Inqilab Logo

রোববার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার অর্থই হলো সন্ত্রাসী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা : নাফতালি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ অক্টোবর, ২০২১, ৩:৪৩ পিএম

ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেত বলেছেন, ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করার অর্থ হবে সন্ত্রাসী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করা। গত রোববার জার্মানির বিদায়ী চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেলের ইসরাইল সফরে প্রধানমন্ত্রী বেনেতের সাথে সাক্ষাতের পর এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে অ্যাঙ্গেলা মেরকেল ফিলিস্তিনি ও ইসরাইলিদের মধ্যে সংকটের মীমাংসায় দুই রাষ্ট্রভিত্তিক সমাধানের প্রতি জার্মানির সমর্থনের কথা জানান।
জার্মানির চ্যান্সেলর হিসেবে বিদায় নেওয়ার আগে ইসরায়েল সফরে গেছেন আঙ্গেলা ম্যার্কেল। সফরে দেশটির প্রধানমন্ত্রী বেনেটের সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠকে ইরান, ফিলিস্তিনসহ নানা বিষয়ে আলাপ করেছেন তিনি।

পরে চ্যান্সেলর ম্যার্কেল রোববার বেনেটের সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলন করেন। সেখানে বলেন, ইরানের সঙ্গে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সই হওয়া পারমাণবিক চুক্তিকে পুনরুজ্জীবিত করতে জার্মানি এখনো প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। ম্যার্কেল এই মন্তব্য করলেও এ বিষয়ে ইসরায়েলের ঘোর আপত্তি রয়েছে। ইরানের পারমাণবিক ইস্যু ও ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠা নিয়ে ইসরায়েলের সঙ্গে জার্মানির মতপার্থক্য চলার মধ্যেই এ কথা বললেন তিনি।

আঙ্গেলা ম্যার্কেল বলেন, ফিলিস্তিনের সঙ্গে ইসরায়েলের কয়েক দশক ধরে চলা দ্বন্দ্ব-সংঘাত অবসানে দ্বিরাষ্ট্রীয় সমাধানই সেরা উপায় বলে মনে করে জার্মানি। তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে আমি মনে করি, বর্তমান পরিস্থিতিতে এ নিয়ে আশার তেমন কিছু না দেখা গেলেও দ্বিরাষ্ট্রীয় সমাধানের বিষয়টি আলোচনার টেবিল থেকে সরিয়ে ফেলা বা একে ধামাচাপা দেওয়া ঠিক হবে না। তা ছাড়া একটি রাষ্ট্র ছাড়া ফিলিস্তিনিরা নিরাপদে বসবাস করতে পারবে না।’

ম্যার্কেল আরও বলেন, অধিকৃত ফিলিস্তিন ভূখণ্ডে ইসরায়েলের ইহুদি বসতি স্থাপনের কার্যক্রমও ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংকট সমাধানে কোনো সহায়তা করেনি। সূত্র : মিডল ইস্ট মনিটর



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসরাইল


আরও
আরও পড়ুন