Inqilab Logo

শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২২, ১৪ মাঘ ১৪২৮, ২৪ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

কালকিনিতে আ.লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ

স্টাফ রিপোর্টার, মাদারীপুর থেকে : | প্রকাশের সময় : ১৩ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০৩ এএম

মাদারীপুরের কালকিনি চর দৌলতখান (সিডি খান) ইউনিয়নে আ.লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. চাঁন মিয়া সিকদারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল করেছে স্থানীয় আ.লীগের নেতা-কর্মীরা। এসময় ভূরঘাটা-মোল্লারহাট সড়কের বটতলা মোড়ের সড়কে ঘণ্টাব্যাপী টায়ার জ্বালিয়ে অবোরোধ করে পথসভা করেন বিক্ষুব্ধরা। গত সোমবার সন্ধ্যায় এক দফা ও গতকাল মঙ্গলবার সকালে আরেক দফা আন্দোলনে নামে বিক্ষুব্ধরা। এ ঘটনায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে এলাকায়।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, আগামী ১১ নভেম্বর মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার ১৩টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এরই মধ্যে কেন্দ্রীয় আ.লীগ থেকে দলীয় মনোনীত প্রার্থীদের নামের তালিকা প্রকাশ করেছে। এরমধ্যে সিডি খান ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পান বর্তমান চেয়ারম্যান মো. চাঁন মিয়া শিকদার। তার বিরোধিতায় মাঠে নামেন ইউনিয়ন আ.লীগের একটি বৃহৎ অংশ। শুরু হয় প্রতিবাদসহ বিক্ষোভ সমাবেশ। গত সোমবার বিকেল ৫টার দিকে প্রায় পাঁচ শতাধিক নেতা-কর্মী ও সাধারণ ভোটারদের নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন মনোনয়ন বঞ্চিত মিলন মিয়া।

এসময় বিক্ষুব্ধরা সিডি খান ইউনিয়ন থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে এলাকার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে ভূরঘাটা-মোল্লারহাট সড়কের বটতলা মোড়ে শেষ হয়। সেখানে সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে বিক্ষুব্ধরা। এসময় চাঁন মিয়া শিকদারের বিরুদ্ধে কটূক্তিমূলক স্লোগান দিতে শোনা যায়। এসময় প্রায় দেড় ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে কালকিনি থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। গতকাল মঙ্গলবার সকালেও বটতলা এলাকায় থেমে থেমে বিক্ষোভ করে আ.লীগের একাংশের নেতা-কর্মীরা।

পথসভায় বক্তব্য রাখেন কালকিনি উপজেলা আ.লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান সরদার, সিডি খান ইউনিয়ন আ.লীগের সহ-সভাপতি রশীদ কবিরাজ, ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়াজেদ সরদার, ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি রাসেল সরদার, মনোনয়ন বঞ্চিত মিলন মিয়া প্রমুখ।

কালকিনি উপজেলা আ.লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান সরদার বলেন, ‘আমরা ইউনিয়ন থেকে নেতা-কর্মীরা যাচাই-বাচাই করে মিলন মিয়ার নাম পাঠিয়েছি। কিন্তু কোন অপশক্তির জোরে চাঁন মিয়া নৌকার মনোনয়ন পাইলো, বুঝি না। যদি নৌকা টাকার কাছে বিক্রি হয়ে যায়, তাহেল আর দল করে কোন লাভ নাই। আমরা আ.লীগের লোকজন মিলন মিয়াকেই প্রার্থী করবো। নৌকা না পাইলেও সে আ.লীগের লোক’।
দলীয় মনোনয়নপ্রাপ্ত প্রার্থী মো. চাঁন মিয়া শিকদার বলেন, ‘আমি ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি, আমি তো উড়ে এসে জুড়ে বসি নাই। যারা আমার বিরোধিতা করছে, তাদের প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত হবে। নৌকা প্রধানমন্ত্রী আমাকে দিয়েছেন, আমি সেটা রক্ষা করে বিজয়ী হবো। কোন শক্তি আমাকে দমাতে পারবে না। এখন কিছু নেতারা আমাকে হেয় করার চেষ্টা করছে। তাদের আশা পূরণ হবে না’।

এ ব্যাপারে কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইশতিয়াক আসফাক রাসেল জানান, ‘ঘটনার পর থেকে ওই এলাকায় পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। নির্বাচনের আগ থেকেই সিডি খান ইউনিয়নকে অধিক ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। আমরা চেষ্টা করছি শান্তি বর্জায় রাখার জন্য’।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আ.লীগ প্রার্থী


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ