Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৪ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী

নিজেদের ভুলের ব্যাখ্যা প্রকাশ নিউ ইয়র্ক টাইমস সিএনএনের

কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির নামে ছাত্রের ভুয়া টুইট

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০৩ এএম

নিউইয়র্ক টাইমস এবং সিএনএনসহ বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যম কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর বলে দাবি করা একটি ভুয়া টুইটার অ্যাকাউন্টের পরে ব্যাখ্যা দিতে বাধ্য হয়েছে। দ্য ন্যাশনাল পত্রিকা অনুসারে, ২১ সেপ্টেম্বর একটি যাচাই না করা অ্যাকাউন্ট থেকে কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনিযুক্ত ভাইস চ্যান্সেলর মোহাম্মদ আশরাফ ঘাইরাতের সাথে যুক্ত বলে দাবি করা একটি টুইট পোস্ট করেছে যা পশ্চিমা গণমাধ্যম দ্রুত তুলে নেয়।
এমনই একটি টুইটে লেখা ছিল: ‘ভাইসব! আমি আপনাকে কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর হিসেবে আমার কথাগুলো বলছি: যদি সবার জন্য সত্যিকারের ইসলামী পরিবেশ না দেওয়া হয়, তাহলে নারীদের বিশ্ববিদ্যালয়ে আসতে বা কাজ করার অনুমতি দেওয়া হবে না। প্রথমে ইসলাম’।

টুইটটি দ্রুত মনোযোগ আকর্ষণ করে এবং নিউ ইয়র্ক টাইমস তুলে নেয়, যা একটি কঠোর গোষ্ঠীর অধীনে নারী শিক্ষার ভাগ্য তুলে ধরে ‘কাবুল বিশ্ববিদ্যালয় নতুন তালিবান চ্যান্সেলর নারীদের শিক্ষায় বাধা দিচ্ছেন’ শিরোনামে একটি পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

তবে, ইভেন্ট চলাকালীন সময়ে একটি সিনেমার বাইরে, টুইটার অ্যাকাউন্ট চালানো ব্যবহারকারী পরে স্বীকার করেন যে, তিনি কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি নন। পরিবর্তে, একই অ্যাকাউন্ট থেকে টুইট করে তিনি বলেন, তিনি ২০ বছর বয়সী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র যিনি ‘ভগ্ন হৃদয় এবং হতাশ’।
টুইটার থ্রেডে তিনি ব্যাখ্যা করেন যে, যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশে তালেবানের সঙ্গে তার কোনো ভবিষ্যত নেই। তিনি বলেন, ‘আমি কাবুলে বড় হয়েছি, আমি স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়েছি, আমার স্বপ্ন ছিল আফগান সমাজ ও রাজনীতিতে একজন প্রভাবশালী ব্যক্তি হওয়া। কিন্তু এখন আমার সব ইচ্ছার দিকে নজর দিন’।

মাহমুদ ছদ্মনামে স্নাতক এই ছাত্র দ্য ন্যাশনালের সাথে কথা প্রসঙ্গে বলেন, তিনি আফগান শিক্ষা বন্ধ করার জন্য অ্যাকাউন্টটি স্থাপন করেছিলেন। কাবুল থেকে ফোনালাপে মাহমুদ দ্য ন্যাশনালকে বলেন, আফগানিস্তানে এ মুহূর্তে যা ঘটছে তা সত্যিকারের রসিকতা। এটা হাস্যকর’। আমাদের নেতারা সব দেশ ছেড়েছেন আর আমরা তালেবানের মুখোমুখি হয়েছি।

প্রকাশনাটি তাকে উদ্ধৃত করে বলেছে যে, তার দাবিগুলো প্রশ্নবিদ্ধ হয়নি, কারণ তিনি ‘কেবলমাত্র তালেবানরা যা ভাবছিল তা টুইট করছে’।
ইতোমধ্যে, নিউ ইয়র্ক টাইমস গল্পের প্রথম সংস্করণ সম্পর্কিত নিবন্ধের ওপরে একটি সম্পাদকের নোট প্রকাশ করেছে। ‘এ নিবন্ধের পূর্ববর্তী সংস্করণ এবং এর শিরোনামটিতে কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনিযুক্ত চ্যান্সেলর মোহাম্মদ আশরাফ ঘাইরাত দাবি করে এমন একজন ব্যক্তির মন্তব্য অন্তর্ভুক্ত ছিল, যে বলেছিল যে, মহিলাদের কলেজে কর্মস্থলে বা ক্লাসে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে না।

নোটে বলা হয়েছে, ‘টুইটার অ্যাকাউন্টে ঘাইরাতের নামে পোস্ট করা মন্তব্যগুলো অন্তর্ভুক্ত ছিল। নিশ্চিতকরণের জন্য চ্যান্সেলর অফিস এবং তার শীর্ষ সহযোগীকে বেশ কয়েকটি কল করা হয়েছিল, সহকারী বলেছিলেন যে, চ্যান্সেলর মিডিয়ার সাথে কথা বলবেন না। তালেবান মুখপাত্র অ্যাকাউন্টের দাবি অস্বীকার করেননি।
তিনি যোগ করেছেন যে, নিবন্ধটি প্রকাশিত হওয়ার পরে অ্যাকাউন্টের সত্যতা প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছিল। তিনি বলেন, ‘স্কুল নীতি সম্পর্কে তার অবস্থান নিশ্চিত করতে টাইমস বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলরের কাছে পৌঁছাতে ব্যর্থ হয়েছে এবং সামাজিক মিডিয়া পোস্ট সম্পর্কে সন্দেহ প্রকাশের জন্য নিবন্ধটি সম্পাদনা করা হয়েছে’।

সিএনএন অনুরূপ সংশোধন করেছে এবং তার ওয়েবসাইটে গল্পটি আপডেট করেছে। গল্পের পূর্ববর্তী সংস্করণ এবং শিরোনাম ভুলভাবে কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলরের টুইটার অ্যাকাউন্টকে দায়ী করা হয়েছিল। সিএনএন পরে জানতে পারে যে, অ্যাকাউন্টটি চ্যান্সেলর বা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে সম্পর্কিত নয়। তিনি একটি নোটে বলেছেন, গল্পটি আপডেট করা হয়েছে।

তালেবানের একজন মুখপাত্র বিলাল করিমি বৃহস্পতিবার সিএনএনকে বলেছেন যে, টুইটার অ্যাকাউন্টটি ভুয়া এবং এর বিষয়বস্তু প্রত্যাখ্যান করেছে। উপরন্তু, কাবুল বিশ্ববিদ্যালয় এবং তালেবানের উচ্চশিক্ষা মন্ত্রণালয় মঙ্গলবার ফেসবুকে বিবৃতি প্রকাশ করে। এতে অস্বীকার করেছে যে, ঘাইরাতের কোনো সামাজিক মিডিয়া অ্যাকাউন্ট রয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, তার নামে যে কোনো পেজ চালানো হচ্ছে ভুয়া খবর ছড়ানোর উদ্দেশ্যে। সূত্র : ডন অনলাইন।



 

Show all comments
  • Adiyan Molla ৩ অক্টোবর, ২০২১, ৩:৪৭ এএম says : 0
    its Very bad. CNN is a bias news portal
    Total Reply(0) Reply
  • মিরাজ আলী ৩ অক্টোবর, ২০২১, ৩:৪৯ এএম says : 0
    তালেবান নিয়ে মিথ্যাচার করতে বিধর্মী কোনো মিডিয়ায় পিছপা হয় না।
    Total Reply(0) Reply
  • তোফাজ্জল হোসেন ৩ অক্টোবর, ২০২১, ৩:৫০ এএম says : 0
    এই রকম কথ ভুল করেছে তার কোনো ঠিক নাই। মিথ্যা ছড়িয়ে কোনো লাভ হবে না।
    Total Reply(0) Reply
  • নোমান মাহমুদ ৩ অক্টোবর, ২০২১, ৩:৫০ এএম says : 0
    সকল ষড়যন্ত্র খেকে আল্লাহ তালেবানকে রক্ষা করুক।
    Total Reply(0) Reply
  • সাইফুল ইসলাম ৩ অক্টোবর, ২০২১, ৩:৫১ এএম says : 0
    তালেবানরা অপপ্রচারের শিকার।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাবুল

১৬ নভেম্বর, ২০২১
৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন