Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার , ২২ জানুয়ারী ২০২০, ০৮ মাঘ ১৪২৬, ২৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

দেওবন্দের আদলে কওমী স্বীকৃতি দিন

প্রকাশের সময় : ১১ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

দেশ ও জনস্বার্থে রামপাল রূপপুর প্রকল্পের বিষয়ে উপদেষ্টাদের কানকথা শুনবেন না-সরকারকে পীর সাহেব চরমোনাই
স্টাফ রিপোর্টার : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই জনমত উপেক্ষা করে রূপপুর পারমাণবিক কেন্দ্র চুক্তি ও রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনে গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, জনগণের মতামতের প্রতি বিন্দুমাত্র সম্মানবোধ না দেখিয়ে এবং জনমত উপেক্ষা করে বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে সরকারের একগুঁয়েমী মনোভাব দুঃখজনক। তিনি উপদেষ্টাদের কানকথা না শোনে দেশের স্বার্থে কাজ করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। রামপালে বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মিত হলে যে ক্ষতি হবে, সেকথা দেশবাসী প্রধানমন্ত্রীকে এটা বোঝাতে প্রতিবাদ চালিয়ে যাচ্ছেন।
তিনি বলেন, রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ হলে বাংলাদেশ একটি ভয়াবহ রাষ্ট্রে পরিণত হবে। তিনি বলেন, এটা কোনো দলীয় বিষয় নয়, জাতীয় স্বার্থে বিবেচনায় এ ধরণের প্রকল্প থেকে সরকারের সরে আসা উচিত। তিনি বলেন, রূপপুর পারমাণবিক কেন্দ্রও রামপাল বিদ্যুতের মত ক্ষতিকারক প্রকল্প। কাজেই রূপপুর পারমাণবিক কেন্দ্র স্থাপন চুক্তিও বাতিল করতে হবে।
দেওবন্দের আলোকে কওমী স্বীকৃতি
ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ বলেছেন, কওমী মাদরাসার স্বাতন্ত্রতা বজায় রেখে এবং দারুল ঊলুম দেওবন্দের মতো করে সনদের স্বীকৃতি দিতে হবে। অন্যকোনভাবে দিতে চাইলে তা মেনে নেয়া হবে না। তিনি বলেন, ঈমান ও ইসলাম বিধ্বংসী সিলেবাস চূড়ান্তকরণের চেষ্টা করলে ঈমানদার জনতা তা রুখে দাঁড়াবে। ঈমান ও ইসলামবিধ্বংসী সিলেবাসের বিরুদ্ধে ঈমানদার জনতা আজ ঐক্যবদ্ধ। ইসলামী জনতার সেন্টিমেন্টকে কোন প্রকার তোয়াক্কা না করে সিলেবাস বহাল রাখার চেষ্টা এবং পুরাতন সিলেবাসে নতুন বছরের বই বিতরণ করতে দেয়া হবে না। তিনি বলেন, কওমী সনদের স্বীকৃতির আগে নাস্তিক্যবাদী সিলেবাস বাতিলের ঘোষণা না দিলে আন্দোলন চলবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন