রনয়ণ কমিটির সভাপতি এবং ইউনিয়ন পরিষদের সচিবদের গড়িমসির কারণে এ ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ইউনিয়ন পর্যায়ে খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির আওতায় হত দরিদ্রদের মধ্যে দশ টাকা কেজি দরের প্রায় ৪৭৫.২৩ মেট্রিকটন বরাদ্দ কৃত চাল সেপ্টেম্বর মাসে উপজেলার ১২ ইউনিয়নে ডিলার নিয়োগের মাধ্যমে বিক্রি করার কথা। কিন্তু লক্ষীপাশা, লোহাগড়া, জয়পুর, নোয়াগ্রাম, নলদী, দিঘলিয়া, মল্লিকপুর, লাহুড়িয়া ও কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদের নামের তালিকা উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ে জমা হলেও ইতনা, কোটাকোল ও শালনগর ইউনিয়নের নামের তালিকা জমা হয়নি। এ কারণে সেপ্টেম্বর মাসে উপজেলার বরাদ্দ কৃত চাল পাচ্ছে না হতদরিদ্র মানুষ।
এ ব্যাপারে ইতনা ইউনিয়নে দরিদ্রদের নামের তালিকা প্রণয়ন কমিটির সভাপতি ও উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা রনজিৎ কুমার বলেন, তালিকা আমি সই করে দিয়েছি। সচিব দাখিল করছে মনে হয়।
ইতনা ইউনিয়নের সচিব মোস্তাফিজুর রহমান মিলন বলেন, আমরা গত রবিবার (২ সেপ্টেম্বর) ফুড অফিসে নামের তালিকা জমা দিয়েছি। দেরিতে জমা দিয়েছেন কেন? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ঈদের বন্ধ এবং ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে মিটিং করার জন্য দেরি হয়েছে। শালনগর ইউনিয়নের সচিব মাছুদুর রহমান বলেন, ওয়ার্ড পর্যায়ে নামের তালিকা পেতে বিলম্ব হওয়ায় দেরি হয়েছে। যথা সময়ে নামের তালিকা জমা দেওয়া হয়নি কেন জানতে চাইলে কোটাকোল ইউনিয়নের সচিব মুশফিকুর রহমান বলেন, নামের তালিকা জমা দেব দেব এমন সময় এডিসি স্যার বলেন ভিকারিদের নামও ইনক্লুড করতে হবে তাই সময় মত নামের তালিকা দিতে পারিনি।
এ বিষয়ে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা শেখ মঈন-উল-ইসলাম বলেন, সময় মত নামের তালিকা তৈরি না হওয়ার কারণে সেপ্টেম্বর মাসের দশ টাকা দরের চাউল দেওয়া সম্ভব হয়নি। হতদরিদ্রদের নামের তালিকা যাচাই বাছাই কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সেলিম রেজা এ বিষয়ে জানান, কয়েকটি ইউনিয়নের নামের তালিকা বিলম্বে পাওয়ার কারণে সেপ্টেম্বর মাসের চাল দেওয়ার আর সুযোগ নেই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: লোহাগড়ায় হতদরিদ্র মানুষেরা পাচ্ছে না দশ টাকা দরের চাল
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ