Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৩ কার্তিক ১৪২৮, ১১ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

কুড়িগ্রামে দরজায় দরজায় চিরকুটসহ টাকা!

কুড়িগ্রাম জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬:০৬ পিএম

কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে বেশ কয়েকটি বাড়ীতে চিরকুট লিখে টাকাসহ স্টাপলার লাগিয়ে দরজায় দরজায় রেখে যাওয়ায় আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। রাতের আঁধারে রেখে যাওয়া চিরকুট ও টাকা সকালে দরজা খুলে পেয়ে হতবাক বাড়ীর লোকজন। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার পৌর এলাকার সুখ্যাতি ভাটিয়াটারী গ্রামে। এটি রসিকতা না অন্য কিছু এনিয়ে চলছে নানান আলোচনা ও সমালোচনা।

স্থানীয় ইউপি সদস্য রুহুল আমিন জানান, কথাটি আমার কানেও এসেছে। কে বা কারা এসব কাজ করেছে তা বোধগম্য নয়।

পৌরসভা এলাকার সুখ্যাতি ভাটিয়াটারী গ্রামের আমিনুর রহমানের ছেলে হাসানুর রহমান জানান, রাত সাড়ে ৮টার দিকে রাতের খাওয়া শেষে ঘুমানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। আধাঘন্টা পর হঠাৎ বাড়ীতে মানুষের পায়ের শব্দ পেয়ে উঠে পরি। দরজা খোলার শব্দে একজনকে ছুটে বের হয়ে যেতে দেখি। কিছুক্ষণ পিছু নিয়েও তাকে হারিয়ে ফেলি। পরে ফিরে এসে দেখি দরজার মধ্যে একটি চিরকুট পরে আছে। তার সাথে ১০০টাকার একটি নোট স্টাপলার দিয়ে আটকানো। চিরকুটে লেখা ‘‘এই টাকাটা ক্ষতি করেছি মাফ করে দিবেন।’’ পরে খোঁজ নিয়ে দেখি আরও ৪জনের বাড়ীতে এমনভাবে টাকা ও চিরকুট লিখে গেছে। তারা হলেন একই এলাকার আবু বকরের ছেলে আব্দুল বারেক’র ঘরের দরজায় ১০টাকা, ঈসমাইলের ছেলে আব্দুস ছাত্তারের ঘরের দরজায় ৫০ টাকা, মৃত: শমসের আলীর ছেলে সাইদুরের ঘরের দরজায় ৩০ টাকা এবং ছফর আলীর ছেলে মজনু মিয়ার ঘরের দরজায় ১০০টাকা।

ঘটনাটি আশপাশে ছড়িয়ে পরলে মূহুর্তের মধ্যে উৎসুক জনতা ভীড় জমায় সেখানে। এটি কার কান্ড তাই নিয়ে চলে জল্পনা-কল্পনা। তবে পাঁচ জনের কেউই মনে করতে পারেননি এই ধরণের টাকার ক্ষতি তারা কারো কাছে করেছেন কিনা। ফলে চিন্তায় পরে গেছে ওই বাড়ির লোকজন। এটি নিছক রসিকতা না অন্য কিছু এই নিয়ে বিভ্রান্ত সবাই।

এ ব্যাপারে নাগেশ্বরী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. নবিউল হাসান জানান, এমন ঘটনা আমার জানা নেই। বিষয়টি খোঁজখবর নিচ্ছি।



 

Show all comments
  • মুহাম্মাদ আরিফুল ইসলাম ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৯:৩১ পিএম says : 0
    আমার ধারণা... এটি মুলত সে ব্যক্তি, যাকে আল্লাহ পাক হিদায়াত দিয়েছেন..আর সে, যে সকল বান্দার হক নষ্ট করেছিল তা পুষিয়ে দেওয়ার ক্ষুদ্র চেষ্টা করছে মাত্র..লোক লজ্জায় প্রকাশ করতে পারছে না...
    Total Reply(0) Reply
  • Ripon Vai ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৯:৩১ পিএম says : 0
    কাহিনি কি?
    Total Reply(0) Reply
  • Islam Islam ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৯:৩২ পিএম says : 0
    অনেক মহৎ কর্ম
    Total Reply(0) Reply
  • Md Rubel Hosen ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১১:৫৩ পিএম says : 0
    পৌরসভা এলাকায় ইউপি সদস্য ????????
    Total Reply(0) Reply
  • md masum befari ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১১:৪০ এএম says : 0
    আসলে আল্লাহ তায়া’লা কখন কাকে হেদায়েতের দিকে ফিরিয়ে নেয় তা কেও বলতে পারে না) আল্লাহ আমাদের সবাইকে হেদায়েতের দওলাত দান করুন আমিন)
    Total Reply(0) Reply
  • মোহাম্মদ আলী ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬:৫৩ এএম says : 0
    তাদের গাছের ডাব,কাঠাল অথবা সবজি আাম লিছু চুরি করে খাইছিল যা হয়তো তারা জানে না।
    Total Reply(0) Reply
  • Hasan Mohammad ishaque ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ২:৪৩ পিএম says : 0
    বান্দার নষ্ট কৃত হক্ব বুঝিয়ে দিতে চাইলে তা উল্লেখ করে চিরকুটে ক্ষমা চাইতে পারে। এভাবে অস্পষ্ট চিরকুট জনমনে আতংক সৃষ্টি হওয়া সাভাবিক।
    Total Reply(0) Reply
  • masud ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৭:২২ পিএম says : 0
    হয়তো সে এমন ব্যক্তি যে পুর্বে উল্লেখিত বাড়ির/মালিকের কোনো ক্ষতি/লছ করেছিল।। পরে এসব বিষয়ে কোরআন-হাদিসে বর্ণিত শাস্তি, আজাব, গজব সম্পর্কে জানার পর সে পরিবর্তন হয়ে এই সিস্টেমে ক্ষমা চাচ্ছে।। এ বিষয়ে আল্লাহ্ ভালো জানেন।।
    Total Reply(0) Reply
  • Shamim Ahamed ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১০:৪০ এএম says : 0
    ওওও দারুণ
    Total Reply(0) Reply
  • bella ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১১:২৩ এএম says : 0
    Better mind thanks
    Total Reply(0) Reply
  • বদিউজ্জামান ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬:৫৮ এএম says : 0
    এটা একধরনের শিক্ষা, ধনীরা যাকাত প্রদানের নামে ডজন ডজন মানুষকে মেরে ফেলে,সেখানে এটাকে প্রতিকী দান-সদকার উপায় নির্ভর করে। দেশের সর্বোত্র রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টরা যেভাবে চাঁদাবাজি, লুটপাট করছে, তাদের জন্য একটা সহজ পন্থা বাতলে দিয়েছে এই সাংকেতিক উপহার প্রদান পদ্ধতি।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কুড়িগ্রাম


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ