Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৪ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী

ভিয়েনা সংলাপের পেছনে ‌‘সময় নষ্ট’ করবে না ইরান

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ অক্টোবর, ২০২১, ১০:৩৭ এএম

অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় পরমাণু সমঝোতা পুনরুজ্জীবনের সংলাপে ফিরে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির-আব্দুল্লাহিয়ান। তবে একই সঙ্গে তিনি বলেছেন, ওই সংলাপের পেছনে তিনি নিজের সময় নষ্ট করবেন না।

আব্দুল্লাহিয়ান শুক্রবার লেবানন সফর শেষে বৈরুতে এক সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, সাইয়্যেদ ইব্রাহিম রায়িসির নেতৃত্বাধীন ইরানের বর্তমান সরকার কাজে বিশ্বাসী। এই সরকার পরমাণু আলোচনায় ইরানি জনগণের অধিকার পরিপূর্ণভাবে আদায় করতে চায়। এ কারণে আমরা সংলাপ শুরু করার আগে পরমাণু সমঝোতার প্রতিশ্রুতিতে পরিপূর্ণভাবে ফিরে আসার ব্যাপারে আমেরিকার পক্ষ থেকে সদিচ্ছার মনোভাব দেখতে চাই।

এর আগে গত সপ্তাহে আব্দুল্লাহিয়ান বলেছিলেন, আমেরিকাকে সদিচ্ছার মনোভাব হিসেবে দেশটিতে আটকে পড়া ইরানের এক হাজার কোটি ডলার ফেরত দিতে হবে।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শুক্রবার বৈরুতে আরো বলেন, আমরা আমেরিকার আচরণ গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছি। যদি তাদের আচরণে পরমাণু সমঝোতায় পরিপূর্ণভাবে ফিরে আসার প্রত্যয় দেখা যায় তাহলেই কেবল ভিয়েনা সংলাপের ভবিষ্যত নিয়ে আশাবাদী হওয়া যায়।

গত এপ্রিল থেকে জুন মাস পর্যন্ত ইরানের সাবেক প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি সরকার ভিয়েনায় পাশ্চাত্যের সঙ্গে ছয় দফা পরমাণু সমঝোতা পুনরুজ্জীবনের আলোচনা করেছে। কিন্তু তাতে পশ্চিমা দেশগুলোর পক্ষ থেকে নিজেদের ভুল স্বীকারের পরিবর্তে ইরানের কাছে বাড়তি দাবি-দাওয়া পেশ করা হয়েছে।

জুন মাসের নির্বাচনের মাধ্যমে নয়া প্রেসিডেন্ট রায়িসি ক্ষমতায় আসার পর থেকে ওই সংলাপ বন্ধ রয়েছে। আমেরিকা ও ইউরোপীয় দেশগুলো ওই সংলাপে ফিরে যাওয়ার জন্য ব্যাপকভাবে চাপাচাপি শুরু করলেও ইরান এ ব্যাপারে তড়িঘড়ি করতে নারাজ। তেহরান বলছে, পরমাণু সমঝোতা ২০১৫ সালে যেভাবে স্বাক্ষরিত হয়েছিল হুবহু সেভাবে বাস্তবায়ন করতে রাজি হলে ইরান এতে ফিরতে প্রস্তুত। তা না হলে আলোচনার নামে পাশ্চাত্যকে সময়ক্ষেপণ করতে কিংবা ইরানি জনগণের অধিকার নিয়ে খেলতে দেবে না তেহরান।

সূত্র: পার্সটুডে



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইরান


আরও
আরও পড়ুন