Inqilab Logo

বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২, ০২ ভাদ্র ১৪২৯, ১৮ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

দুইদিনে সহস্রাধিক অভিবাসন প্রত্যাশী উদ্ধার

লিবিয়ায় অভিবাসন প্রত্যাশীদের বিক্ষোভ, বাড়ছে আতঙ্ক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০৫ এএম

মাত্র দুইদিনে ইংলিশ চ্যানেল পাড়ি দেয়ার চেষ্টাকালে এক হাজার ১১৫ জন অভিবাসন প্রত্যাশীকে উদ্ধার করেছে কিংবা বাধা দিয়েছে যুক্তরাজ্য। দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় রবিবার এ খবর জানায়। চলতি বছরের শুরুতে যুক্তরাজ্যের ইউরোপীয় ইউনিয়ন ত্যাগের পর অধিক সংখ্যক অভিবাসন প্রত্যাশীর চ্যানেল পাড়ি দেয়ার কারণে যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্সের মধ্যে অব্যাহতভাবে উত্তেজনা বাড়ছে। ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষ শনিবার বলেছে, শুক্রবার ১৭ বার অভিযান চালিয়ে ৪৯১ জন এবং পরে আরো ২৩ বার অভিযান চালিয়ে ৬২৪ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। এদিকে এই দুই দিনে ফ্রান্স ৪১৪ জন অভিবাসন প্রত্যাশীর ব্রিটেন যাওয়া ঠেকিয়ে দিয়েছে। ফ্রান্স রবিবার বলেছে, তারা চ্যানেল পাড়ি দিতে উদ্যোগী হওয়া আরো ৩৪২ জনকে উদ্ধার করেছে। এ প্রেক্ষাপটে ফ্রান্সের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী গেরাল্ড ডারমানিন শনিবার ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও ব্রিটেনের মধ্যে অভিবাসন চুক্তির আহŸান জানিয়েছেন। ব্রিটেনের অভ্যন্তরীণ বার্তা সংস্থা পিএ বলছে, চলতি বছরের শুরু থেকে ছোট্ট নৌকায় করে ১৭ হাজারেরও বেশি লোক চ্যানেল পাড়ি দিয়ে ব্রিটেনে ঢুকেছে। এ সংখ্যা ২০২০ সালের মোট সংখ্যার দ্বিগুণ। এদিকে ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অভিবাসন বিষয়ে দেখভালকারী দলের প্রধান ডান ও’মাহোনি বিপদজনকভাবে চ্যানেল পাড়ি দেয়াকে অপ্রত্যাশিত উল্লেখ করে বলেছেন, সরকার তা প্রতিহত করতে বদ্ধপরিকর। আন্তর্জাতিক স¤প্রদায়ের সহযোগিতা চাইতে ত্রিপোলির জাতিসংঘ কেন্দ্রের সামনে অবস্থান নেন শত শত অভিবাসনপ্রত্যাশী। পুলিশের গুলিতে অন্তত ছয়জন নিহত হওয়ার পর লিবিয়া ছাড়তে মরিয়া তারা। এক সপ্তাহ আগে দেশটির রাজধানী ত্রিপোলির বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা অভিবাসনপ্রত্যাশীদের বিরুদ্ধে ব্যাপক অভিযান শুরু করে লিবিয়ার আইন-শৃংখলা বাহিনী। অভিযানে পাঁচ হাজারেরও বেশি অভিবাসন প্রত্যাশীকে আটক করে কারাগারে পাঠানো হয়। পাঁচ হাজারেরও বেশি অভিবাসনপ্রত্যাশীকে রাখায় ত্রিপোলির কারাগারে ভিড় অত্যন্ত বেড়ে যায়। শুক্রবার ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হয়ে যায় সেখানে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি চালালে অন্তত ছয়জন অভিবাসনপ্রত্যাশী নিহত হয় বলে জাতিসংঘের অভিবাসন সংক্রান্ত সংস্থা আইওএম জানায়। পিএ, রয়টার্স।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অভিবাসন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ