Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮, ২০ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

গৃহকর্মী নির্যাতন বন্ধ হোক

| প্রকাশের সময় : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০৩ এএম

শিল্পায়ন ও নগরায়নের প্রসারের ফলে শহরে দিন দিন গৃহকর্মীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। পাশাপাশি বাড়ছে গৃহকর্মী নির্যাতনের ঘটনাও। মূলত যারা অতিদরিদ্র্য তারাই এ পেশা বেছে নিতে বাধ্য হচ্ছেন। ফলে তারা প্রতিনিয়ত অমানবিক নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। এ যেন আধুনিক দাস ব্যবস্থার নতুন রূপ। বাংলাদেশে গৃহকর্মী নির্যাতন বন্ধ হচ্ছে না। নির্যাতনের শিকার কেউ কেউ মৃত্যুবরণ করেন। এছাড়া ধর্ষণের ঘটনাও ঘটছে। আইএলও বলছে, বাংলাদেশে গৃহকর্মীদের শতকরা ৯৭ ভাগ নারী। গৃহকর্মীরা নানা ধরনের শারীরিক, মানসিক, যৌন নির্যাতন ও শোষণের শিকার হয়। ক্ষেত্রবিশেষে পাচারের ঘটনাও ঘটে। প্রতিনিয়ত চড়-থাপ্পর, লাথি-ঘুসি, পর্যাপ্ত খাবার খেতে এবং ঘুমোতে না দেওয়ার মতো শারীরিক নির্যাতনের ঘটনাও ঘটছে অহরহ। অন্যদিকে, অকথ্য ভাষায় বকাঝকা, বিভিন্ন নামে ডাকা, বংশ পরিচয় নিয়ে ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ, অবহেলা ইত্যাদি মানসিক নির্যাতন নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা। এছাড়াও ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির ঘটনাও ঘটছে, এমনকি নির্যাতনের ফলে হচ্ছে মৃত্যুও। অনেকে আত্মহত্যার করছে। গৃহকর্মী নির্যাতন একটি অপরাধ; স্পষ্ট মানবাধিকার লঙ্ঘন। গৃহকর্মীর সুরক্ষার জন্য যথাযথ আইনি ব্যবস্থা প্রণয়নে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলা প্রয়োজন। ধর্ষণ, অপহরণ ও নির্যাতনের শিকার গৃহকর্মীদের পুনর্বাসনের সঠিক নির্দেশনা থাকতে হবে। আমাদের অবশ্যই আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকতে হবে। বিচারহীনতার সংস্কৃতি থেকে বের হয়ে আসার জন্য সরকারকে দৃঢ় পদক্ষেপ নিতে হবে।

আবির হাসান সুজন
শিক্ষার্থী, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চিঠিপত্র

১৪ অক্টোবর, ২০২১
১১ অক্টোবর, ২০২১
১০ অক্টোবর, ২০২১
৭ অক্টোবর, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন