Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮, ২০ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

ফেসবুক লাইভে গিয়ে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

গাজীপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:২৪ এএম

গাজীপুর মহানগরীর পুবাইলে তিন সন্তানের জনক স্বপন চন্দ্র দাস (৪২) নামে এক ব্যবসায়ী মধ্যরাতে ফেসবুক লাইভে গিয়ে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছে। আত্মহত্যার দৃশ্যের ভিডিওটি ইতোমধ্যে ভাইরাল হয়ে গেছে। গত বুধবার নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।
স্বপন মহানগরীর পূবাইল থানাধীন নয়ানীপাড়া এলাকার নগেন্দ্র চন্দ্র দাসের ছেলে। তিনি পূবাইল বাজার কেন্দ্রীয় রাধা মাধব মন্দির পূবাইল থানা পূজা উদযাপন কমিটির অর্থ সম্পাদক এবং আশার আলো সঞ্চয় ও ঋণদান সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। জানা গেছে, প্রতিদিনের মতো গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে খাবার খেয়ে স্বপন চন্দ্র দাসের পরিবারের সদস্যরা ঘুমিয়ে পড়েন। তবে তার স্ত্রী বাড়িতে ছিলেন না। রাত ১টা ৫৫ মিনিটের দিকে নিজের শয়ন কক্ষ থেকে ফেসবুক লাইভে আসেন স্বপন চন্দ্র দাস। এসময় তিনি ফেসবুক লাইভে থেকে প্লাস্টিকের মোড়ার উপর দাঁড়িয়ে ঘরের আঁড়ের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দেন। পরে তিনি পায়ের নীচ থেকে ওই মোড়া সরিয়ে দিয়ে ফাঁসিতে ঝুলে পড়েন। ফাঁসিতে ঝুলে পড়ার কয়েক মুহুর্তেই তার শরীর নিস্তেজ হয়ে পড়ে।
মধ্যরাতের এ দৃশ্য ওই মুহুর্তে প্রতিবেশী শরিফসহ অন্তত ৩০ থেকে ৩৫ জন ভিউয়ার সরাসরি দেখতে পান। ফেসবুক লাইভে আত্মহত্যার দৃশ্যটি দেখতে পেয়ে স্বপনের ব্যবসায়িক পার্টনার আনোয়ার হোসেনের ছেলে নীরবকে ফোন দিয়ে বিষয়টি দ্রæত জানতে বলেন শরীফ। খবর পেয়ে প্রতিবেশী কয়েকজন দ্রæত স্বপনের বাড়িতে গিয়ে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে টঙ্গী আহসানউল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে স্বপনকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। এর আগে দুপুরে তিনি তার ফেসবুক আইডি থেকে অনেকগুলো ছবি পোস্ট করে ক্যাপশনে লিখেন, ‘জীবনের কিছু স্মৃতিময় মূহুর্ত। হয়তো এটাই জীবনের শেষ আপলোড।’
জিএমপি’র পূবাইল থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) শাহ আলম জানান, নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে ও লাইভে গিয়ে আত্মহত্যার বিষয়টি খতিয়ে দেখছে পুলিশ। এ ব্যাপারে আইনগত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ