Inqilab Logo

রোববার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২২ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

মিয়ানমারকে আসিয়ান শীর্ষ সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানানো হবে না

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০২ এএম

আসন্ন আসিয়ান সম্মেলন থেকে মিয়ানমারের জান্তা প্রধানের নাম বাদ দেয়া হবে। গ্রæপটি শনিবার বলেছে, রক্তাক্ত সংঘাত বন্ধে সামরিক সরকারের পরিকল্পনার ব্যর্থতায় উদ্বেগ জানিয়ে তারা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অ্যাসোসিয়েশন অফ সাউথ ইস্ট এশিয়ান নেশনস (আসিয়ান) দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের জরুরি বৈঠকে শুক্রবার গভীর রাতে সিদ্ধান্ত নেয়া হয় যে, ২৬ থেকে ২৮ অক্টোবর অনুষ্ঠিতব্য শীর্ষ সম্মেলনে জান্তা প্রধান মিন অং হ্লাইংকে আমন্ত্রণ জানানো হবে না। আসিয়ানের বর্তমান চেয়ারম্যান ব্রুনাই এ কথা জানায়। খবরে বলা হয়, মিয়ানমার দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার যে জোটের সদস্য, সেই আসিয়ানের শীর্ষ সম্মেলনে এবার জান্তাপ্রধান মিন অং হ্লাই দাওয়াত পাচ্ছেন না। এপ্রিলে ইন্দোনেশিয়ায় হওয়া বিশেষ সম্মেলনে মিয়ানমারের সংকট নিরসনে হ্লাইং আসিয়ানের সঙ্গে যে যে বিষয়ে সমঝোতায় পৌঁছেছিলেন, তার কোনোটি বাস্তবায়িত না হওয়ায় বিরক্ত অনেক জোট সদস্যের চাপে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। শুক্রবার সদস্য রাষ্ট্রগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের এক বৈঠকে চলতি মাসের শেষদিকে হতে যাওয়া শীর্ষ সম্মেলনে মিয়ানমার থেকে অরাজনৈতিক প্রতিনিধি রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে জোটের বর্তমান সভাপতি ব্রুনেই। শীর্ষ সম্মেলনে মিয়ানমারের রাজনৈতিক প্রতিনিধিত্বের উপস্থিতি নিয়ে সদস্য রাষ্ট্রগুলো একমত হতে না পারায় এমন সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে, বলেছে তারা। বৈঠকে কর্মকর্তারা মিয়ানমারের জান্তাপ্রধানকে সম্মেলনের বাইরে রাখার সিদ্ধান্ত নেন বলে বেশ কয়েকটি সূত্র বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে আগেই জানিয়েছিল। ব্রুনেই তা আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত করে। অরাজনৈতিক প্রতিনিধিকে আমন্ত্রণ জানানোর এ প্রস্তাবে মিয়ানমারের জান্তা যদি সম্মতি না দেয়, তাহলে সম্মেলনে মিয়ানমারের আসন খালি রাখার সিদ্ধান্তও হয়েছে বলে দুটি সূত্র রয়টার্সকে নিশ্চিত করেছে। এপ্রিলে মিয়ানমার নিয়ে আসিয়ানের বিশেষ সম্মেলনে যে ৫টি বিষয়ে সমঝোতা হয়েছিল, সেগুলো হচ্ছে- সহিংসতার অবসান, সব পক্ষের মধ্যে একটি গঠনমূলক সংলাপ, সংলাপ সহজতর করতে আসিয়ানের বিশেষ দূত নিয়োগ, সহায়তা গ্রহণ ও ওই দূতের মিয়ানমার সফর। আসিয়ান এরই মধ্যে এরিওয়ান ইউসুফকে মিয়ানমার বিষয়ক বিশেষ দূত হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে। শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, দক্ষিণ কোরিয়া, যুক্তরাজ্য, নরওয়ে, পূর্ব তিমুর ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন মিয়ানমারের ‘ভয়াবহ পরিস্থিতি’ নিয়ে উদ্বেগ জানিয়ে যে যৌথ বিবৃতি দিয়েছে সেখানেও নেপিডোর প্রতি ইউসুফকে সহযোগিতা করতে আহŸান জানানো হয়েছে। তবে আসিয়ানের এই বিশেষ দূত চলতি মাসেও মিয়ানমার যাচ্ছেন না বলে জানিয়েছে বেশ কয়েকটি সূত্র। ইউসুফ চাইছেন মিয়ানমার গিয়ে অং সান সু চিসহ বিবদমান সব পক্ষের সঙ্গে দেখা করতে ও কথা বলতে। অন্যদিকে অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করা দেশটির বর্তমান সরকারের মুখপাত্র জ মিন তুন স¤প্রতি বলেছেন, ইউসুফকে মিয়ানমারে স্বাগত জানানো হবে, কিন্তু তাকে সু চির সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেওয়া হবে না। রয়টার্স।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মিয়ানমার

৩১ অক্টোবর, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ