Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮, ২০ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

মেয়ের চুল কাটায় স্কুল ও শিক্ষকের বিরুদ্ধে বাবার ১ মিলিয়ন ডলারের মামলা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৭:৪২ পিএম

অনুমতি ছাড়াই ৭ বছরের মেয়ের চুল কেটে দেয়ায় স্কুল ও দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ১ মিলিয়ন ডলারের মামলা করে দিয়েছেন তার বাবা। ঘটনা যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগানের। জিমি হফমেয়ের নামের ওই অভিযোগকারী জানিয়েছেন, অনুমতি ছাড়াই তার মেয়ের চুল কেটে দিয়েছেন শিক্ষকরা। এটি তার মেয়ের সাংবিধানিক অধিকার লঙ্ঘিত হয়েছে বলে মনে করেন তিনি। এরইমধ্যে তিনি তার মেয়েকে ওই স্কুল থেকে বের করে এনেছেন।

বিবিসির খবরে জানানো হয়, গত জুলাই মাসে এ নিয়ে একটি তদন্ত শেষ হয়েছে। মিশ্র বর্ণের ওই শিশুটির সঙ্গে কোনো বর্ণবাদী আচরণের প্রমাণ পাওয়া যায়নি এতে। অভিযুক্ত নারী শিক্ষককে তার স্কুল গানিয়ার্ড এলেমেন্টারি স্কুলের পক্ষ থেকে তিরস্কার করা হলেও, তিনি তার চাকরি চালিয়ে যাওয়ার অনুমতি পান।

জিমি বলেন, তার মেয়ে জুর্নি একদিন স্কুল থেকে ফিরলে তিনি দেখতে পান মাথার এক পাশের চুল কেটে দেয়া হয়েছে। এটি করেছিল তার এক সহপাঠি। কিন্তু এর দুইদিনের মাথায় জুর্নির মাথার অপর পাশের চুলও কাটা দেখতে পান জিমি। যদিও জুর্নিকে এরইমধ্যে সুন্দর আরেকটি চুলের কাট দেয়া হয়েছিল। প্রথমে জিমি ভেবেছিলেন, নিশ্চয় অন্য কোনো সহপাঠি এ কাজ করেছে। কিন্তু পরে জুর্নির থেকে তিনি জানতে পারেন, এটি করেছে তার ক্লাসের ওই শিক্ষিকা। এরপরই মিশিগানের ফেডারেল আদালতে ওই স্কুল ও দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা করে দেন জিমি। এতে তিনি তার সন্তানের সাংবিধানিক অধিকার লঙ্ঘন ছাড়াও, বর্ণবাদ, হেনস্থা, জাতিগত ভয় প্রদর্শন ও অনুভূতিতে ইচ্ছাকৃত আঘাতের অভিযোগ এনেছেন। সূত্র : বিবিসি



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুক্তরাষ্ট্র


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ