Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮, ২০ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

আফগান গার্লস স্কুলে নিষেধাজ্ঞা অনৈসলামিক হবে : বিবিসিকে ইমরান খান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০৩ এএম

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, প্রতিবেশী আফগানিস্তানে নারীদের শিক্ষা গ্রহণে বাধা দেওয়া হবে অনৈসলামিক। বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জনাব খান বলেন, নতুন তালেবান সরকারকে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দিতে পাকিস্তানের শর্ত পূরণ করতে হবে। তিনি নেতৃত্বকে অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার গঠন এবং মানবাধিকারের প্রতি সম্মান করার আহ্বান জানান।
জনাব খান আরো বলেন, আফগানিস্তানকে সন্ত্রাসীদের আস্তানায় ব্যবহার করা উচিত নয় যারা পাকিস্তানের নিরাপত্তা হুমকির মুখে ফেলতে পারে। গত সপ্তাহে, তালিবানরা মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে মেয়েদের বাদ দিয়েছিল এবং শুধুমাত্র ছেলেদের এবং পুরুষ শিক্ষকদের ফিরে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছিল। কিন্তু পাকিস্তানের নেতা বলেন যে, তিনি বিশ্বাস করেন মেয়েরা শিগগিরই উপস্থিত হতে পারবে।
তিনি বিবিসির জন সিম্পসনকে বলেন, ‘ক্ষমতায় আসার পর থেকে তালেবানরা যে বিবৃতি দিয়েছে তা খুবই উৎসাহজনক’। তিনি বলেন, আমি মনে করি, তারা মহিলাদের স্কুলে যাওয়ার অনুমতি দেবে। ‘নারীদের শিক্ষিত হওয়া উচিত নয় এমন ধারণা শুধু ইসলামই নয়, এর সাথে ধর্মের কোন সম্পর্ক নেই’।
আগস্টে তালেবান আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর থেকে, ১৯৯০ সালের শাসনব্যবস্থায় ফিরে যাওয়ার আশঙ্কা বেড়ে যায় যখন কট্টর ইসলামপন্থীরা নারীদের অধিকারকে কঠোরভাবে সীমাবদ্ধ করে। এর নেতৃত্ব বজায় রাখে যে, ‘ইসলামী আইনের কাঠামোর মধ্যে’ মহিলাদের অধিকারকে সম্মান করা হবে।
গত সপ্তাহে মেয়েদের স্কুলে ফেরা থেকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত একটি আন্তর্জাতিক হৈচৈ ফেলে দেয়। তালেবান মুখপাত্র পরে বলেছিলেন যে, তারা ‘যত তাড়াতাড়ি সম্ভব’ ক্লাসে ফিরে আসবে। কিন্তু মেয়েরা কবে ফিরতে পারবে বা তারা কোন ধরনের শিক্ষার ব্যবস্থা করবে তা এখনও স্পষ্ট নয়।
আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতির জন্য তালেবান তার মানদণ্ড বাস্তবসম্মতভাবে পূরণ করবে কিনা তা নিয়ে চাপ দিলে জনাব খান আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে বারবার এই গোষ্ঠীকে আরও সময় দেওয়ার আহ্বান জানান।
তিনি বলেন, ‘এত আগে বলা খুব তাড়াতাড়ি’। তিনি আরো বলেন, তিনি আশা করেছিলেন আফগান নারীরা শেষ পর্যন্ত ‘তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করবে’।
জিহাদি সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে পাকিস্তানকে সকলেই দৃঢ় মিত্র হিসেবে দেখেনি। এটি দীর্ঘদিন ধরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্য কোথাও তালেবানদের সমর্থন দেওয়ার অভিযোগ এনেছে, যা পাকিস্তান অস্বীকার করে।
আফগানিস্তানে ৯/১১ হামলার পরিকল্পনা করার পর, তথাকথিত ‘সন্ত্রাসবিরোধী যুদ্ধে’ পাকিস্তান নিজেকে যুক্তরাষ্ট্রের মিত্র হিসেবে অবস্থান করে। কিন্তু একই সময়ে দেশের সামরিক ও গোয়েন্দা প্রতিষ্ঠানের কিছু অংশ তালিবানের মতো ইসলামপন্থী গোষ্ঠীর সঙ্গে সম্পর্ক বজায় রেখেছিল।
জনাব খান বলেন, তালেবান সরকারকে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দেওয়া হবে কিনা সে বিষয়ে পাকিস্তান সিদ্ধান্ত নেবে অন্যান্য প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে।
তিনি বলেন, ‘সব প্রতিবেশী একত্রিত হবে এবং দেখবে তারা কীভাবে অগ্রসর হয়’। ‘তাদের চিনতে হবে কি না তা একটি যৌথ সিদ্ধান্ত হবে’।
গৃহযুদ্ধ নিয়ে দুশ্চিন্তা
জনাব খান কট্টরপন্থী গোষ্ঠীকে একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার গঠনের আহ্বান জানিয়ে বলেন, এটি করতে ব্যর্থ হলে দেশ গৃহযুদ্ধে নামতে পারে। তিনি বলেন, ‘যদি তারা সব উপদলকে অন্তর্ভুক্ত না করে, তাহলে তাড়াতাড়ি বা পরে তাদের গৃহযুদ্ধ হবে’। ‘এর অর্থ একটি অস্থিতিশীল, বিশৃঙ্খল, আফগানিস্তান এবং সন্ত্রাসীদের জন্য একটি আদর্শ স্থান। এটি একটি উদ্বেগের বিষয়’।
মঙ্গলবার, একজন তালেবান মুখপাত্র আফগানিস্তানের সর্ব পুরুষ সরকারের বাকি সদস্যদের ঘোষণা করেন। এসব সংযোজনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে একজন চিকিৎসকও অন্তর্ভুক্ত ছিলেন। কিন্তু বিশ্লেষকরা বলছেন যে, সরকার প্রধানত সংখ্যালঘু প্রতিনিধিত্বের অনুগতদের নিয়ে গঠিত। সূত্র : বিবিসি।



 

Show all comments
  • Habibur Rahman Jewel ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৮:১৩ এএম says : 0
    নারীরা শিক্ষা লাভ না করলে নারী গাইনি ডাক্তার কৈ পাবে? পরে তো বাধ্য হয়ে পুরুষ গাইনি ডাক্তার দেখাতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • A K Shovon ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৮:১২ এএম says : 0
    জ্ঞান অর্জন করা প্রত্যেক মুমিন নারী পুরুষের জন্য ফরজ।
    Total Reply(0) Reply
  • Múhammàd Hádi ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৮:১৪ এএম says : 0
    নারী শিক্ষার প্রতি ইসলাম কোনকালেই কঠোর ছিলোনা
    Total Reply(0) Reply
  • Md Mamun ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৮:১০ এএম says : 0
    ঠিক বলেছেন লিডার
    Total Reply(0) Reply
  • Md Shakibul Hasan ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৮:১০ এএম says : 0
    ঠিক। নারী অশিক্ষিত হলে গোটা পরিবারটাই অন্ধকারে।
    Total Reply(0) Reply
  • মাহমুদ ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৩:৩৯ এএম says : 0
    সকল নারীকে পর্দা মেনেই সকল কিছু করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Saiful Islam ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৮:১১ এএম says : 0
    ধন্যবাদ সমালোচকদের মুখ বন্ধ করে দেওয়ার জন্য
    Total Reply(0) Reply
  • Rasel Khan ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৮:০৮ এএম says : 0
    ইসলামী নীতিমালা বা শৃঙ্খলা মেনে অবশ্যই নারীদের পড়াশোনা করার সুযোগ দেয়া উচিত। এক বিংশ শতাব্দীতে নারীদের শরিয়া মেনে হলেও পড়াশোনা করে এগিয়ে যেতে হবে। এটাই বাস্তবতা.....
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তান


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ