Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০ কার্তিক ১৪২৮, ১৮ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

সিলেটে এমসি একাডেমীতে শিবিরের তকমা দিয়ে দাঁড়ি টুপি নিয়ে ছাত্রদের কটূক্তি করলেন শিক্ষক

কঠোর আন্দোলনের হুমকি

সিলেট ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:১৪ পিএম

সিলেটের গোলাপগঞ্জ পৌর এলাকার স্বনামধন্য ‘এমসি (মোহাম্মদ চৌধুরী) একাডেমি মডেল স্কুল এন্ড কলেজ’র এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে দাড়ি-টুপি নিয়ে অভিযোগ ওঠেছে কটূক্তির। জামাত শিবির তকমা দিয়ে ক্লাসে ৫ ছাত্রকে দাড়ি টুপি নিয়ে বিস্তর কটূক্তি করেন তিনি। এ নিয়ে গতকাল সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিন্দা ও প্রতিবাদের বইছে ঝড়। এহেন ঘটনায় ‘কঠোর’ আন্দোলনের হুমকিও দিচ্ছেন প্রতিবাদী লোকজন। তবে বিষয়টি নিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে বর্তমান শিক্ষার্থীদের শান্ত করার চেষ্টা করেন এমসি একাডেমির ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ সুজিত কুমার তালুকদার। প্রতিষ্ঠানের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে একটি ক্ষুদেবার্তা প্রদান করেন তিনি। এতে তিনি বলেন, ‘স্নেহের ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ, আমি প্রাতিষ্ঠানিক কাজে ঢাকায় ছিলাম। আজ দুপুরে বাসায় এসেছি। কিছুক্ষণ আগে এমসি একাডেমির একটি বিষয় আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। এমসি একাডেমি একটি স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান। আগামীকাল আমি প্রতিষ্ঠানে এসে তোমাদের সাথে নিয়ে আমরা দেখবো। এখন পরীক্ষার্থীসহ কলেজ সেকশনের আমার যে সকল ছাত্র ফেইসবুকে এ কমেন্ট করছো তা প্রতিষ্ঠানের কথা বিবেচনা করে ডিলিট করে দাও। এটা তোমাদের প্রতি আমার বিশেষভাব অনুরোধ। তা না হলে মানুষের মনে প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে বিরূপ মনোভাবের সৃষ্টি হবে। বিষয়টি আমরা সবাই বসে গুরুত্ব দিয়ে দেখবো। আশা করি তোমরা আমার কথাটি দায়িত্ব নিয়ে বিবেচনা করবে। সবাই ভালো থেকো।’ এদিকে, স্কুল কর্তৃপক্ষ আজ মঙ্গলবার এ বিষয়ে জরুরি এক বৈঠক অনুষ্ঠিত বসবে। বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হবে এবং নেয়া হবে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ। এমসি একাডেমির সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের ফেসবুকে দেয়া পোস্টের ভিত্তিতে জানা গেছে, সোমবার এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির ১০ম শ্রেণির মানবিক শাখার ৫ জনের কাছে মোবাইল পান একজন শিক্ষক। এই ৫ জনের মধ্যে একজনের মুখে দাড়ি ও মাথায় ছিল টুপি।


তখন ওই স্যার এ ছাত্রকে জামাত-শিবির তকমা দিয়ে দাড়ি-টুপি নিয়ে শুরু অকথ্যভাষায় গালিগালাজ। ছাত্রটি তখন ওই স্যার বলেন, সে তবলীগে ছিলো এবং প্রমাণস্বরূপ তার সঙ্গে থাকা কিছু কাপড়ও সে স্যারকে প্রদর্শন করে। কিন্তু ওই স্যার এতে কর্ণপাত না করে চরম অপমান করে ১০-১৫ মিনিট যাবত গালিগালাজ করেন তাকে। সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের অভিযোগ- ওই স্যারের মূল উদ্দেশ্য ছিল দাড়ি-টুপির বিরুদ্ধে।

সেকারনে কৌশলে শিবির তকমা সংযোজন করে নিজকে প্রগতিশীল হিসেবে আড়াল করতে চাইছিলেন তিনি। অথচ ৫জনের কাছে মোবাইল পেয়েছেন ওই শিক্ষক। তাই ৫ জনকেই সমানভাবে শাস্তি না দিয়ে কেন শুধু দাড়ি-টুপিওয়ালা ছাত্রকেই টার্গেট করলেন কেন ? এর আগেও ওই স্যার এমন কান্ড করেছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে ভূক্তভোগীদের। এদিকে, ঘটনাটি চাউর হলে এমসি একাডেমির সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের মধ্যে ক্ষোভ
ছড়িয়ে পড়েছে। প্রতিবাদের ঝড় তুলেন ফেসবুকে। অনেকেই এমসি একাডেমির সামনে অবস্থান নিয়ে ‘কঠোর’ আন্দোলনের হুমকি পর্যন্ত দেন আজ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কটূক্তি

১০ ডিসেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন