Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৩ কার্তিক ১৪২৮, ১১ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

কক্সবাজারে ২ পৌরসভা ও ১৪ ইউপিতে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন

সহিংসতায় নিহত ২, আহত অর্ধ শতাধিক

কক্সবাজার ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৭:৩১ পিএম

কক্সবাজারে ২ পৌরসভা যথাক্রমে চকরিয়া ও মহেশখালী পৌরসভাসহ ১৪ টি ইউনিয়নে ব্যালট ছিনতাই, কেন্দ্র দখল ও সহিংসতার মধ্যদিয়ে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। এতে ২ জন নিহত ও অর্ধশতাধিক আহত হয়েছে। বেসরকারী ফলাফলে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন যথাক্রমে চকরিয়ায় আলমগীর চৌধুরী ও মহেশখালীতে মকছুদ মিয়া। তারা দুইজনই আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনীত এবং মেয়র পদে থেকেই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছেন।

এদিকে সোমবার একই সাথে ৪ উপজেলার আরো ১৪ টি ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ হয়েছে। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ভেট গণনা চলছে।

নির্বাচন চলাকালে মহেশখালির কুতুবজোম ইউনিয়নে একটি ভোটকেন্দ্রে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী শেখ কামাল ও বিদ্রোহী প্রার্থী মোশাররফ হোসেন খোকনের সমর্থকদের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এতে একজন নিহত ও বেশ কয়েকজন গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছেন।

সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) বেলা পৌনে ১১টার দিকে কুতুবজুম ৫ নং ওয়ার্ড পশ্চিম পাড়ায় জামিয়ুসসুন্নাহ দারুল উলুম দাখিল মাদরাসা কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলাম জানান, গুলিবিদ্ধ পাঁচজনের মধ্যে আবুল কালাম নামে একজনের অবস্থা আশংকাজনক। আহতদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

কুতুবদিয়ায় নির্বাচনী সহিংসতায় আবুব্দুল হালিম (৪০) নামে ১ব্যক্তি নিহত হয়েছে। (২০ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টায় বড়ঘোপ ইউনিয়নের পিলটকাটা কেন্দ্রে এঘটনা ঘটে। তাকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে কুতুবদিয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত আব্দুল হালিম ওই কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আবুল কালামের নির্বাচনী এজেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, নৌকা প্রার্থীর সমর্থকেরা হৈ হুল্লোড় করে কেন্দ্র দখল করতে গেলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি চালায়। কুতুবদিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওমর হায়দার বলেন, ও সময় কেন্দ্র দখলের জন্য উভয়পক্ষের লোকজন গুলোগুলিতে লিপ্ত হয়েছিল।

টেকনাফের উনছিপ্রাং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় লম্বাবিল এমদাদিয়া মাদরাসা ভোটকেন্দ্রে ব্যালট ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় নির্বাচন কর্মকর্তাদের অবরুদ্ধ করে রাখে উত্তেজিত জনতা। ঘটেছে সড়ক অবরোধ ও গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা। এর প্রতিবাদে প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে থেমে থেমে বিক্ষোভ করছিল স্থানীয়রা।

খবর পেয়ে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) আবু সুফিয়ান, টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার পারভেজ চৌধুরী, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইরফানুল হক চৌধুরী বেলা ১টার দিকে লম্বাবিল ভোটকেন্দ্রে পৌঁছেন। তারা অভিযোগ শোনেন। তাৎক্ষণিক দুই কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ স্থগিত ঘোষণা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার পারভেজ চৌধুরী।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কক্সবাজার


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ