Inqilab Logo

বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৩ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী

ফুলপুরে নির্যাতনে গৃহবধূর মৃত্যুর অভিযোগ, স্বামী গ্রেফতার

ফুলপুর (ময়মনসিংহ) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৭:৩৪ পিএম

ময়মনসিংহের ফুলপুরে যৌতুকের জন্য স্বামী ও পরিবারের লোকজনের নির্যাতনে রিতা আক্তার (২৮) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার রাতে উপজেলার বিহারাঙ্গা গ্রামে স্বামীর বসত ঘরে। পুলিশ স্বামী দেলোয়ার হোসেনকে গ্রেফতার করেছে।

অভিযোগে জনা যায়, ফুলপুর উপজেলার বিহারাঙ্গা গ্রামের সাইফুল ইসলামের ছেলে মোঃ দেলোয়ার হেসেন (৩৫) এর সাথে প্রায় ১০ বছর আগে নওগা জেলার বদলগাছি উপজেলার ভোলার পালসা গ্রামের ইব্রাহীম মন্ডলের মেয়ে রিতা আক্তার (২৮) এর বিয়ে হয়। তাদের সাংসারিক জীবনে আতিক হাসান রাজ (৯) নামে এক ছেলে ও নুসরাত জাহান আনিকা (৬) নামে এক মেয়ে সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর স্বামীর সংসারের উন্নতির জন্য রিতা পিতার বাড়ি থেকে ৩ লাখ টাকার মালামাল এনে দেয়। এরপর স্বামী দেলোয়ার সমস্ত টাকা খরচ করে আবার ২ লাখ টাকা এনে দেয়ার জন্য বলে স্ত্রী রিতাকে। রিতা পিতার কাছ থেকে টাকা না এনে দেয়ায় ক্ষিপ্ত হয় স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন। এর পর শুরু হয় যৌতুক এনে দেয়ার জন্য নির্যাতন। এ নিযে রিতার বাড়ির লোকজন দেন দরবারও করেছে। হঠাৎ মঙ্গলবার ভোর রাতে দেলোয়ার ফোনে জানায় রিতা অসুস্থ্য হয়ে মারা গেছে। খবর পেয়ে রিতার মা রশিদা বেগম সহ আত্মীয়-স্বজন ফুলপুরে এসে দেখে রিতাকে তাড়াহুড়ো করে দাফনের সমস্ত ব্যবস্থা করে ফেলেছে স্বামী। পরে লাশের কপালে, কানে, হাতে, আঙ্গুলে, পিঠে আঘাতের চিহ্ন দেখে তাদের সন্দেহ হয় এবং রিতাকে যৌতুকের জন্য নির্যাতন করে হত্যা করা হতে পারে মর্মে থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেন এবং স্বামী দেলোয়ার হোসেনকে গ্রেফতার করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, স্ত্রী রিতা আক্তারকে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে যৌতুকের দাবীতে মারপিট করে তার স্বামী দেলোয়ার হোসেন। পরে ঘটনাটি আড়াঁল করার জন্য রিতা আক্তার স্ট্রোক করে মারা গেছে বলে স্বামী দেলোয়ার হোসেন ডাক চিৎকার করে। এমনকি আলামত নষ্ট করার জন্য রিতার পড়নের সমস্ত কাপড় মাটির নিচে চাপা দিয়ে সকালে স্ত্রীর লাশ দাফনের চেষ্টা করে স্বামী।

এব্যাপারে নিহত রিতার মা রশিদা বেগম বাদী হয়ে বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) স্বামী দেলোয়ার হোসেন (৩৫), তার ভাই আনোয়ার হোসেন (৪২), আরিফ হোসেন (৩০) ও বওলার আবুল কালাম (৩০) কে নামে এবং অজ্ঞাত ২/৩ জনকে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ফুলপুর থানায় মামলা দায়ের করেন।

ফুলপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, থানায় মামলা হয়েছে। নিহতের পিঠে ও কপালে জখমের চিহ্ন পাওয়া গেছে। নিহতের ছোট মেয়েকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে পিতা দেলোয়ার হোসেন মা রিতা আক্তারকে মারধর করেছে বলে জানায়। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। স্বামী দেলোয়ারকে গ্রেফতার করে বুধবার আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ময়মনসিংহ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ