Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার , ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৭ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

বিসর্জনের মধ্যদিয়ে দুর্গাপূজা সমাপ্ত

প্রকাশের সময় : ১২ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো হিন্দুদের দুর্গাপূজা। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর পলাশী থেকে বিজয়া শোভাযাত্রা শুরু হয়। শোভাযাত্রা শেষে বুড়িগঙ্গা নদীতে প্রতিমা বিসর্জন দেয়া হয়।
আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কড়া নিরাপত্তার মধ্যে গতকাল মঙ্গলবার বিকেল ৩টা ৫০ মিনিটে এ শোভাযাত্রা শুরু হয়। হিন্দু ধর্মানুসারী শিশু-কিশোর-যুবক-বৃদ্ধরা রঙ-বেরঙের পোশাক ও গালে-কপালে সিঁদুর লাগিয়ে শোভাযাত্রায় অংশ নিয়েছেন। বাদ্যযন্ত্রের তালে তালে নাচছেন অনেকেই।
এর আগে রাজধানীর বিভিন্ন মন্দির থেকে ট্রাকে করে প্রতিমা নিয়ে পলাশী চত্বরে আসেন পুণ্যার্থীরা। এ সময় তারা বুড়িগঙ্গার উদ্দেশে যাত্রা শুরু করতে চাইলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলের সামনে পুলিশ বাধা দেয়। পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, রাজধানীতে যানজট এড়াতে ও নিরাপত্তাব্যবস্থা সমুন্নত রাখতে একসঙ্গে সব প্রতিমা বিসর্জন করা হবে। এর আগে ৩০ সেপ্টেম্বর বিজয়া শোভাযাত্রা সন্ধ্যার মধ্যে শেষ করে রাত ৯টার মধ্যে প্রতিমা বিসর্জন করতে আহ্বান জানিয়েছিল বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ। বিজয়ার পরের দিনই আশুরা। তাই উভয় ধর্মীয় উৎসবের পবিত্রতা রক্ষায় রাত ৯টার মধ্যে প্রতিমা বিসর্জন করতে আহ্বান জানানো হয়।
নওগাঁয় শেষ হলো দুর্গোৎসব
নওগাঁ জেলা সংবাদদাতা জানান, নওগাঁয় ছোট যমুনা নদীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যে দিয়ে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ৫ দিনব্যপী শারদীয় দূর্গোৎসব শেষ হয়েছে। এ বছরের মত শেষবার পূঁজাম-পে এসে তাই ভক্তরা দেবীর পায়ের সিঁদূরে নিজেদের ভক্তি শ্রদ্ধায় রাঙিয়ে নেয়। দেবীর বিদায়ে অনেকে আবেগে অশ্রু ভারাক্রান্ত হয়ে পড়েন। মঙ্গলবার বিজয়া দশমীর পূজা অর্চনা এবং সকল আন্ষ্ঠুানিকতা শেষ করে দুপুরের পর থেকে স্ব স্ব ম-পের প্রতিমাগুলো নৌকায় তোলা হয়।
নওগাঁ শহর ছাড়াও আশে পাশের বিভিন্ন গ্রাম উপজেলা থেকে এবং পার্শ¦বর্তী বগুড়া জেলার সান্তাহার থেকে বেশ কিছু প্রতিমা ব্যান ও ট্রাকে করে নওগাঁ’র ছোট যমুনা নদীতে আনা হয়। প্রতিমাবাহী নৌকা ছাড়াও ব্যক্তিগত, পারিবারিক এবং বিভিন্ন ক্লাব সংগঠন সমূহের প্রায় ৫ শতাধিক নৌকা নদীতে ভাসানো হয়। প্রায় ২ কিলোমিটার জুড়ে চলতে থাকে নৌ-বিহার। এসব নৌকায় ঢাকের শব্দ এবং মাইকের গানের শব্দে মুখরিত হয়ে উঠে এলাকা।
পাবনায় দুর্গা দেবীর বিসর্জন সম্পন্ন
পাবনা জেলা সংবাদদাতা : হিন্দু সম্প্রদায়ের বৃহৎ দুর্গাপূজা পাবনায় আনন্দঘন ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সম্পন্ন হয়েছে। জেলা শহরের বিভিন্ন ম-প, আব্দুল হামিদ সড়ককের বিভিন্ন স্থান, গাছ, ব্লিডিং বাড়ি-ঘর বর্ণালী আলোক সজ্জায় সজ্জিত করা হয়। বারোয়ারী মা ম-পের গেটের আলোসজ্জা ছিল দৃষ্টি নন্দন। এবার জেলায় ৩১২টি ম-পে পূজা উদযাপন করা হয়। পাবনা শহরের কেন্দ্রীয় মন্দির জয়কালী বাড়ি মন্দির, বারোয়ারি মা মন্দির, শিববাড়ী মন্দির, পল্টু ম-প, জাগৃতি মন্দির, রাধানগর মন্দির, ভাঙ্গাকালী বাড়ি মন্দিরসহ ৫৩টি ম-পে দুর্গা দেবীর পূজা করা হয়।
গোমস্তাপুরে শেষ হলো দূর্গাপূজা
গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) সংবাদদাতা জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার ২৬টি পূজাম-পে শান্তিপূর্ণভাবে শারদীয় দূর্গোৎসব সম্পন্ন হয়েছে। বিজয়া দশমীতে পূজাম-পগুলোতে ভিড় জমায় হিন্দু ধর্মালম্বীসহ বিভিন্ন ধর্মের লোকজন। সন্ধ্যার পর থেকে প্রতীমা বিসর্জন শুরু হয়। স্থানীয় প্রশাসন রাত ৯টার মধ্যে প্রতিমা বিসর্জনের অনুরোধ জানিয়েছে।
পার্বতীপুরে দেবী বির্সজন
পার্বতীপুর (দিনাজপুর) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, পার্বতীপুরে হিন্দু সম্প্রদায়ের পূন্যার্থীরা ম-পে ম-পে আনন্দ উল্লাসের মধ্যে দিয়ে কোন অপ্রীতিকর ঘটনায় ছাড়াই দূর্গাদেবীকে বির্সজনের মধ্যে দিয়ে শেষ হল শারদীয় দূর্গাপূজা উৎসব। পার্বতীপুরে ১০ ইউনিয়নও পৌরসভাসহ ১৭৪টি পূজাম-বে দূর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। আজ মঙ্গলবার শহর ও গ্রাম অঞ্চলে দুপুর থেকে শুরু হয়েছে দেবী বিসর্জন। তিলাইনদী, করতোয়া, যুমনাস্বরীসহ বিভিন্ন নদনদীতে প্রতিমা কে বিসর্জন দেয়।
জকিগঞ্জে প্রতিমা নিরঞ্জন
জকিগঞ্জ (সিলেট) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, বিজয়া দশমীতে সীমান্ত এলাকা সিলেটের জকিগঞ্জের কুশিয়ারা নদীর ভারত বাংলার দুই তীরের কাষ্টমঘাটে গতকাল মঙ্গলবার বসেছিলো দুই বাংলার মানুষের মিলনমেলা। চোখের জল আর হৃদয় নিংড়ানো ভালবাসায় দুর্গতিনাশিনী দেবী দুর্গাকে বিদায় জানাতে কুশিয়ারার দুই তীরে জড়ো হন হাজারো পূজারী ভক্ত অনুরাগী, দর্শনার্থী ও শুভার্থীরা। এ উপলক্ষে হিন্দু, মুসলিম পদচারনায় মূখরিত হয়ে উঠে জকিগঞ্জ পৌর শহরের কাষ্টমঘাট ও ভারতের কাষ্টমঘাটস্থ অখ- ম-লী মন্দিরের প্রাঙ্গণ। ধর্ম যার যার উৎসব সবার এ সত্য আবারো প্রমানিত হলো জকিগঞ্জে।
দূর্গাপুজা উপলক্ষে জমজমাট প্রতিযোগিতা
বোরহানউদ্দিন (ভোলা) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, ভোলার বোরহানউদ্দিনে শারদীয় দূর্গাপুজা উপলক্ষে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে জমজমাট গীতা পাঠ, আরতী নৃত্য ও ভক্তিমূলক গানের প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সোমবার রাতে ওই প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হয়। তিনটি বিভাগে উপজেলার ২ শত প্রতিযোগী ওই প্রতিযোগীতায় অংশ নেয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন