Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৩ কার্তিক ১৪২৮, ১১ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

মাদারীপুরে শিশু হত্যা: দায় স্বীকার করে চাচির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

মাদারীপুর থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬:০৯ পিএম

মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার কাঠালবাড়ি ইউনিয়নের বাংলাবাজার এলাকার ইসমাইল বেপারীর আড়াই বছর বয়সী শিশু কুতুব উদ্দিনকে হত্যার দায় স্বীকার করে আপন চাচি মাদারীপুর আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। শনিবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শিবচর থানার ওসি (তদন্ত) আমীর হোসেন সেরনিয়াবাদ।

তদন্তকারী কর্মকর্তা আমীর হোসেন সেরনিয়াবাদ জানান, মাদারীপুরের শিবচরে অপহরনের ৩ দিন পর পার্শবর্তী শরীয়তপুরের জাজিরায় চাচার বাড়ির ভবনের নির্মাণাধীন টয়লেটের মেঝের নীচ থেকে শুক্রবার সকালে বালু চাপা শিশু অবস্থায় শিশু কুতুব উদ্দিনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় হত্যা মামলা হলে তার আপন বড় চাচী নার্গিস আক্তার ও তার মেয়ে হাফসা আক্তারকে গ্রেফতার করা হয়। পরে বিকেল ৫টার দিকে মাদারীপুর চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে চাচি হত্যার কথা স্বীকার করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে চায়। পরে ওই আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাইদুর রহমান চাচির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করেন।

আমীর হোসেন সেরনিয়াবাদ আরো বলেন, ‘স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে চাচি নার্গিস আক্তার শিশু কুতুব উদ্দিনকে হত্যার দায় শিকার করেন। তিনি কিভাবে তার মেয়ে হাসফার মাধ্যমে শিশুকে তার বাড়ী থেকে কৌশলে এনে হত্যা করে নিজ বাড়ীর ভবনের নির্মাণাধীন টয়লেটের মেঝের নীচ বালু চাপা দেয় তারও বর্ণনা দিয়েছেন। পরে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। তবে নার্গিস আক্তারের মেয়ে হাফসা আক্তার ১৩ বছর বয়সী হওয়ায় তার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নেয়া হয়নি। তাকে আদালতের কিশোরী জেলে রাখা হয়েছে। তাকে রবিবার আদালতে উঠানো হবে।’

মাদারীপুর আদালতের পুলিশ পরিদর্শক রমেশ চন্দ্র দাস বলেন, ‘শিশু হত্যার দায়ে চাচি ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন আর মেয়েকে আদালতের জেলে রাখা হয়েছে। রবিবার সকালে মেয়েকে আদালতে হাজির করলে তার বিষয় সিদ্ধান্ত হবে।’

উল্লেখ্য, মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার কাঠালবাড়ি ইউনিয়নের বাংলাবাজার এলাকার ইসমাইল বেপারীর আড়াই বছর বয়সী শিশু কুতুব উদ্দিনকে তার বড় ভাবি নার্গিস আক্তার ও তার মেয়ে কৌশলে ১৪ সেপ্টেম্বর বাড়ী থেকে নিয়ে হত্যা করে তাদের বাড়ীর গর্তে চাপা দেয়। এ ঘটনায় শিশুর পিতা শিবচর থানায় ১৫ সেপ্টেম্বর অপহরণ মামলা করেন, পরে নার্গিস আক্তার ও তার মেয়েকে আটক করে চাপ দিলে শুক্রবার সকালে তাদের বাড়ী থেকে শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মাদারীপুর


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ