Inqilab Logo

রোববার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

ভাঙারি হিসেবে বিক্রি হলো ৪৯টি ভলভো বাস

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ অক্টোবর, ২০২১, ১০:২৮ এএম

বিআরটিসির ২০ বছর আগে কেনা ৫০টি ভলভো বাসের ৪৯টিই ভাঙারি হিসেবে বেঁচে দেয়া হয়েছে। দীর্ঘদিন অকেজো পড়ে থাকায় এমন সিদ্ধান্ত সরকারি সংস্থাটির। অকেজো বাসগুলো সারাতে দফায় দফায় উদ্যোগ নেয়া হলেও ব্যয়বহুল হওয়ায় তা কার্যকর হয়নি। পরিবহন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নতুন বাস কেনার পর সেগুলো রক্ষণাবেক্ষণে শিথিলতার কারণেই কাঙ্ক্ষিত সেবা পাওয়া যায়নি।

বিআরটিসির মিরপুর ডিপোতে এবার একটিমাত্র ভলভো বাসের দেখা মিললো, তারও অবস্থা একেবারেই করুণ। জানা গেছে, সুপ্রিম কোর্টের স্টাফদের আনা-নেওয়ার কাজে বাসটি ব্যবহৃত হলেও আপাতত অকেজো সেটি।

বছর বিশেক আগে সুইডেন থেকে ৭০ কোটি টাকায় কেনা হয় আধুনিক সুবিধা সম্বলিত ৫০টি ভলভো বাস। সুইডিশ প্রতিষ্ঠানটির হিসেবে টানা ১২ বছর সেবা দেওয়ার কথা থাকলেও বিআরটিসির দাবি ওই বাসগুলো রাস্তায় ৭-৮ বছর চলেছে। একে একে বাসের যন্ত্রাংশগুলো অকেজো হতে শুরু করলে তা মেরামতের উদ্যোগও নিয়েছিলো প্রতিষ্ঠানটি। কিন্তু দেশে ভলভোর যন্ত্রাংশ দুষ্প্রাপ্য হওয়ায় সে প্রচেষ্টা ভেস্তে যায়। বিআরটিসি চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম জানালেন, সম্প্রতি অকেজো ৪৯টি ভলভো বাস ভাঙারি হিসেবে বিক্রি করে দিয়েছে বিআরটিসি।

ভাঙারি হিসেবে বিক্রি হওয়া বিআরটিসির ভলভো বাসগুলো থেকে কাঙ্ক্ষিত সেবা না পাওয়ার জন্য গণপরিবহন বিশেষজ্ঞ ড. শামসুল হক দায়ী করলেন কর্তৃপক্ষের দায়বদ্ধতা ও জবাবদিহিতার অভাবকে। তবে যাত্রীদের সর্বোচ্চ সেবা দিতে ভবিষ্যতে নতুন বাস কেনা ও রক্ষণাবেক্ষণের ক্ষেত্রে আরও বেশি সতর্ক থাকার আশ্বাস দিয়েছেন বিআরটিসি চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম।

বিআরটিসির ২০ বছর আগে কেনা ৫০টি ভলভো বাসের ৪৯টিই ভাঙারি হিসেবে বেঁচে দেয়া হয়েছে। দীর্ঘদিন অকেজো পড়ে থাকায় এমন সিদ্ধান্ত সরকারি সংস্থাটির। অকেজো বাসগুলো সারাতে দফায় দফায় উদ্যোগ নেয়া হলেও ব্যয়বহুল হওয়ায় তা কার্যকর হয়নি। পরিবহন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নতুন বাস কেনার পর সেগুলো রক্ষণাবেক্ষণে শিথিলতার কারণেই কাঙ্ক্ষিত সেবা পাওয়া যায়নি।

বিআরটিসির মিরপুর ডিপোতে এবার একটিমাত্র ভলভো বাসের দেখা মিললো, তারও অবস্থা একেবারেই করুণ। জানা গেছে, সুপ্রিম কোর্টের স্টাফদের আনা-নেওয়ার কাজে বাসটি ব্যবহৃত হলেও আপাতত অকেজো সেটি।

বছর বিশেক আগে সুইডেন থেকে ৭০ কোটি টাকায় কেনা হয় আধুনিক সুবিধা সম্বলিত ৫০টি ভলভো বাস। সুইডিশ প্রতিষ্ঠানটির হিসেবে টানা ১২ বছর সেবা দেওয়ার কথা থাকলেও বিআরটিসির দাবি ওই বাসগুলো রাস্তায় ৭-৮ বছর চলেছে। একে একে বাসের যন্ত্রাংশগুলো অকেজো হতে শুরু করলে তা মেরামতের উদ্যোগও নিয়েছিলো প্রতিষ্ঠানটি। কিন্তু দেশে ভলভোর যন্ত্রাংশ দুষ্প্রাপ্য হওয়ায় সে প্রচেষ্টা ভেস্তে যায়। বিআরটিসি চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম জানালেন, সম্প্রতি অকেজো ৪৯টি ভলভো বাস ভাঙারি হিসেবে বিক্রি করে দিয়েছে বিআরটিসি।

ভাঙারি হিসেবে বিক্রি হওয়া বিআরটিসির ভলভো বাসগুলো থেকে কাঙ্ক্ষিত সেবা না পাওয়ার জন্য গণপরিবহন বিশেষজ্ঞ ড. শামসুল হক দায়ী করলেন কর্তৃপক্ষের দায়বদ্ধতা ও জবাবদিহিতার অভাবকে। তবে যাত্রীদের সর্বোচ্চ সেবা দিতে ভবিষ্যতে নতুন বাস কেনা ও রক্ষণাবেক্ষণের ক্ষেত্রে আরও বেশি সতর্ক থাকার আশ্বাস দিয়েছেন বিআরটিসি চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম।



 

Show all comments
  • মোহাম্মদ কাইমুল ইসলাম ছোটন ১৭ অক্টোবর, ২০২১, ৬:২৩ পিএম says : 0
    ৫২ কোটি টাকার বাস ৫০ লাখ টাকার কমে বিক্রি। আমাদের দেশে এভাবে চলে লুট। জলে গেল কোটি কোটি টাকা। আর এদিকে গরিবের নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম মাত্রাতিরিক্ত হারে বাড়তেছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Sohail ১৭ অক্টোবর, ২০২১, ৬:২১ পিএম says : 0
    কোটি টাকার গাড়ি এখন ভাঙ্গারী হায়রে বি আর টি সির সাফল্য এই সাফল্যের জন্য এদের পুরস্কার দেওয়া হোক।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammod Abdul Jalil ১৭ অক্টোবর, ২০২১, ৬:২২ পিএম says : 0
    জনগণের মাল, দরিয়া মে ঢাল। নেই গণক্ষমতায়ন জবাবদিহি ভোটের অধিকার।
    Total Reply(0) Reply
  • Mahfuz Ahmed ১৭ অক্টোবর, ২০২১, ৬:২২ পিএম says : 0
    রাষ্ট্র কে অকার্যকর করার পায়তারা করছে তারা। ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়ে অবৈধ সরকার,, ,,,
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিআরটিসি

১৪ অক্টোবর, ২০২১
২৫ জুলাই, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ