Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০ কার্তিক ১৪২৮, ১৮ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

সীতাকুন্ডে হামলায় গুরুতর আহত সাংবাদিক পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

সীতাকুন্ড (চট্টগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৯:২৬ পিএম

চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডে সাংবাদিক অশোক দাশের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে ভুক্তভোগী অশোক দাশের পরিবার সংবাদ সম্মেলন করেছেন। (২০ সেপ্টেম্বর) সোমবার বিকেল ৪টার দিকে প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন করেন তারা।

সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী পরিবারের স্বপন দাশের লিখিত বক্তব্যে জানা যায়, সীতাকুন্ড পৌরসদর উত্তর বাজারস্থ একায় অবস্থিত মৌরসী সম্পত্তিতে যুগযুগ ধরে ভোগ দখলে আছেন। দখলীয় সম্পত্তিতে একটি দোকান গৃহ ভাড়া হিসেবে সীতাকুন্ড পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের ইদিলপুর গ্রামের নুরুচ্ছাফার ছেলে মোঃ কামরুল ইসলামের সঙ্গে চুক্তিনামায় ভাড়া প্রদান করা হয়। ২০১২ সাল থেকে এ পর্যন্ত সীতাকুন্ড বাজার কমিটির একজন সম্মানিত সদস্য সহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে তার সাথে ভাড়া দোকান গৃহটি চুক্তিনামা সম্পাদিত হয়। সে ভাড়াটিয়ে হওয়া সত্বেও দোকান নেওয়ার পর এ পর্যন্ত আমাদের সাথে ভাড়া নিয়ে নানা রকম দুর্ব্যবহার করে আসছে। সর্বশেষ গত বছর সালিশের পর আমাদের সাথে দুর্ব্যবহার করে ভাড়া প্রদান থেকে বিরত থাকে । বিষয়টি নিয়ে আমরা বাজার কমিটির নিকট অভিযোগ করলে কমিটি দুইবার শালিশী বৈঠকের আয়োজন করেন। কিন্তু সে কোন বৈঠকে উপস্থিত হয়নি। এমন অবস্থায় ২০১২ সালে আমাদের থেকে জায়গাটি ক্রয় করেছে বলে ১৫০ টাকায় নন জুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে হলফনামার মাধ্যমে একটি চুক্তিনামা বাজার কমিটির নিকট প্রদর্শন করে। অতঃপর চট্টগ্রাম জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করে। উভয় মামলা পিবিআই এর নিকট তদন্তনাধীন থাকাবস্থায় গত সপ্তাহে সে দোকানের পিছনে থাকা বেশ কয়েকটি কাঁঠাল গাছ কর্তন করে। এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলে সে নানা রকম হুমকি-ধমকি ও হত্যা পরিকল্পনার চেষ্টা করতে থাকে। তার বিরুদ্ধে সীতাকুন্ড থানায় পরপর তিনটি অভিযোগ দায়ের করেও সে এসব অভিযোগের কোনটি আমলে নেয়নি। ফলে সে আবারও কয়েকটি গাছ কেটে ফেলে। গত ১৯ সেপ্টেম্বর রোববার আমার ভাতিজা সাংবাদিক অশোক দাশ ও তার পরিবারের উপর হামলা চালায় কামরুল ইসলামসহ সন্ত্রাসীরা। হামলায় ছুরিকাঘাতে সাংবাদিক অশোক দাশ গুরুতর আহত হয়। এছাড়াও গত কয়েক দিন আগে বাজার কমিটি গঠনতন্ত্র মোতাবেক দোকানটি বন্ধ করে দিলে সে পুনরায় সন্ত্রাসী নিয়ে রাতের আঁধারে তালা ভেঙ্গে দোকানে প্রবেশ করে। ১৯ সেপ্টেম্বর এ বিষয়ে কামরুল ইসলামকে জিজ্ঞেস করলে সে তার ভাই সালাউদ্দিন তারেকসহ ওৎপেতে থাকা ১০-১২ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী হামলা চালালে এসময় সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হয় সাংবাদিক অশোক দাশ। বর্তমানে পুরো পরিবার সন্ত্রাসীদের ভয়ে আতঙ্কিত প্রায়। তাই সাংবাদিকদের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ স্থানীয় প্রশাসন এবং সরকারের সংশ্লিষ্ট মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন এবং অবৈধ দখলদার থেকে দোকান উদ্ধারে সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা করেন ভুক্তভোগী পরিবার।সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন কুমার দাশ, পুলিন চন্দ্র দাশ ও তপন কুমার দাশ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চট্রগ্রাম


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ