Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮, ২০ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের ২৩ দিন পর আজ শুরু!

বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষায় বেবিচকের অসহযোগীতা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০২ এএম

বিমানবন্দরে বিমান উড্ডয়নের সর্বোচ্চ ৬ ঘন্টা আগে করোনার র‌্যাপিড টেস্ট করার শর্ত দেয়ায় গত মে মাস থেকে সংযুক্ত আরব-আমিরাতে কর্মরত প্রবাসীরা যেতে পারছিলেন না। এ নিয়ে দীর্ঘদিন প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় বা বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) কারোরই কোন মাথা ব্যথা ছিল না। এমনকি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়েরও সাহায্য চাওয়া হয়নি। আর তাই অসহায় রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের কথা বিবেচনা করে গত ৬ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠক থেকে দু-তিন দিনের মধ্যে আরটি-পিসিআর ল্যাব স্থাপনের নির্দেশ দেয়া হয়। এরপর নড়েচড়ে বসে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং বেবিচক। কিন্তু এবার দেখা দেয় কর্তৃত্ব নিয়ে সমস্যা। বেবিচক’র একটি অসাধু গ্রুপ নির্দিষ্ট একটি প্রতিষ্ঠানকে ল্যাব বসানোর কাজ দিতে চাওয়ায় বিপত্তি বাধে। আর তাই পিসিআর ল্যাব বসানোর ক্ষেত্রে শুরু থেকে অসহযোগিতা করে আসছিল বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ। প্রথমে তারা খোলা আকাশের নিচে ছাদে ল্যাব বসানোর জায়গা নির্ধারণ করেছিল। পরে অবশ্য খোলা আকাশের নিচে ল্যাব স্থাপনে স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের অনীহায় নতুন যায়গা মিলে। আর ৬টি প্রতিষ্ঠানকে ল্যাব স্থাপনের অনুমোদন দেয়া হয়। প্রতিটি ল্যাবে ২টি করে মোট ১২টি মেশিন বসবে। এতে ২৪ ঘণ্টায় তিন থেকে সাড়ে তিন হাজার নমুনা পরীক্ষা করা যাবে।
এমনকি ল্যাব অনুমোদন ও বসানোর পরও আজ হবে, কাল হবে- এই করে দিন অতিবাহিত করা হয়। এতে সঙ্কটে পড়ে লাখো যাত্রী। অথচ নির্দেশের এক সপ্তাহের মধ্যে এই কার্যক্রম শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ল্যাব বসানো নিয়ে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়, বেবিচক ও স্বাস্থ্যখাতের মধ্যে সমন্বয়ের অভাবে গত ২২ দিনেও সঠিকভাবে ল্যাবের কার্যক্রম শুরু হয়নি। অথচ ৭২ ঘণ্টার মধ্যে পিসিআর ল্যাব বসানো সম্ভব। যদিও অবশেষে আজ ২৩ দিন পর বিমানবন্দরে শুরু হচ্ছে র‌্যাপিড টেস্ট।
সূত্র মতে, গত মে মাস থেকে বিমানবন্দরে র‌্যাপিড টেস্ট না হওয়ায় আরব আমিরাতে কর্মকরত বাংলাদেশীরা দেশ ত্যাগ করতে পারছিলেন না। এমনকি এ নিয়ে দীর্ঘদিন কারো কোনো উদ্যোগও ছিল না। অবশেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নজরে এল গত ৬ সেপ্টেম্বর তিনি দ্রুত ল্যাব স্থাপনের নির্দেশ দেন। কিন্তু এরপর শুরু হয় এক ধরণের নাটক। আর এই নাটেক হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আরটি-পিসিআর ল্যাব স্থাপনের উদ্যোগ বার বার পিছিয়ে যায়।
পরে গত বৃহস্পতি ও শুক্রবার সরেজমিন বিমানবন্দরে নির্মিতব্য বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের আরটি-পিসিআর ল্যাবরেটরি কার্যক্রমের অগ্রগতি পরিদর্শন করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমেদ। দুই জনই রোববার থেকে তা চালু হওয়ার দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন। কিন্তু বেবিচকের একটি স্বার্থান্বেষী গ্রুপ নির্দিষ্ট একটি প্রতিষ্ঠানকে ল্যাব বসানোর কাজ দিতে চাওয়ায় বিপত্তি বাধে। শনিবার সন্ধ্যায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সূত্র জানায়, রোববারও টেস্ট শুরু হবে না। সোমবারেও শুরু হবে কী না তা নিয়ে সংশয় দেখা দেয়। পরে অবশ্য বিমান বন্দর থেকে জানানো হয়, মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) নুমনা পরীক্সা শুরু হবে। আর তাই দুই মন্ত্রী বলার পরও এখনও শুরু করা সম্ভব হয়নি করোনার নমুনা পরীক্ষা। আর শেষ পর্যন্ত মঙ্গলবার টেস্ট শুরু হবে কিনা এ নিয়ে প্রবাসী শ্রমিকদের মধ্যে সংশয় দেখা দিয়েছে। অথচ ৩ প্রতিষ্ঠানের সমন্বয়ের অভাবে অনেক প্রবাসী শ্রমিকের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাচ্ছে।
পিসিআর ল্যাব স্থাপনে অনুমোদন পাওয়া অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা জানান, পিসিআর ল্যাব মনিটরিং করার দায়িত্ব স্বাস্থ্য বিভাগের। কিন্তু বেবিচক কর্তৃত্ব করতে গিয়ে স্বাস্থ্য খাতকে বিপাকে ফেলে। আর পিছিয়ে যায় বিমানবন্দরে প্রবাসী যাত্রীদের করোনার নমুনা পরীক্ষা। বেবিচক প্রথমে খোলা আকাশের নিচে ল্যাব স্থাপনের কথা বলে। এ নিয়ে ধারণা না থাকলেও তারা এ ধরণের অবিবেচক সিদ্ধান্ত দেয়। যদিও পরে খোলা আকাশের নিচে ল্যাব স্থাপনের স্বাস্থ্য বিভাগের অনীহায় বিমানবন্দরে অন্য জায়গা নির্ধারণ করে দেয়া হয়। ল্যাব স্থাপনের দায়িত্ব পাওয়া ছয়টি প্রতিষ্ঠান সেখানে ডাটা সেন্টারও চালু করে। কিন্তু এবারও সিভিল এভিয়েশনের একজন কর্মকর্তা সেখানে থেকে তাদের উঠিয়ে দিয়ে বলেন, এখানে কোনো ল্যাব বসানো যাবে না। বিমানবন্দরে পিসিআর ল্যাব বসানো নিয়ে প্রথম থেকেই অসহযোগিতা করে আসছেন ওই কর্মকর্তা। এটা আন্তর্জাতিক অঙ্গণে দেশের ভাবমূর্তিক্ষুন্ন করার ষড়যন্ত্র কিনা সেই প্রশ্ন এখন অনেকের। অবশ্য সিভিল এভিয়েশনের ওই কর্মকর্তা একটি প্রতিষ্ঠানকে বিমানবন্দরে পিসিআর ল্যাব বসাতে দেয়ার পক্ষে ছিলেন।
এদিকে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মঙ্গলবার করোনার পরীক্ষা শুরু হবে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এম মফিদুর রহমান। যদিও এর আগে গত শনিবার করোনা পরীক্ষা শুরুর কথা বলেছিল কর্তৃপক্ষ। বিমানবন্দরে গত রোববার দুপুরে করোনার পরীক্ষা কার্যক্রম পরিদর্শন করেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী। বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার প্রসঙ্গে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, এখানে কোনো সমস্যা নেই। সব সুযোগ-সুবিধা দেয়া হয়েছে। ফ্লাইট পরিচালনার ব্যাপারেও আর কোনো ধরনের বিধিনিষেধ নেই।
বিমানবন্দর সূত্র জানায়, ছয়টি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বিমানবন্দরের অভ্যন্তরে ১২ আরটি-পিসিআর মেশিন স্থাপনের কাজ শেষ করেছে। বিমানবন্দরের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শাহরিয়ার সাজ্জাদ জানান, আরটি-পিসিআর মেশিনের সক্ষমতা যাচাইয়ে গত শনিবার রাত ৮টার দিকে প্রাথমিকভাবে ১০০ জন কর্মীর নমুনা পরীক্ষাও করা হয়েছে। পরীক্ষার ফল বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। এরপর কর্তৃপক্ষের অনুমতিক্রমেই আজ মঙ্গলবার থেকে শুরু হবে বিমানবন্দরে প্রবাসী যাত্রীদের করোনা শনাক্তকরণ পরীক্ষা।

 



 

Show all comments
  • Mohahammad Islam ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০৯ এএম says : 0
    Without prime minister order nothing is happening in Bangladesh , what about ministers, and government worker ? They having salary every month, why government paying for them , everything is doing prime minister ?if you check deeply easy to fiend out everyone has million taka property in Dhaka ,
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রধানমন্ত্রী


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ