Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৬ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

সমন্বিত সরকার গঠনে প্রস্তুতি নিচ্ছে তালেবান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ অক্টোবর, ২০২১, ৪:৪৪ পিএম

আফগানিস্তানে একটি সমন্বিত সরকার গঠনে প্রস্তুতি নিচ্ছে তালেবান কর্তৃপক্ষ। কিন্তু, ওই সরকারে কে থাকবে বা কে থাকবে না তা নিয়ে পশ্চিমাদের নির্দেশনা মানবেন না তারা। শনিবার সংবাদ মাধ্যম আল-জাজিরাকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এই তথ্য জানিয়েছেন তালেবানের মুখপাত্র সুহেল শাহিন।

আফগানিস্তানে একটি সমন্বিত সরকার গঠনে পশ্চিমাদের চাপের প্রেক্ষিতে তালেবান কর্তৃপক্ষ গত মাসে জানিয়েছে, জাতিগত সংখ্যালঘু প্রতিনিধিদের নতুন তালেবান সরকারের মন্ত্রিসভায় স্থান দেয়া হবে। পরে নারীদেরও তালেবান সরকারে স্থান দেয়া হবে। তবে যুক্তরাষ্ট্র নতুন তালেবান সরকারে সাবেক আফগান সরকারের যে সকল সদস্যকে স্থান দেয়ার কথা বলেছে তাতে কোনো আগ্রহ দেখায়নি তারা।

এ বিষয়ে আল-জাজিরাকে তালেবান সরকারের মুখপাত্র ও জাতিসঙ্ঘে আফগান রাষ্ট্রদূত সুহেল শাহিন বলেন, আফগানিস্তানের জনগণ সরকারব্যবস্থা ও মন্ত্রিসভায় দেশের সব জাতিগোষ্ঠীর প্রতিনিধিদের অন্তর্ভূক্ত করতে প্রস্তুত আছে। একসময় সরকারে নারীদেরও যুক্ত করা হবে। কিন্তু নির্বাচনভিত্তিক সরকার কখনও জনগণ মেনে নেবে না; এবং বিশ্বকে অবশ্যই আফগান জনগণের এই আকাঙ্ক্ষাকে সম্মান করতে হবে।

সুহেল শাহিন এমন এক সময়ে এসব মন্তব্য করেছেন যখন তালেবান সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকি কাতারের দোহায় গেছেন দেশটির কর্মকর্তাদের সাথে সাক্ষাৎ করার জন্য। এ সময় তিনি বিভিন্ন দেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিদের সাথেও দেখা করবেন। ৩০ আগস্ট আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনাদের চলে যাবার পর যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাসহ অন্যান্য বিভাগের কর্মকর্তারা তালেবানের সাথে মুখোমুখি আলাপ করবেন।

এছাড়া নিরাপত্তা সংস্থাগুলোর সাথে সংশ্লিষ্ট আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন শক্তিগুলোর সাথে আলোচনা করবেন তালেবান কর্তৃপক্ষ। তালেবান কর্তৃপক্ষের গোয়েন্দা প্রধান মোল্লা আবদুল হক ওয়াসিক, তথ্যমন্ত্রী মোল্লা খায়রুল্লাহ খায়রখোয়া ও সংস্কৃতিমন্ত্রী শেখ শাহাবুদ্দিন দেলাওয়ার এসব আলোচনায় অংশ নিবেন।

গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার পর তালেবান কর্তৃপক্ষ নতুন সরকার গঠন করে। এ নতুন সরকারের নাম দেয়া হয় ইসলামিক আমিরাত ইন আফগানিস্তান। এরপর তালেবান কর্তৃপক্ষ আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পাওয়ার চেষ্টা করছে। কিন্তু, পশ্চিমা সরকারগুলো বলছে যে তারা নতুন তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেবে দেশটির নারী ও সংখ্যালঘুদের সাথে তাদের আচরণ অনুসারে। সূত্র: আল-জাজিরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: তালেবান


আরও
আরও পড়ুন