Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৩ কার্তিক ১৪২৮, ১১ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

প্রতিবাদের মুখে পেছাতে পারে বগুড়া সদর বিএনপির সম্মেলন

বগুড়া ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬:২২ পিএম

দীর্ঘ একদশক পর একতরফাভাবে বগুড়া সদর উপজেলা বিএনপির দ্বি -বার্ষিক সম্মেলন আয়োজনের প্রতিবাদে সোচ্চার হয়েছেন দলের কয়েকজন সিনিয়র নেতা। প্রতিবাদী এই নেতাদের প্রতিবাদের কারণে আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর পূর্ব ঘোষিত উপজেলা সম্মেলন স্থগিত বা পিছিয়ে যেতে পারে বলে মনে করছেন কেউ কেউ।

বিক্ষুব্ধ নেতাদের বিবৃতি ও দল সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত ২১ সেপ্টেম্বর পূর্ব পরিকল্পিতভাবে ঘোষণা করা হয় ২৮ সেপ্টেম্বর বগুড়া সদর উপজেলা বিএনপির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। বগুড়া সদরের পরিবর্তে সেই সম্মেলন হবে নিসিন্দারা ইউনিয়ন বিএনপির অন্তর্ভুক্ত হাজরাদীঘি কলেজ মাঠে। ২৪ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) বিকেলে ভেন্যু হিসেবে নির্বাচিত সেই মাঠ পরিদর্শনও করেন বগুড়া সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য সদর উপজেলা বিএনপির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির আহবায়ক জনাব আলী আজগর তালুকদার হেনা।

এদিকে এখবর জানতে পারার পর সম্ভাব্য সভাপতি প্রার্থী ও দলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহিদুল ইসলাম গফুর ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী আমিরুল ইসলাম তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে অবিলম্বে এই সম্মেলনের নাটক মঞ্চায়নের অপচেষ্টা বন্ধ করে নিয়মতান্ত্রিকভাবে ভোটার তালিকা প্রণয়ন এবং নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন, নির্বাচনী তফসীল ঘোষণা করে নতুন করে নির্বাচন ও সম্মেলনের তারিখ ঘোষণার দাবি করেছেন।

উল্লেখিত ২ নেতার দাবিকে যৌক্তিক দাবি দলের অপর ২ জন সিনিয়র সদস্য রফিকুল ইসলাম ফার্মার এবং শামীম রেজা বলেছেন, তারেক রহমানের প্রণীত মডেল অনুসরণ করে কেন গোপন ব্যালটে ভোটের প্রস্তুতি ছাড়াই সম্মেলনের মাধ্যমে একতরফাভাবে সদর উপজেলা বিএনপির সম্মেলন তড়িঘড়ি করে করা হচ্ছে সেটা তারা বুঝতে পারছেননা। তারা বিষয়টি দেখার জন্য বগুড়া জেলা বিএনপির আহ্বায়ক ও সংসদ সদস্য গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ ও দলের হাই কমান্ডের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

অপরদিকে বগুড়া সদর উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক এ্যাড সোলায়মান আলী জানিয়েছেন, দলে কনটেস্ট করার মত নেতা নেই ভেবেই ২৮ তারিখে সম্মেলনের তারিখ করা হয়েছে। তবে যদি সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক পদে একাধিক প্রার্থী পাওয়া যায় সেক্ষেত্রে গোপন ব্যালটে ভোট করা যেতে পারে।

উল্লেখ্য বিগত ২০০০ সালে তারেক রহমানের নির্দেশনায় গোপন ভোটের মাধ্যমে বগুড়া সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক নির্বাচন করা হয়। এরপর ২০০৪ ও ২০১০ সালেও গোপন ভোটের মাধ্যমে নেতা নির্বাচন কর হয়। ২০১০ সালে গঠিত কমিটি কমিটি দীর্ঘ ১০ বছর দায়িত্ব পালন করার পর সম্প্রতি নতুন আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। সেই আহবায়ক কমিটির ওপর গোপন ব্যালটের মাধ্যমে ইউনিয়ন কমিটি গঠন প্রক্রিয়া শেষ করে উপজেলা বিএনপির সম্মেলন ও নির্বাচন আয়োজনের দিক নির্দেশনা ছিল।

তবে যেভাবে তড়িঘড়ি করে আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর বগুড়ার সদর উপজেলার হাজরাদীঘি স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে সম্মেলনের স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে সেটা তারেক রহমানের প্রণীত মডেল ও দিক নির্দেশনার সুস্পষ্ট বরখেলাপ বলে অভিযোগে সোচ্চার হয়েছেন অনেকেই। প্রতিবাদীরা এজন্য দলের হাই কমান্ডের দৃষ্টি আকর্ষণ ও করেছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বগুড়া


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ