Inqilab Logo

শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২১ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

স্বপ্নযাত্রার শুরু স্বস্তির জয়ে

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০০ এএম

সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে টুর্নামেন্টে শুভসূচনা করেছে বাংলাদেশ। গতকাল মালদ্বীপের রাজধানী মালে জাতীয় স্টেডিয়ামে টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচে বাংলাদেশ ১-০ গোলে হারায় লঙ্কানদের। বিজয়ীদের তারকা ডিফেন্ডার তপু বর্মণ পেনাল্টি থেকে জয়সূচক গোলটি করে দলকে মূল্যবান পয়েন্ট এনে দেয়ার পাশাপাশি পান ম্যাচ সেরার পুরস্কারও।
দীর্ঘ ১৮ বছর পর সাফে এবার শিরোপায় চোখ লাল-সবুজদের। টুর্নামেন্টের ফাইনালে খেলার স্বপ্ন নিয়েই মালদ্বীপে গেছেন জামাল ভূঁইয়ারা। শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে স্বপ্নপূরণে একধাপ এগিয়ে গেলেন তারা। যদিও লঙ্কানদের বিপক্ষে আরও বড় ব্যবধানের জয় পাওয়া উচিত ছিল। কিন্তু বাংলাদেশের ফরোয়ার্ডরা বেশ ক’টি গোলের সুযোগ পেয়েও তা কাজে লাগাতে না পারায় নূন্যতম ব্যবধানের জয়ই আসলো। তাও এনে দিলেন ডিফেন্ডার তপু।
ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবল উপহার দিয়ে জামাল-তপুরা বারবার হানা দেন লঙ্কান রক্ষণদূর্গে। তাদের একের পর এক আক্রমণে প্রায় দিশেহারা হয়ে যান শ্রীলঙ্কার ডিফেন্ডাররা। ৮ মিনিটে ইয়াসিন আরাফাতের লম্বা থ্রো-ইন থেকে তপু বর্মণের প্রচেষ্টা বাধাপ্রাপ্ত হয় লঙ্কান রক্ষণে। পেনাল্টির আবেদন করলেও রেফারি তাতে সায় দেননি। পরের মিনিটে আরেকটি থ্রো-ইন আদায় করে নেয় বাংলাদেশ। এসময় ডান প্রান্ত থেকে বিশ^নাথ ঘোষের উড়ন্ত থ্রোয়ে লঙ্কান এক খেলোয়াড়ের গায়ে লেগে বল চলে যায় গোলরক্ষণ ও অধিনায়ক সুজান পেরেরার হাতে। বাংলাদেশের আক্রমণের জবাবে লঙ্কানরা মাঝে-মধ্যেই চেষ্টা করেছে। কিন্তু সফল হতে পারেনি। ২০ মিনিটে শ্রীলঙ্কার হারাশা ফার্নান্দোর জোরালো শট ক্রসবারের অনেক ওপর দিয়ে গেলে হতাশ হয় তারা। দুই মিনিট পর জামাল ভূঁইয়ার শটও ক্রসবারের অনেক উপর দিয়ে যায়। তীব্র গরমের জন্য ম্যাচের ২৬ মিনিটে এক মিনিটের জন্য কুলিং ব্রেক দেন রেফারি। ২৯ মিনিটে রাকিবের জোরালো শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে গোলের জন্য অপেক্ষা বাড়ে লাল-সবুজদের। ধারাবাহিক আক্রমণের মুখে ৩৫ মিনিটে গোলের সুযোগ পেয়েও তা নষ্ট করেন সুমন রেজা। এসময় সতীর্থের কাছ থেকে বল পেয়ে শ্রীলঙ্কান বক্সের খুব কাছে গিয়ে তালগোল পাকিয়ে ফেলেন সুমন। প্রথমার্ধের যোগকরা সময়ে (৪৫+২ মিনিট) ম্যাচের সবচেয়ে ভালো সুযোগ পায় লাল-সবুজরা। মাঝমাঠ থেকে ইয়াসিন আরাফাতের ক্রস করলে তপু বর্মণ দৌঁড়ে এসে হেড নেন। কিন্তু তার হেড লঙ্কান গোলরক্ষক সুজন পেরারা প্রতিহত করলে গোলের দেখা পায়িনি বাংলাদেশ। প্রথমার্ধে বল দখলের লড়াইয়ে বাংলাদেশ এগিয়ে থাকলেও ফরোয়ার্ডদের ব্যর্থতায় গোল পায়নি। প্রতিপক্ষের সীমানায় গেলেই যেন বারবার খেই হারিয়ে ফেলেন জামাল ভ‚ইয়রা। গোল করার মতো ভাল সুযোগ সৃষ্টি করেও সফল হচ্ছিলেন না। বারবার লক্ষ্যহীন শটে ফিনিশিংয়ের দুর্বলতা ফুটে ওঠে লাল-সবুজদের। বাঁ প্রান্ত দিয়ে আক্রমণ করে শ্রীলঙ্কার রক্ষণভাগকে এলোমেলো করে দেন মিডফিল্ডার রাকিব হোসেন। কিন্তু তাতেও কাজ হচ্ছিল না। বিপরীতে বল দখলে পিছিয়ে থাকলেও যে কয়েকটি আক্রমণ করেছে শ্রীলঙ্কা তা থেকে প্রথমার্ধে দুটি কর্ণার আদায় করে নেয় তারা। কাজের কাজ কিছুই হয়নি। ফলে গোলশূন্য অবস্থায় বিরতিতে যায় দু’দল। দ্বিতীয়ার্ধে একাদশে একটি পরিবর্তন আনেন বাংলাদেশ কোচ অস্কার ব্রুজোন। জুয়েল রানার পরিবর্তে তিনি মাঠে নামান সাদ উদ্দিনকে। এই অর্ধেও শুরু থেকেই আক্রমণের ধারা অব্যাহত রাখেন জামালরা। অবশেষে দ্বিতীয়ার্ধের এগারো মিনিটের মধ্যে গোলের দেখা মেলে। ম্যাচের ৫৫ মিনিটে বিপলু আহমেদের শট লঙ্কান ডিফেন্ডার ডাকসন পুসলাস হাত দিয়ে প্রতিহত করার চেষ্টা করলে ে সিরিয়ান রেফারি ফেয়ার্স টাওয়েল পেনাল্টির বাঁশি বাজান। লঙ্কান ফুটবলাররা রেফারির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানান। এতে আরো বিপদ ডেকে আনেন তারা। হ্যান্ডবল করা ডাকসনকে আরেকটি হলুদ কার্ড দেখান রেফারি। ফলে দুই হলুদ কার্ডের সুবাদে মাঠ ছাড়তে হয় ডাকসনকে। দশজনের দলে পরিণত হয় শ্রীলঙ্কা। ৫৬ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে বাংলাদেশকে এগিয়ে নেন তপু (১-০)। শেষ পর্যন্ত তার একমাত্র গোলই ব্যবধান গড়ে দেয়। ফলে জয়ের আনন্দ নিয়েই মাঠ ছাড়েন জামাল ভূঁইয়ারা। আগামী সোমবার নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে শক্তিশালী ভারতকে মোকাবেলা করবে বাংলাদেশ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: স্বস্তির জয়
আরও পড়ুন