Inqilab Logo

সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০২ কার্তিক ১৪২৮, ১০ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

তিনটি অ্যাম্বুলেন্সই অকেজো : সেবা ব্যাহত

তাড়াশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

মো. শামিম হোসেন, তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) থেকে | প্রকাশের সময় : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০২ এএম

সেবা নিতে ভাড়ায় চালিত মাইক্রো গাড়িতে গুনতে হয় অতিরিক্ত ভাড়া। এনিয়ে ফেসবুকে আবেগময় পোস্ট দিয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান।

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলা ৫০ শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রোগী বহনের জন্য রয়েছে তিনটি অ্যাম্বুলেন্স। দীর্ঘদিন ধরে অকেজো হয়ে পড়ে থাকায় সেবা পাচ্ছেন না ভুক্তভোগী রোগীরা। তাই বাধ্য হয়ে জীবন বাঁচাতে জরুরি রোগীদের অতিরিক্ত অর্থ দিয়ে ভাড়ায় চালিত মাইক্রো গাড়ি নিয়েই যেতে হচ্ছে শহরের বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে। অপর দিকে ১৫ বছর ধরে অকেজো হয়ে পরে আছে এক্সরে মেশিন। কাগজ-কলমে ৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল হলেও গত ৯ বছর ধরে ৩১ শয্যার হাসপাতালের সামগ্রী ও জনবল দিয়েই চলছে চিকিৎসা কার্যক্রম। আর এসব কারণেই প্রকৃত সেবা থেকে বঞ্চিত এ উপজেলার তিন লক্ষাধিক মানুষ।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, ১৭ জন চিকিৎসক পদের বিপরীতে কর্মরত রয়েছে মাত্র ৫ জন। এতে চিকিৎসা সেবা হতে বঞ্চিত হচ্ছে জনসাধারণ। প্রায় ১৫ বছর ধরে হাসপাতালের এক্সরে মেশিনটি অকেজো থাকায় এক্সরে টেকনোলজিস্ট পদটি শূন্য। এরপরও চলছে নতুন মেশিনের তোড়জোড়।

হাসপাতালে দুইটি আল্ট্রাসনোগ্রাম মেশিন থাকলেও কোনো সনোলজিস্ট নেই। অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে থাকায় বেশিরভাগ যন্ত্রই নষ্ট হওয়ার পথে। এতে রোগীদের বাধ্য হয়ে অতিরিক্ত টাকা খরচ করে যেতে হচ্ছে শহরের বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে।

ভুক্তভোগী সেবাগ্রহীতা বাবুল শেখ জানান, হাসপাতালে কোন অ্যাম্বুলেন্স নেই। ফোন করলে বলে অ্যাম্বুলেন্সটি নষ্ট। তাই জরুরি প্রয়োজনে বাধ্য হয়ে বেশি টাকায় ভাড়ায় চালিত মাইক্রোগাড়ী নিতে হয়।

এ নিয়ে ফেসবুকে গত ৩১ আগস্ট আবেগময় পোস্ট দিয়েছেন তাড়াশ সদর ইউপি চেয়ারম্যান বাবুল শেখ। তিনি লিখেছেন ‘অসুস্থ মাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য যখন অ্যাম্বুলেন্স প্রয়োজন ঠিক সে সময় তাড়াশ হাসপাতালে সরকারি একটি অ্যাম্বুলেন্সও নাই।’

এ ব্যাপারে তাড়াশ উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. জামাল মিঞা শোভন বলেন, একটি অ্যাম্বুলেন্স মেরামতের জন্য দু’একদিনের মধ্যে বগুড়া পাঠানো হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ