Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৬ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

নিখোঁজ হওয়ার ২২ বছর পর ছালেহা উদ্ধার

সরিষাবাড়ী(জামালপুর) সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১২ অক্টোবর, ২০২১, ১০:৫৯ এএম

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে নিখোঁজ হওয়ার ২২ বছর পর ছালেহা বেগম নামে এক মহিলাকে উদ্ধার করা হয়েছে । সরিষাবাড়ী থানার এসআই জাফর আহম্মদ মুন্সিগঞ্জ জেলা দায়রা জজ আদালতের এডভোকেট মোঃ দেলোয়ার হোসেনের বাড়ী থেকে সোমবার তাকে উদ্ধার করেন।

পুলিশ ও ছালেহার পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, সরিষাবাড়ী পৌর এলাকার চক বাঙ্গালী গ্রামের মরহুম বেলায়েত রাজের মেয়ে ছালেহা বেগম সুদীর্ঘ ২২ বছর পুর্বে ভাইয়ের সাথে রাগারাগী করে বাড়ী থেকে চলে যায়। আত্নীয় স্বজনরা দেশের বিভিন্ন জায়গায় খোজ খবর নিলে কোন সন্ধান পায়নি। বিভিন্ন জায়গায় খোজ খবর নিয়ে নিরাশ হয়ে পড়ে তার পরিবার। অবশেষে ছালেহা বেগম (৬৫) এর ভাই সামছুল আলম রাজ সরিষাবাড়ী থানায় গত ১০ অক্টোবর সাধারণ ডায়েরী করে। ডায়েরী নং - ৪৮৫, তারিখ-১০-১০-২০২১। এদিকে মুন্সিগঞ্জ জেলা দায়রা জজ আদালতের এডভোকেট মোঃ দেলোয়ার হোসেন তাকে দীর্ঘ ১০ বছর যাবৎ ছালেহাকে লালন পালন করে আসছে। মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়ায় ছালেহাকে তার পরিবারের কাছে পৌছাতে পারেনি এডভোকেট মোঃ দেলোয়ার হোসেন। সাধারণ ডায়েরী করার পরেই সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মীর রকিবুল হকের নির্দেশে তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই জাফর আহম্মদের নেতৃত্বে পুলিশ গিয়ে মুন্সিগঞ্জ জেলার কাঠাখালী গ্রামে এডভোকেট মোঃ দেলোয়ার হোসেন এর বাড়ী থেকে উদ্ধার করে ছালেহাকে। এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মীর রকিবুল হক বলেন,দীর্ঘ ২২ বছর পুর্বে ছালেহা বাড়ী থেকে চলে যায় । হঠাৎ কয়েকদিন আগে মুন্সিগঞ্জ জেলার কাঠাখালী গ্রামে এডভোকেট মোঃ দেলোয়ার হোসেন আমাদের জানালে আমরা খোজ খবর শুরু করি । ১০ অক্টোবর ছালেহার ভাই সামছুল আলম রাজ থানায় সাধারণ ডায়েরী করে। পরে থানা পুলিশ গিয়ে ছালেহাকে উদ্ধার করে ১১ অক্টোবর সোমবার তার স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে ।
ক্যাপশন-মুন্সিগঞ্জ থেকে উদ্দার হওয়া ছালেহা বেগমকে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করছেন ওসি রকিবুল হক ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: উদ্ধার


আরও
আরও পড়ুন