Inqilab Logo

বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৫ মাঘ ১৪২৮, ১৫ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

স্ত্রীর বিরহে পালিয়ে গেলেন পাহাড়ে

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ অক্টোবর, ২০২১, ৯:৫৭ এএম

সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৩ হাজার ৩৫০ ফুট উঁচুতে স্কটল্যান্ডের বুশাইল্লে এটিভ মার পাহাড়ের চূড়া। পাহাড় বেয়ে সম্প্রতি সেখানেই গিয়ে হাজির হয়েছিলেন ৮১ বছর বয়সী নিক গার্ডনার।

চূড়ায় দাঁড়িয়ে নিচে তাকিয়ে মেঘের ফাঁক দিয়ে ছোট পাহাড়গুলোর মাথা, লেক আর উপত্যকা দেখছিলেন তিনি। আর বলছিলেন, ‘প্রতিবারই এটা দারুণ এক উত্তেজনার মুহূর্ত। আমি এখনও একটা ছোট্ট বালকের মতো এটা অনুভব করি।’

তীব্র ঠাণ্ডা বাতাস তখন আছড়ে পড়ছিল গার্ডনারের গায়। এবার তিনি তার টুপি, হাতের গ্লাভস আর বাতাস নিরোধক জ্যাকেট বের করে বললেন, ‘উষ্ণ আরামদায়ক একটি বাড়িতে থাকার চেয়ে আমি এখানেই বেশি আসতে চাইবো।’


একসময় যুক্তরাজ্যের ইংল্যান্ডে থাকতেন গার্ডনার। ৫০ বছর বয়সে স্ত্রী জেনেটকে নিয়ে স্কটল্যান্ডের পাহাড়ি এলাকায় এসে বসবাস শুরু করেন। পাহাড়ের প্রতি টান তার ছোটবেলা থেকেই।

২০১৮ সালে গার্ডনারের স্ত্রীর অ্যালঝেইমার রোগ ধরা পড়ে। একসময় তিনি শিক্ষকতা করতেন। দুই বছর চিকিৎসার পর জ্যানেটের অবস্থা হয় আরও খারাপ। তাকে এখন ২৪ ঘণ্টাই হাসপাতালে চিকিৎসকের নিবিড় পর্যবেক্ষণে থাকতে হয়।

জেনেটের এমন অবস্থা দেখে দারুণভাবে ভেঙে পড়েছিলেন গার্ডনার। জেনেটকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর তিনি বুঝতে পারছিলেন না, তার ঠিক কী করা প্রয়োজন। কারণ বিগত ৩০ বছর ধরেই প্রত্যেকটি ঘণ্টা তারা একসঙ্গে কাটিয়েছেন। জীবন টিকিয়ে রাখার জন্য একটি চ্যালেঞ্জের প্রয়োজন বোধ করলেন গার্ডনার।

জেনেটের স্মৃতি মনে করে গার্ডনার বলেন, ‘হঠাৎ করেই সে চলে গেল।’

অবশেষে এই পাহাড়ে চড়াই গার্ডনারকে কিছুটা জীবনী শক্তি দিল। তিনি বলেন, ‘আমি এমন কিছুই খুঁজছিলাম। তা না হলে আমার মাথা খারাপ হয়ে যেত! আমি এটা জানি।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুক্তরাজ্য


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ