Inqilab Logo

বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৪ কার্তিক ১৪২৮, ১২ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

নেছারাবাদে ইলিশের বাজার জমজমাট

মাছের ধারে ভীড়ছেন না নিম্ন আয়ের লোকেরা

নেছারাবাদ (পিরোজপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১১:৫৩ এএম

আসছে ৪ অক্টোবর থেকে মোট বাইশ দিন নদ-নদীতে ইলিশ ধরার বন্ধ থাকার ঘোষণায় শেষ সময়ে নেছারাবাদে ইলিশের বাজার জমজমাট হয়ে উঠছে। মাছের দাম অনেকটা নাগালের বাইরে থাকায় মাছ কিনছেন না নিম্ন আয়ের মানুষেরা। তবে মাছ কেনার প্রতিযোগীতায় আছেন, মধ্যবিত্ত থেকে শুরু করে উচ্চ বিত্তরা। তারা সাধ্য অনুযায়ী ইলিশ কিনে বাড়ীতে ফ্রীজজাত করছেন। মা ইলিশ সংরক্ষণে আগামী বাইশ দিন ইলিশ ধরা নিষেধাজ্ঞা থাকায় বাজারে ইলিশ কেনার এ হুলস্থূল কান্ড চলছে।

নেছারাবাদ (স্বরূপকাঠি) দক্ষিণ জগন্নাথকাঠি বাজারের ইলিশ মাছ ব্যবসায়ী সেন্টু মিয়া (৪২) জানান, বাজারে ইলিশের খুব চাহিদা। কিন্তু চাহিদার তুলনায় বাজারে যোগান খুবই কম। এখানে ১ কেজি একশ গ্রামের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে এগারশো টাকা থেকে হাজার থেকে বারশত টাকা, পাঁচশ গ্রাম থেকে ছয়শ গ্রামের ওজনের ইলিশ সাতশ টাক, আটশ গ্রাম থেকে নয়শ গ্রামের ওজনের মাছ বিক্রি হচ্ছে সাড়ে নয়শ থেকে এক হাজার টাকা। আর আড়াইশ থেকে তিনশ গ্রামের ওজনের মাছ সাড়ে তিনশ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে তিনি জানান, বাজারে আসা কেজির উপরের ইলিশে পেট ভর্তি ডিম রয়েছে।

আকলম গ্রামের ইলিশ মাছ ক্রেতা মো: এনায়েত হোসেন সোমবার বাজারে এসে মাঝারি সাইজের তিনটি ইলিশ কিনেছেন। বাড়ীতে মেহমান আসবে তাই তিনটি ইলিশ কিনেছি। তিনি বলেন, ইলিশের দাম অনেকটা বেশি। সামনে অবরোধ উপলক্ষে অনেকেই ইলিশ কিনছে। তবে বাজারে আসা বড় ইলিশের পেটে ডিম ভর্তি রয়েছে। তাই বড় ইলিশ কিনিনি।

উপজেলার জলাবাড়ী ইউনিয়নের কামারকাঠি গ্রামের ইলিশ শিকারি মো: সুমন(৪০) বলেন, কয়েকদিন নদীতে তেমন মাছ পাইতামনা। গত দু'দিন ধরে দিনে রাতে জাল পাতার জন্য জোয়ারের মোট দু'টি গোন পাই। গড়ে দু'টি গোনে ছয় কেজি থেকে সাড়ে ছয় কেজি মাছ পাই। তবে মহাজনের কাছ থেকে আগে থেকে দাদন নিয়েছিতো। তাই দাম আশানুরূপ দাম পাইনা।

মাছ ব্যবসায়ী আসলাম বলেন, সামনে বাইশ দিন অবরোধ। তাই এসময়ে বাজারে ইলিশ মাছের চাহিদা বেশি। তবে বাজারে চাহিদার তুলনায় যোগান খুবই কম। এক কেজি ওজনের ইলিশ এগারশ টাকা, পাঁচশ গ্রাম থেকে ছয়শ গ্রামের ওজনের মাছ সাতশ থেকে সাড়ে সাতশ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া দুইশ গ্রাম থেকে তিনশ গ্রামের ওজনের মাছ তিনশ থেকে সাড়ে তিনশ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ছোট সাইজের ইলিশের চাহিদা বাজারে বেশি। কারণ এই ছোট ইলিশ সব শ্রেণীর ক্রেতাদের সামর্থ্যের ভিতরে। আর বড় ইলিশ টার্গেট করে কিনে নিয়ে যাচ্ছেন মধ্যবিত্ত ও উচ্চ বিত্তরা। তারা একসাথে পাঁচটি থেকে সাতটি বড় ইলিশ এবং সাত থেকে আট কেজি মাজারি ছোট সাইজের ইলিশ কিনে নিয়ে যাচ্ছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পিরোজপুর


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ