Inqilab Logo

শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮, ০৮ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

প্রতিশোধ নিতে বানরের ২২ কিলোমিটার ভ্রমণ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০৩ এএম

ভারতের কর্নাটক রাজ্যে ২২ কিলোমিটার ভ্রমণ করে চিক্কামাগালুর জেলার কোত্তিগেহারা গ্রামে ফিরে প্রতিশোধ নিয়েছে একটি বানর। বনেট ম্যাকাউ প্রজাতির কম বয়সী বানরটি ওই গ্রামে ঢুকে মানুষের কাছ থেকে ফল ও খাবার সামগ্রী কেড়ে নিতে থাকে। প্রাথমিকভাবে মানুষ বানরটিকে গুরুত্ব দেয়নি। তবে স্কুল খুললে বানরটিকে মোরারজি দেশাই স্কুলের কাছে আবারও দেখা যায়। স্কুল এলাকায় বানরটিকে ঘুরতে দেখে শিক্ষার্থীরা ভয় পেতে দেখে, কেউ একজন বন বিভাগকে জানিয়ে দেয়। গত ১৬ সেপ্টেম্বর বানরটিকে ফাঁদে ফেলে উদ্ধারকারী দল। বানরটিকে ধরতেও উদ্ধারকারী দলকে কঠিন পরিস্থিতিতে পড়তে হয়। নিতে হয় আশেপাশের মানুষদের সহায়তাও। সেই সময় জগদীশ নামে এক অটোচালকের ওপর আক্রমণ করে বানরটি। হাতে কামড় দেওয়ার পাশাপাশি টানা হেঁচড়া করে মাটিতে ফেলে দেয়। জীবন বাঁচাতে জগদীশ দৌড় দিলে বানরটিও তাকে ধাওয়া দেয়। ওই ব্যক্তি একটি অটো রিকশাও লুকায় কিন্তু বানরটি ওই গাড়িতে আক্রমণ করে সেটির কাভার ছিড়ে ফেলে। জগদীশ বলেন, ‘আমি ভীষণ ভয় পেয়ে যাই। পাগলা বানরটি সবজায়গায় আমাকে অনুসরণ করে। এটি এতো জোরে কামড় দিয়েছে যে ডাক্তার বলেছে যে ক্ষত সারতে কমপক্ষে একমাস লাগবে। অটো চালাতে পারবো না, অথচ এটি আমার রুটি-রুজি। এছাড়া বানরের ভয়ে আমি সেদিন আমি বাড়ি ফিরতে পারিনি। বাড়িতে ছোট ছেলেমেয়ে আছে। তাদের আক্রমণ করলে কী হবে? আমি এখনও ভয় পাচ্ছি।’ প্রায় ৩০ জন মানুষের তিন ঘণ্টা চেষ্টার পর বানরটিকে ধরা সম্ভব হয়। বন বিভাগ বানরটিকে প্রায় ২২ কিলোমিটার দূরে নিয়ে বালুর জঙ্গলে ছেড়ে দেয়। গ্রামবাসীও তাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যায়। কিন্তু এক সপ্তাহ যেতে না যেতে ফিরে আসে বানরটি। বনের কাছ দিয়ে যাওয়া একটি ট্রাকে চেপে বসে সেটি কোত্তিগেহারা গ্রামে ফিরে যায়। নিউজ এট্টিন।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বানর

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১
২১ আগস্ট, ২০২০
৮ অক্টোবর, ২০১৮
৪ জুলাই, ২০১৮

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ