Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৪ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

মহাসচিব পদ নিয়ে জাপায় তোলপাড়

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০১ এএম

করোনায় আক্রান্ত হয়ে জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুর মৃত্যুর পর কে হচ্ছেন জাতীয় পার্টির (জাপা) মহাসচিব? এ নিয়ে দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে যখন আলোচনা চলছে; তখন খবর আসে দলের নতুন মহাসচিব হচ্ছেন গাইবান্ধা-১ আসনের এমপি ব্যারিষ্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী। দলে নতুন এই নেতাকে মহাসচিব করা নিয়ে শুরু হয়েছে তোলপাড়। জাতীয় পার্টির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী দলের চেয়ারম্যান তার মনোনীত ব্যক্তিকে মহাসচিব পদে নিয়োগ দিতে পারেন। সেক্ষেত্রে জাপা চেয়ারম্যান জি এম কাদেরের হাতে রয়েছে সর্বোচ্চ ক্ষমতা।

জানা গেছে, প্রথম দিকে মহাসচিব হওয়ার দৌড়ের আলোচনায় মশিউর রহমান রাঙ্গাঁ, রুহুল আমিন হাওলাদার, ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারীর নাম শোনা উঠে আসে। তবে শেষ পর্যন্ত জাপা চেয়ারম্যান জিএম কাদের দলের অতিরিক্ত মহাসচিব ব্যারিস্টার শামীম পাটোয়ারীকে মহাসচিব নিয়োগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন বলে জানা গেছে। আর এতে দলের সর্বোচ্চ পর্যায় কো- চেয়ারম্যানসহ তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
জানা গেছে, শামীম পাটোয়ারীকে মহাসচিব করা হচ্ছে এ খবর প্রচার হওয়ার পর ৪ অক্টোবর দলের কো-চেয়ারম্যান কাজী ফিরোজ রশিদ এমপির কলাবাগারের বাসায় জাপার সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, বিরোধী দলীয় চীফ হুইপ সাবেক মহাসচিব মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গাঁ, রুহুল আমিন হাওলাদার, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, কাজী ফিরোজ রশীদ, সাইদুর রহমান টেপাসহ কয়েকজন শীর্ষ নেতা বৈঠক করেন। বৈঠকে বলা হয় শামীম পাটোয়ারী কয়েক বছর আগে দলে এসেছেন। তার মতো কম বয়সী ব্যাক্তিকে জাপার মতো দলের মহাসচিব নিয়োগ করা সমীচিন নয়।

এ সময় একজন কো চেয়ারম্যান বলেন, এইচ এম এরশাদ আর জিএম কাদের এক নয়। একশাদ একক ভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে মহাসচিব নিয়োগ দিতে পারেন। জিএম কাদের মতো নেতার সে অবস্থা নেই।
এ নিয়ে গণমাধ্যম কর্মীরা জানতে চাইলে মশিউর রহমান রাঙ্গাঁ বলেন, চেয়ারম্যান এককভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে দলের মহাসচিব নিয়োগ দিলে বনানী ও কাকরাইল কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেওয়া হবে। সেইসঙ্গে সারাদেশে দলের চেয়ারম্যান জিএম কাদের ও শামীম হায়দার পাটোয়ারীর কুশপুত্তলিকা জ্বালানো হবে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছক এক নেতা বলেন, জিএম কাদেরের সিদ্ধান্ত আমরা মানব না। দলে অনেক ত্যাগী শীর্ষ নেতা রয়েছেন। তাদের পাশ কাটিয়ে শামীম পাটোয়ারীকে দলের মহাসচিব নিয়োগ দিলে তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হবে।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন এক শীর্ষ নেতা বলেন, জাতীয় পার্টি অগ্নিপরীক্ষার সম্মুখীন। জিএম কাদেরের এবং শামীম পাটোয়ারীর এই দলের জন্য কী অবদান আছে? আমরা যারা বৈঠক করেছি, প্রত্যেকে দলের জন্য জেল খেটেছি, নির্যাতনের শিকার হয়েছি। এক সময় আমাদের বাড়িঘর লুট হয়েছ। হয়তো জিএম কাদের এসব ভুলে গেছেন। কারণ জাতীয় পার্টির দুর্দিনে তিনি কখনোই মাঠে-ঘাটে ছিলেন না। তিনি চেয়ারম্যান হওয়ার পর পার্টিকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিয়েছেন।

জাতীয় পার্টির কাকরাইলের কার্যালয়ে নিমমিত যাতায়াত করেন এমন একাধিক নেতা বলেন, মহাসচিব পদ নিয়ে বিরোধে জিএম কাদের সিদ্ধান্তের পরিবর্তন না করলে দলে ভাঙ্গন দেখা দিতে পারে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জাতীয় পার্টি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ