Inqilab Logo

সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৯ কার্তিক ১৪২৮, ১৭ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

ইসলামোফোবিয়া করোনাভাইরাসের মতোই বিপজ্জনক : প্রেসিডেন্ট এরদোগান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৭:৪৭ পিএম

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগ দিতে নিউইয়র্কে পৌঁছে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট ও ক্ষমতাসীন একেপি চেয়ারম্যান রজব তাইয়্যেব এরদোগান তুর্কি আমেরিকান ন্যাশনাল স্টিয়ারিং কমিটি আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে ভাষণ দেন। সেখানে তিনি বলেন, ইসলামোফোবিয়া করোনাভাইরাসের মতোই বিপজ্জনক। -বায়ানেট

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট ও ক্ষমতাসীন জাস্টিস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টির (একেপি) চেয়ারম্যান রজব তাইয়্যেব এরদোগান জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনে যোগ দিতে বর্তমানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে রয়েছেন। এই অধিবেশনের আগে যেখানে বিশ্ব নেতারা তাদের বার্ষিক ভাষণ দেবেন, প্রেসিডেন্ট এরদোগান তুর্কি আমেরিকান ন্যাশনাল স্টিয়ারিং কমিটি (টিএএসসি) আয়োজিত এক সমাবেশে ভাষণ দেন।

দেশটির সরকারি বার্তা সংস্থা আনাদোলু এজেন্সি (এএ) "এ ফায়ার ওয়ার্ল্ড ইজ পসিবল" ইভেন্টে অংশ নিয়েছে, যা তার সাম্প্রতিক বইয়ের শিরোনাম। এসময় এরদোগান বলেন, তুরস্ক ইসলামোফোবিয়ার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আন্তর্জাতিক প্ল্যাটফর্মে অগ্রণী ভূমিকা নিচ্ছে। তিনি বলেন, আমরা আরও মারাত্মক এবং ছদ্মবেশী ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করছি। এই ভাইরাস, যা করোনাভাইরাসের মতো বিপজ্জনক, তাকে বলা হয় ইসলামোফোবিয়া।

তিনি বলেন, এই ভাইরাসগুলো এমন দেশগুলোতে খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। যাদেরকে বছরের পর বছর ধরে গণতন্ত্র এবং স্বাধীনতার গহ্বর হিসাবে চিত্রিত করা হয়েছে। এরদোগান আরও উল্লেখ করেছেন যে, ইসলামোফোবিয়া একটি প্রবণতায় পরিণত হয়েছে, যা মুসলমানদের দৈনন্দিন জীবন ব্যাহত করে এবং সামাজিক শান্তি হুমকির মুখে ফেলে।

ইসলামিক সহযোগিতা সংগঠন (ওআইসি) এবং জাতিসংঘ, অন্যদের মধ্যে উল্লেখ করে প্রেসিডেন্ট এরদোগান বলেন, তুরস্ক ইসলামোফোবিয়ার বিরুদ্ধে প্রচেষ্টায় কাজ করছে। তিনি বলেন, মুসলিম ভাইয়েরা, আমরা আমাদের ধর্ম এবং আমাদের সকল হুমকি দূর করার জন্য সব ধরনের প্রচেষ্টাকেও সমর্থন করছি।

এরদোগানের মার্কিন সফর : বিশ্বনেতাদের উদ্দেশে তার ভাষণের আগে, প্রেসিডেন্ট এবং একেপি চেয়ারম্যান এরদোগান জাতিসংঘের সদর দপ্তর থেকে ম্যানহাটনের ৮২১ ফার্স্ট এভিনিউতে অবস্থিত খুব শীঘ্রই চালু হওয়া "টার্কিভি সেন্টার" পরিদর্শন করেন। তিনি বলেন,৩৬তলা গগনচুম্বী গর্বের স্মৃতিস্তম্ভ যা শুধু তুর্কিদের জন্য নয় বরং মুসলিম আমেরিকান সম্প্রদায়ের জন্যও কাজ করবে।

এরদোগান তার বক্তব্যে কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টি (পিকেকে), পিপলস ডিফেন্স ইউনিটস (ওয়াইপিজি) এবং এফইটিইর মতো একটি ধারাবাহিক সংগঠনের কথাও উল্লেখ করেছেন, যা তুরস্কে অভ্যুত্থান চেষ্টার জন্য দায়ী। এরদোগান তুর্কি আমেরিকান সম্প্রদায়ের সদস্যদের এই সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোর আসল চেহারা সম্পর্কে তাদের আমেরিকান প্রতিপক্ষকে অবহিত করার জন্য আহ্বান জানান। এরদোগান বলেন, যত বড়ই হোক না কেন, কোন মিথ্যা সত্যের সূর্যের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে পারে না।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ